• রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০৮:১৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
৭০০ বছরের ইতিহাসে দ্বিতীয়বারের মতো শাহজালাল মাজারের ওরস হচ্ছে না দ্রুত বর্ধনশীল উন্নতজাতের ‘সুবর্ণ রুই’ মাছের জাত উদ্ভাবন প্রেম করে বিয়ের পর স্ত্রী-শ্যালিকাকে ভারতে পাচার, ময়মনসিংহে গ্রেফতার ২ শেখ হাসিনা পরিবেশবান্ধব উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করছেন : এনামুল হক শামীম ময়মনসিংহ নগরীর মশক নিধনে খাল-ড্রেনে মশাভুক মাছ অবমুক্ত শেরপুরে ভাইকে বেঁধে রেখে বিধবা তরুণীকে গণধর্ষণ ॥ গ্রেফতার ২ ঝিনাইগাতীতে মাদকের ১০ মামলার আসামিসহ গ্রেফতার ৪ বাংলাদেশের নাটকের ইতিহাসে অপুর্ব’র অনন্য রেকর্ড ভালো জাতের আম কীভাবে চিনবেন ৩ আসনের উপনির্বাচনে নৌকার মাঝি মিন্টু-হাবিব-হাসেম

নকলায় প্রেমের ফাঁদে ফেলে কলেজছাত্রীকে অপহরণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

জাহাঙ্গীর হোসেন, নকলা
প্রকাশকাল : বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১

শেরপুরের নকলায় চিথলিয়া গ্রামে প্রেমের ফাঁদে ফেলে একাদশ শ্রেণিতে পড়ুয়া এক কলেজ ছাত্রীকে অপহরণের অভিযোগে মুন্নাফ (১৭) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে নকলা থানা পুলিশ। ৯ জুন বুধবার ভোরে ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ার কড়ইতলা গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। মুন্নাফ স্থানীয় আব্দুর রফিকের পুত্র। কলেজ ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে মুন্নাফ ও তার মাসহ অজ্ঞাতনামা আরো ২/৩জনকে আসামী করে নকলা থানায় মামলা করার পর পুলিশ মুন্নাফকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার ও কলেজ ছাত্রীকে একই গ্রামের পার্শ্ববর্তী মুন্নাফের এক নিকটাত্মীয়ের বাড়ি থেকে উদ্ধার করে।

জানা যায়, মুন্নাফের সাথে নকলা সরকারি হাজী জালমামুদ কলেজে একাদশ শ্রেণিতে পড়ুয়া ওই ছাত্রীর মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পরিচয় হয়। এক পর্যায়ে তা গভীর প্রেমে রূপ নেয়। আর সেই প্রেমের টানেই কলেজছাত্রী মুন্নাফের হাত ধরে বাড়ি ছাড়ে। কিন্তু কলেজ ছাত্রীর পরিবার এটা মন থেকে মানতে পারেনি। গ্রেফতারকৃত মুন্নাফের পাররিবারিক সূত্র জানায়, ছেলেমেয়ে দু’জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সে কারণে মেয়েটি বাড়ি ছেড়েছে। কেউ মেয়েটিকে অপহরণ করেনি। এখন মেয়ের বাবা মিথ্যা অপহরণ মামলা করে আমাদেরকে হয়রানি করছে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই হাসানুজ্জামান জানান, ওই ঘটনায় ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে মুন্নাফ ও তার মাসহ অজ্ঞাতনামা আরো ২/৩ জনকে আসামি করে অপহরণ মামলা করার পর আমরা অভিযান পরিচালনা করে মুন্নাফকে গ্রেফতার ও কলেজ ছাত্রীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসি। মুন্নাফকে আদালতে প্রেরণ ও কলেজ ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষা শেষে তার বাবার জিম্মায় দেয়া হয়েছে।


এই বিভাগের আরও খবর
error: বিষয়বস্তু সুরক্ষিত !!
error: বিষয়বস্তু সুরক্ষিত !!