• বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৪:১২ পূর্বাহ্ন

বাবর-ফখরের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে সিরিজ জিতল পাকিস্তান

শ্যামলবাংলা ডেস্ক
/ ৭৭ বার পঠিত
প্রকাশকাল : বৃহস্পতিবার, ৮ এপ্রিল, ২০২১

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৩ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে দুর্দান্ত জয় পেয়েছে পাকিস্তান। ফখর জামানের টানা দ্বিতীয় ওয়ানডে সেঞ্চুরি ও বাবর আজমের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের পর বোলারদের মিলিত চেষ্টায় সিরিজ জিতে নিল সফরকারীরা। ৭ এপ্রিল বুধবার সেঞ্চুরিয়নে সুপারস্পোর্ট পার্কে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে সিরিজ নিশ্চিত করল পাকিস্তান।

জানা গেছে, প্রথমে ব্যাট করা পাকিস্তান নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ৩২০ রান করে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ২৯২ রানে অল আউট হয় প্রোটিয়ারা। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতে নিল পাকিস্তান।

শুরুটা দুর্দান্ত করে দুই পাকিস্তানি ওপেনার। ২১.২ ওভারে ১১২ রান করেন ইমাম-উল-হক ও ফখর জামান জুটি। ইমাম ব্যক্তিগত ৫৭ করে বিদায় নেন। তবে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে অধিনায়ক বাবর আজমের সঙ্গে আরও ৯৪ রান করে তুলে নেন ওয়ানডের ষষ্ঠ সেঞ্চুরি। পরে ১০৪ বলে ৯টি চার ও ৩টি ছক্কা হাঁকিয়ে ১০১ করে কেশভ মাহারাজের বলে আউট হন। এই সিরিজে টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি করলেন বাঁহাতি ফখর। সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে তিনি ১৯৩ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেছিলেন।

পাকিস্তানের ইনিংসে মাঝে ছন্দপতন হলেও হাল ধরেন বাবর। সপ্তম উইকেট জুটিতে তিনি হাসান আলীর সঙ্গে ২৩ বলে ৬৩ রানের ঝড়ো পার্টনারশিপ গড়েন। তার সামনে শেষ বলে ছক্কা হাঁকিয়ে সুযোগ ছিল সেঞ্চুরি করার। তবে তুলে মারলেও ৮২ বলে ৯৪ রানের শেষ হয় তার ইনিংস। এসময় তিনি ৭টি চার ও ৩টি ছক্কা মারেন।

আর হাসান মাত্র ১১ বলে একটি চার ও ৪টি ছক্কায় ৩২ রানে অপরাজিত থাকেন। দক্ষিণ আফ্রিকা বোলারদের মধ্যে স্পিনার কেশভ মাহারাজ সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট পান। এছাড়া এইডেন মার্করাম ২টি উইকেট তুলে নেন।

লক্ষ্য তাড়ায় ভালো শুরুটা বড় করতে পারেননি এইডেন মারক্রাম। স্মাটস টিকেননি বেশিক্ষণ। দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে তাকে বোল্ড করে ওয়ানডে অভিষেকে উইকেটের স্বাদ পান লেগ স্পিনার উসমান। এক প্রান্ত আগলে রেখে লড়াই করতে থাকেন ইয়ানেমান মালান। টেম্বা বাভুমাকে নিয়ে ধরেন দলের হাল। কিন্তু এক ওভারেই এই দুই জনকে ফিরিয়ে স্বাগতিকদের চাপে ফেলে দেন নওয়াজ। ৯ চারে ৭০ রান মালানকে এলবিডব্লিউ করার পর বাঁহাতি স্পিনার বোল্ড করে দেন দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়ককে। হাইনরিখ ক্লাসেনকেও দ্রুত সাজঘরে ফেরত পাঠান নওয়াজ। ১৪০ রান ৫ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়া দলকে টানেন ভেরেইন ও ফেলুকওয়ায়ো। তাদের শতরানের জুটিতে লড়াইয়ে ফিরে দক্ষিণ আফ্রিকা।

কিন্তু ফিফটির পর ফিরে যান ২ জনই। ৪০ বলে পঞ্চাশ করে ভেরেইন দ্রুত রান বাড়ানোর চেষ্টায় বাউন্ডারিতে ধরা পড়েন তিনটি করে ছক্কা-চারে ৬২ রান করে। পরের ওভারেই ফিরে যান ৫৪ রান করা ফেলুকওয়ায়ো। এরপর আর পেরে উঠেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। পাকিস্তান স্পিনার মোহাম্মদ নওয়াজ ও শাহীন শাহ আফ্রিদি সর্বোচ্চ ৩ টি উইকেট পান। এছাড়া ২টি উইকেট তুলে নেন হারিস রউফ।


এই বিভাগের আরও খবর