• সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ০৫:৩৬ অপরাহ্ন
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত নিউজপোর্টাল

দুর্দান্ত মুশফিক-লিটনে চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম দিন বাংলাদেশের

/ ৮৭ বার পঠিত
প্রকাশকাল : শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২১

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাজে পারফরম্যান্সের পর বাদ পড়েছিলেন মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। ঘরের মাঠে পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে তাই দুজনেই ছিলেন দর্শক। মুশফিক-লিটনকে বাদ দিলেও ভাগ্য ফেরেনি বাংলাদেশের। বিশ্বকাপ-ব্যর্থতা জারি রেখে টি-টোয়েন্টি সিরিজেও হয়েছে ধবলধোলাই। তাই টেস্ট সিরিজেই ফেরানো হয়েছে দুজনকে। তাঁরা শুধু ফিরলেনই না, সকালের ঝড়ে এলোমেলো বাংলাদেশকে চওড়া ব্যাটে পথ দেখালেন।

Shamol Bangla Ads

৪৯ রানে ৪ উইকেট হারানো বাংলাদেশকে দিন শেষে নিয়ে গেছেন নিরাপদ অবস্থানে। এই দুজনের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে চট্টগ্রাম টেস্টে প্রথম দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ২৫৩ রান। ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি তুলে লিটন অপরাজিত আছেন ১১৩ রানে। আর মুশফিক উইকেটে আছেন ৮২ রান করে।
ব্যাটিংয়ের জন্য সহায়ক উইকেটে টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন মুমিনুল হক। সবকিছু পক্ষেই ছিল, কিন্তু চেনা উইকেটে শুরুতেই অচেনা বাংলাদেশ। পাকিস্তানের বিপক্ষে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আগে ব্যাটিং নিয়ে যথারীতি ধুঁকতে শুরু করেন স্বাগতিকেরা। বিশেষ করে নতুন বলে শাহিন শাহ আফ্রিদিকে খেলতেই পারছিলেন না দুই ওপেনার সাদমান ইসলাম ও সাইফ হাসান। এর মাঝে ব্যক্তিগত ১৪ রানে শাহিনের দারুণ এক বাউন্সারে শর্ট লেগে আবিদ আলীকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন সাইফ।

দুইবার সুযোগ পেয়েও ইনিংস বড় করতে পারেননি সাদমান। প্রথম ওভারে বল ব্যাটে লাগলেও পাকিস্তানি খেলোয়াড়েরা আবেদন না করায় বেঁচে যান সাদমান। এরপর আরেকবার লেগবিফোরের আবেদনে সাড়া দেননি আম্পায়ার। পাকিস্তানও রিভিউ নেয়নি, বেঁচে যান সাদমান। কিন্তু সেই সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন এই ওপেনার। হাসান আলীর বলে লেগ-বিফোরের ফাঁদে পড়ে আউট হন তিনি।

Shamol Bangla Ads

এরপর শান্তকে নিয়ে সাদমান চেষ্টা করে যাচ্ছিলেন ইনিংস টেনে নেওয়ার। দলীয় ৩৩ রানে হাসান আলীর বলে সাদমান এলবিডব্লিউ হলে আবারও বিপদে পড়ে বাংলাদেশ। এরপর সবাই হয়তো তাকিয়ে ছিলেন অধিনায়ক মুমিনুলের ব্যাটের দিকে। কিন্তু নিজের পয়া ভেন্যুতেও ‘ফেল’ মুমিনুল। অধিনায়কের বিদায়ের পর দলীয় ৪৯ রানে শান্তও ফিরে গেলে ধুঁকতে থাকে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের প্রথম তিন ব্যাটারই আউট হয়েছেন ১৪ রান করে। মুমিনুল থেমেছেন ৬ রানে। ৪৯ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে তখন বড় বিপর্যয়ের শঙ্কায় কাঁপছে বাংলাদেশ। আর সেখান থেকেই শুরু হয় মুশফিক-লিটনের প্রতিরোধ।

এ দুজনের দারুণ ব্যাটিংয়ে ধীরে ধীরে ম্যাচে ফিরতে থাকে বাংলাদেশ। দুজনই অর্ধশতকে পৌঁছান চার মেরে। কিন্তু অর্ধশতকেই সন্তুষ্ট থাকতে চাননি তাঁরা। বড় করতে থাকেন ইনিংস। ১৯৯ বলে সেঞ্চুরি করেন লিটন। এখন দ্বিতীয় দিনে সেঞ্চুরির অপেক্ষায় আছেন মুশফিকও।

Shamol Bangla Ads

এই বিভাগের আরও খবর
Shamol Bangla Ads

error: কপি হবে না!
error: কপি হবে না!