ads

সোমবার , ২৪ জুন ২০২৪ | ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন নকলার সাংবাদিক শফিউজ্জামান রানা

স্টাফ রিপোর্টার
জুন ২৪, ২০২৪ ৯:০৩ অপরাহ্ণ

শেরপুরের নকলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) নির্দেশে করা ভ্রাম্যমাণ আদালতের মামলা থেকে অব্যাহতি পেয়েছেন সাংবাদিক শফিউজ্জামান রানা। শফিউজ্জামানের আপিল আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২৪ জুন সোমবার দুপুরে ওই রায় ঘোষণা করেন শেরপুর জেলা ভ্রাম্যমাণ আপিল আদালতের বিচারক ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) জেবুন নাহার।

Shamol Bangla Ads

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ভ্রাম্যমাণ আদালতে দণ্ডবিধির ১৮৮ ধারায় (সরকারি কাজে বাধাদান) সাংবাদিক শফিউজ্জামানের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল, তা থেকে তাঁকে বেকসুর খালাসের ঘোষণা দেন আদালত। সেই সঙ্গে ৫০৯ ধারা (নারী কর্মচারীকে উত্ত্যক্ত) অনুযায়ী যে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল, সেই ধারায় যত দিন সাজা ভোগ করা হয়েছে, তা থেকে অব্যাহতি দিয়ে মামলা নিষ্পত্তি করা হয়।
রায়ে জেবুন নাহার বলেন, ভোগকৃত সাজাই চূড়ান্ত। ১৮৮ ধারায় সাংবাদিক শফিউজ্জামান রানার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল তা থেকে বেকসুর খালাস দেওয়া হলো এবং ৫০৯ ধারা মোতাবেক যে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল, সেই ধারায় যতদিন সাজা ভোগ করা হয়েছে তা থেকে অব্যাহতি দিয়ে মামলা নিষ্পত্তি করা হইলো।

জানা গেছে, শফিউজ্জামান রানা দেশ রূপান্তর পত্রিকার নকলা সংবাদদাতা। গত ৫ মার্চ তিনি তথ্য অধিকার আইনে নকলার ইউএনওর দপ্তরে তথ্য চাইতে যান। এ সময় সরকারি কাজে বাধা, বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি, অসদাচরণ এবং একজন নারী কর্মচারীকে উত্ত্যক্তের অভিযোগে ইউএনও সাদিয়া উম্মুল বানীনের নির্দেশে তৎকালীন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শিহাবুল আরিফ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। সেখানে শফিউজ্জামানকে দুটি পৃথক ধারায় সাত মাসের কারাদণ্ডাদেশ প্রদান করেন। তবে সাংবাদিক শফিউজ্জামান রানা এসব অভিযোগ অস্বীকার করেন। ভ্রাম্যমাণ আদালতের দেওয়া সাজায় সাংবাদিক শফিউজ্জামান সাত দিন জেলা কারাগারে বন্দী ছিলেন। পরবর্তী সময়ে ১২ মার্চ শেরপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জেবুন নাহার তাঁকে (শফিউজ্জামান) জামিনে মুক্তি দেন।

Shamol Bangla Ads

জেলা ভ্রাম্যমাণ আপিল আদালতের সহকারী সরকারি কৌঁসুলি (এপিপি) মো. আরিফুর রহমান রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। সোমবার বিকেলে তিনি বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালতের প্রচলিত ধারায় মামলাটি হয়নি। ফলে সাংবাদিক শফিউজ্জামান রানা খালাস পেয়েছেন।
শফিউজ্জামান রানার আইনজীবী মো. আব্দুর রহিম বাদল আদালতের রায়ের বিষয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, যে ধারায় মামলাটি করা হয়েছিল, সেটি যথাযথ হয়নি।

error: কপি হবে না!