• বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English Hindi Hindi
শিরোনাম :
দেশে পৌঁছেছে ‘আকাশ তরী’ জাতীয় প্রেসক্লাবে সৈয়দ আবুল মকসুদের জানাজা অনুষ্ঠিত শেরপুরে সাংবাদিকতায় বুনিয়াদি প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠিত বিএনপি বলেছিল শেখ হাসিনা করোনার ভ্যাকসিন আনতে পারবেন না, এখন তারাই গোপনে ভ্যাকসিন নিচ্ছেন, মতিয়া চৌধুরী শেরপুরে বহুমুখী পাটপণ্য তৈরি ও বিপণন বিষয়ক সপ্তাহব্যাপী প্রশিক্ষণ শুরু শেরপুরে আইনগত সহায়তা প্রদান কর্মসূচির অগ্রগতি বিষয়ক সমন্বয় সভা বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪৪ বিলিয়ন ডলার ছাড়াল রাকিবকে ডিভোর্স দিয়েই নাসিরকে বিয়ে করেছি: তামিমা নালিতাবাড়ীতে মধুটিলা ইকোপার্কের ২২৩ ধাপ সিঁড়ি উঠতে গিয়ে প্রাণ গেল এক ব্যক্তির প্রধানমন্ত্রীও সবসময় মাস্ক পরেন, আপনারাও সবসময় মাস্ক পরুন : শেরপুরে মতিয়া চৌধুরী

বিশ্বে ক্ষমতাধর নারীর তালিকায় ২৬তম শেখ হাসিনা

প্রতিবেদকের নাম / ২৮০ সময় দর্শন
হালনাগাদ : বৃহস্পতিবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : বিশ্বের ক্ষমতাধর ১শ নারীর মধ্যে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৬তম অবস্থানে আছেন। গত বছরে তিনি এই তালিকার ৩০তম অবস্থানে ছিলেন। এবার তার অবস্থানের ৪ ধাপ উন্নতি ঘটেছে।
যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ-বাণিজ্য বিষয়ক সাময়িকী ফোর্বস প্রতিবছর বিশ্বের ক্ষমতাধর নারীর তালিকা প্রকাশ করে। মঙ্গলবার ২০১৮ সালে ফোর্বস ক্ষমতাধর নারীদের যে তালিকা করেছে, তাতে শেখ হাসিনা ২৬তম স্থানে আছেন। ফোর্বসের ২০১৬ সালের তালিকায় শেখ হাসিনা ৩৬ নম্বরে ছিলেন। আর ২০১৫ সালে ছিলেন ৫৯তম অবস্থানে। অর্থাৎ ধারাবাহিকভাবে প্রতিবছর শেখ হাসিনার উন্নতি ঘটেছে।
শেখ হাসিনাকে ফোর্বসের তালিকায় স্থান দেওয়ার ক্ষেত্রে মিয়ানমারের বাস্তচ্যুত লাখ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনায় নেয়া হয়েছে। ফোর্বস সাময়িকী শেখ হাসিনার পরিচয় ও অবদান উল্লেখ করতে গিয়ে লিখেছে, ২০১৭ সালে শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের আশ্রয় ও তাদের জন্য বাংলাদেশের দুই হাজার একর জমি বরাদ্দ দিয়েছেন। মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে প্রাণে বাঁচতে এই রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। এ ছাড়া বাংলাদেশ স্থায়ীভাবে রোহিঙ্গাদের শান্তিপূর্ণ প্রত্যাবাসনে কাজ করে যাচ্ছেন শেখ হাসিনা।
২০১৮ সালের তালিকায় শীর্ষস্থানটি ধরে রেখেছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল। তার পরের অবস্থানে রয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে। তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছেন আইএমএফ ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টিন লগার্ড, চতুর্থ স্থানে রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের জেনারেল মোটরসের চেয়ারপারসন ও সিইও মেরি বারা, পঞ্চম স্থানে রয়েছেন ফিডেলিটি ইনভেস্টমেন্টসের সিইও আবিগেইল জনসন।

Print Friendly, PDF & Email


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর