• শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০৩:৩০ পূর্বাহ্ন

প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি পেলেই যে কোনো দিন এইচএসসির ফল প্রকাশ

প্রতিবেদকের নাম / ৩১৬ বার পঠিত
প্রকাশকাল : মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২১

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : বিশেষ পরিস্থিতিতে পরীক্ষা ছাড়াই ফল প্রকাশের আইনের গেজেট প্রকাশিত হয়েছে। ফলে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসএসি) ও এসএসসি পরীক্ষার ভিত্তিতে ২০২০ সালের এইচএসসির ফল প্রকাশে আর কোনো বাধা রইলো না। এখন প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি পেলেই যে কোনো দিন এইচএসসি ও সমমানের ফল প্রকাশ করা হবে।
জানা যায়, পরীক্ষা ছাড়া ২০২০-এর এইচএসসি ও সমমানের ফল প্রকাশ করতে আইন সংশোধন করে গেজেট প্রকাশ করেছে সরকার। সংসদে পাস হওয়া তিনটি বিলে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ স্বাক্ষর করার পর গত সোমবার রাতে তা গেজেট আকারে জারি করা হয়। ‘ইন্টারমিডিয়েট অ্যান্ড সেকেন্ডারি এডুকেশন (অ্যামেন্ডমেন্ট) অ্যাক্ট-২০২১’ ‘বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড (সংশোধন) অ্যাক্ট-২০২১’, ‘বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড (সংশোধন) অ্যাক্ট-২০২১’ সংশোধন করে গেজেট প্রকাশ করা হয়েছে।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সূত্র জানায়, এখন নিয়মানুযায়ী এইচএসসির ফল প্রকাশের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সময় চেয়ে চিঠি পাঠানো হবে। তিনি যেদিন সম্মতি দেবেন সেদিনই ফল প্রকাশ করা হবে। সেক্ষেত্রে আগামী শনি-রোববার বা অন্য যেদিনই প্রধানমন্ত্রী সম্মতি দেবেন সেদিনই ফল প্রকাশ করা হবে।
আইনগুলো সংশোধন হওয়ায় এখন বিশেষ পরিস্থিতে অতিমারি, মহামারি, দৈব দুর্বিপাকের কারণে বা সরকার কর্তৃক সময় সময় নির্ধারিত কোনো পরীক্ষা অনিবার্য পরিস্থিতিতে গ্রহণ করা সম্ভব না হলে কোনো বিশেষ বছরে শিক্ষার্থীদের জন্য পরীক্ষা ছাড়াই বা সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে পরীক্ষা গ্রহণ করে মূল্যায়ন এবং সনদ প্রদান করা যাবে।
গত বছর ১১টি শিক্ষা বোর্ডের ১৩ লাখ ৬৫ হাজার ৭৮৯ জন শিক্ষার্থীর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা ছিল সে বছরের ১ এপ্রিল। কিন্তু করোনাভাইসের প্রকোপ বাড়তে শুরু করলে ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষনা করা হয়। এরপর গত ৭ অক্টোবর এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী পঞ্চম ও অষ্টমের সমাপনীর মতো এইচএসসি পরীক্ষাও বাতিলের সিদ্ধান্তের কথা জানান।
এরপর জেএসসি-জেডিসির ফলকে ২৫ এবং এসএসসির ফলকে ৭৫ শতাংশ বিবেচনায় নিয়ে উচ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশের কথা জানানো হয়। কিন্তু আইনে পরীক্ষা ছাড়া পাবলিক পরীক্ষার ফল প্রকাশের কোনো বিধান না থাকায় সেটা সম্ভব হচ্ছিলো না। অবশেষে শিক্ষা মন্ত্রনালয় আইন সংশোধন করে ফল প্রকাশের উদ্যোগ নেয়।

Print Friendly, PDF & Email


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর