ads

রবিবার , ১৮ জুন ২০১৭ | ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ যেভাবে এগিয়ে চলছে, আগামীতে কেউ দমিয়ে রাখতে পারবে না ॥ মতিয়া চৌধুরী

শ্যামলবাংলা ডেস্ক
জুন ১৮, ২০১৭ ৪:২৯ অপরাহ্ণ

নালিতাবাড়ী (শেরপুর) প্রতিনিধি ॥ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু তনয়া শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দেশ সামনের দিকে যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে, আগামী দিনে কেউ তা আর দাবিয়ে রাখতে পারবে না। ২০২১ সালের আগেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে ইনশাআল্লাহ। তিনি রবিবার দুপুরে তার নির্বাচনী এলাকা শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার পলাশীকুড়া জনতা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে ঈদবস্ত্র বিতরণ উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওই কথা বলেন।
কৃষিমন্ত্রী জঙ্গিবাদকে প্রত্যাখ্যানের আহবান জানিয়ে বলেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম, ইসলাম সাম্যের ধর্ম। বাংলার মাটিতে শেখ হাসিনা জঙ্গিবাদকে মোকাবেলা করে চলছেন, আরও মোকাবেলা করবেন এবং এই দেশের মাটিতে তাদের অপকৌশল কোনভাবেই সফল হতে দেবেন না। তিনি বলেন, জঙ্গিদের কেউ আশ্রয় দেবেন না। এরা দেশের শান্তি বিনষ্ট করছে। জঙ্গিবাদকে ঘৃণা করুন। জঙ্গিরা শোলাকিয়া ঈদগাঁহ মাঠে, আশকোনায় ও দেশের বিভিন্ন স্থানে সুইসাইড হামলা চালিয়েছে। তারা নিজের সন্তানকে ক্ষতবিক্ষত করেছে। এদের থেকে সাবধান থাকুন। আমরা জানি এদের সোর্স হলো আমেরিকা। এরাই লাদেন বানিয়েছে, এরাই আবার লাদেনকে খুন করেছে। এরা সর্প হয়ে দংশন করে ওঝা হয়ে ঝাড়ে। এদের সমন্ধেও আমাদের চিন্তা-ভাবনা করার সময় আসছে। আজকে বাংলাদেশ স্বাধীন দেশ। আমরা এ স্বাধীনতা মাগনা পাইনি। ত্রিশ লক্ষ শহীদের রক্ত দিয়ে পেয়েছি। আমাদের জাতির জনক ১৪ বছর কারাভ্যন্তরে কাটিয়েছেন। দুইবার হাসিমুখে ফাঁসির মঞ্চে গিয়েছেন। কাজেই আল্লাহর রহমতে এ দেশকে কেউ আর দাবিয়ে রাখতে পারবে না।
তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ এখন সুখী দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফুটানোর জন্য বয়স্কভাতা, বিধবাভাতা, পঙ্গুভাতা, প্রতিবন্ধীভাতা ও গর্ভকালীন ভাতা দিচ্ছেন। তিনি যতদিন বেঁচে থাকবেন, ততদিন গরিব-অসহায়দের পাশে থাকবেন। তাইতো তিনি এতিমদের ইফতার পার্টিতে এতিম শিশুকে নিজ হাতে খাইয়েছেন। অন্যদিকে বেগম খালেদা জিয়া এতিমদের ইফতার পার্টিতে শুধু এতিমদের সামনে দিয়ে হেটে গেছেন। এইতো দু’জনের মধ্যে পার্থক্য।
ওইসময় তার সাথে শেরপুরের জেলা প্রশাসক ডঃ মল্লিক আনোয়ার হোসেন, পুলিশ সুপার রফিকুল হাসান গণি, নালিতাবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম মুখলেছুর রহমান রিপন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তরফদার সোহেল রহমান, কৃষি বিভাগের কৃষিবিদ আশরাফ উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিয়াউল হক মাস্টার, সাধারণ সম্পাদক ফজলুল হকসহ স্থানীয় প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ ও দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এদিন মন্ত্রী নালিতাবাড়ী উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মেধাবী শির্ক্ষীদের মাঝে, শাড়ী ও গরিব-অসহায়দের মাঝে টাউজার এবং শার্ট বিতরণ করেন।

error: কপি হবে না!