• বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১০:৩৪ অপরাহ্ন

শেরপুরে ভাইকে বেঁধে রেখে বিধবা তরুণীকে গণধর্ষণ ॥ গ্রেফতার ২

প্রকাশকাল : শনিবার, ১২ জুন, ২০২১

শেরপুরে ভাইকে গাছে বেঁধে রেখে এক বিধবা তরুণীকে (২৩) গণধর্ষণ করেছে দুর্বৃত্তরা। ১১ জুন শুক্রবার রাতে সদর উপজেলার লছমনপুর ইউনিয়নের প্রত্যন্ত পল্লী ইলশা গ্রামে ওই ঘটনা ঘটে। এদিকে ওই ঘটনায় ২ ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে সদর উপজেলার লছমনপুর ইউনিয়নের সজীব মিয়া (২১) ও বিল্লাল হোসেন (৪৫)। গ্রেফতারকৃতদের শনিবার বিকেলে ৭ দিনের পুলিশ রিমাণ্ডের আবেদনসহ আদালতে সোপর্দ করা হলে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারিন ফারজানা ১৬ জুন ওই বিষয়ে শুনানীর তারিখ ধার্যক্রমে জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এদিকে একই দিন দুপুরে জেলা সদর হাসপাতালে ধর্ষণের শিকার ওই তরুণীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

জানা যায়, ভুক্তভোগী ওই তরুণীর স্বামী তিন বছর আগে দুর্বৃত্তদের হাতে নিহত হন। এরপর থেকে তিনি সদর উপজেলার ঘুঘুরাকান্দি-বেতমারী ইউনিয়নের হাড়ুয়াপাড়া গ্রামে তার বাবার বাড়িতে বসবাস করছেন। শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে শেরপুর শহরে কাজ শেষে ওই বিধবা তরুণী তার এক চাচাতো ভাইকে সাথে নিয়ে অটোরিক্সাযোগে তার বাবার বাড়িতে যাচ্ছিলেন। ওইসময় লছমনপুর ইউনিয়নের ইলশা গ্রামে পৌঁছামাত্র ৪ দুর্বৃত্ত তাদের বহনকারী অটোরিক্সার পথরোধ করে। এক পর্যায়ে ওই তরুণীর ভাইকে সংঘবদ্ধ দুর্বৃত্তরা দেশীয় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সড়কের পাশে একটি জঙ্গলে গাছে বেঁধে রেখে তারা ওই তরুণীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ওইসময় তরুণী ও তার ভাইয়ের ডাক-চিৎকারে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে যায় এবং সজীব ও বিল্লাল নামে ২ জনকে আটক করে। পরে খবর পেয়ে সদর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ধর্ষণের শিকার তরুণীকে উদ্ধার করে এবং আটক ২ জনকে থানায় নিয়ে যায়। ওই ঘটনায় গণধর্ষণের শিকার তরুণী বাদী হয়ে ৪ জনকে আসামি করে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বন্দে আলী মিয়া জানান, ওই ঘটনায় ২ জনকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। অন্যদিকে ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে। এছাড়া তার পরিধেয় বস্ত্র ডিএনএ টেস্টের জন্য জব্দ করা হয়েছে।


এই বিভাগের আরও খবর
error: বিষয়বস্তু সুরক্ষিত !!
error: বিষয়বস্তু সুরক্ষিত !!