• সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৯:১৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শ্রীবরদীতে নানা আয়োজনে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উদযাপন নালিতাবাড়ীতে পুলিশের আনন্দ উৎসব উদযাপন নালিতাবাড়ীতে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উদযাপন শাকিবের নতুন লুক নজর কাড়ল সিনেমাপ্রেমীদের ঝিনাইগাতীতে পুলিশের উদ্যোগে ৭ মার্চ উদযাপন ৭ মার্চ উদযাপন ও উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে সুপারিশপ্রাপ্তিতে শ্রীবরদীতে পুলিশের আনন্দ উৎসব জামালপুরে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি শেরপুরে ৭ মার্চ উদযাপন উপলক্ষে পুলিশের আনন্দ উৎসব রমজানে বাজার স্বাভাবিক রাখতে ২৫ হাজার মেট্রিক টন ভোজ্য তেল আমদানি করা হবে : বাণিজ্যমন্ত্রী স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছেন ৯ ব্যক্তি ও এক প্রতিষ্ঠান

নকলা পৌর নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থী হয়েছেন এক ভিক্ষুক!

প্রতিবেদকের নাম / ৬০৭ বার পঠিত
প্রকাশকাল : মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২১

নিজেই করছেন মাইকিং, এলাকায় সৃষ্টি হয়েছে চাঞ্চল্যের

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আগামী ৩০ জানুয়ারি তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠেয় শেরপুরের নকলা পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের নির্বাচনে আব্দুল হালিম নামে এক ভিক্ষুক কাউন্সিলর প্রার্থী হয়েছেন। উপজেলা ভিক্ষুক সমিতির সভাপতি আব্দুল হালিম নিজেই মাইকিং করে নিজের প্রচারণা, পথসভাসহ ভোটারদের কাছে ভোট প্রার্থনা করছেন। ব্রিজের নিচে থাকেন, তাই নির্বাচনে প্রতিকও নিয়েছেন ব্রিজ মার্কাই। এ নিয়ে পৌর এলাকাসহ পুরো জেলায় সৃষ্টি হয়েছে চাঞ্চল্যের।

জানা যায়, ভিক্ষুক আব্দুল হালিমের নিজের কোন জায়গা জমি নেই। তাই শেরপুর-ঢাকা মহাসড়কের পাশে নকলা শহরের প্রবেশ মুখে একটি ব্রিজের নিচে ঝুপড়ি ঘরে বউ-বাচ্চাদের নিয়ে বসবাস করেন। তিনি উপজেলা ফকির সমিতির সভাপতিও ছিলেন। এবার তিনি জনসেবা করতে চান। তাই পৌর নির্বাচনে হয়েছেন কাউন্সিলর প্রার্থী। তিনি এর আগেরবারও প্রার্থী হয়েছিলেন। তবে সেবার ভুলের কারণে মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে যায়। কিন্তু এবার প্রার্থিতা টিকে গেছে। তবে তার পকেটে নেই টাকা। এ কারণে তার নেই কোন কর্মীও। এ জন্য তিনি নিজের মাইকিং নিজেই করে বেড়াচ্ছেন। প্রচারণা, লিফলেট বিলি ও পথে পথে দাড়িয়ে বক্তব্য দেয়াসহ দিন-রাত চলছে নির্বাচনী প্রচারণা।  ব্রিজের কাছেই একটি নির্বাচনী ক্যাম্প তৈরি করেছেন আব্দুল হালিম। তার স্ত্রী নিজেই চা তৈরি ও মুড়ি ভর্তা করে খাওয়াচ্ছেন ভোটারদের। এ খরচও দিচ্ছে স্থানীয় ভোটাররাই।
এদিকে ভিক্ষুক আব্দুল হালিম জানান, অন্যের সাহায্য নিয়ে মাত্র ৫শ পোস্টার ছেপেছেন, তাও কে-বা কারা ছিড়ে ফেলে। একজন মাইক ভাড়া করে দিয়েছে, আরেকজন দিয়েছেন ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক। ওই ইজিবাইক নিয়েই চালাচ্ছেন মাইকিং প্রচারণা। দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতিও।
আব্দুল হালিমের প্রত্যাশা, ইতোপূর্বে নির্বাচিতরা এলাকার কাজ করেনি। এবার তিনি নির্বাচিত হলে জনগণের জন্য কাজ করবেন, ফকিরদের মতো সেবা করবেন জনগণের। এখন দেখার বিষয় আগামী ৩০ জানুয়ারি জনগণ তাকে নির্বাচিত করেন কি না।

Print Friendly, PDF & Email


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর