ads

রবিবার , ১৮ জুন ২০১৭ | ৩রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

পৌর মেয়রের সু-দৃষ্টি ॥ লোডশেডিংয়েও আলোকিত থাকে নকলা বাজার

শ্যামলবাংলা ডেস্ক
জুন ১৮, ২০১৭ ৯:১৩ অপরাহ্ণ

মোঃ মোশারফ হোসেন, নকলা (শেরপুর) : শেরপুরের নকলা শহরকে লোডশেডিংমুক্ত করতে বাজারের সব ক’টি ল্যাম্পপোষ্ট সৌর প্যানেলের আওতায় আনা হয়েছে। পৌরসভার মেয়র হাফিজুর রহমান লিটনের একান্ত প্রচেষ্টায় পৌরসভাধীন নকলা বাজারের ১শ ৫টি ল্যাম্পপোষ্টে সৌর প্যানেলের সংযোগ দেওয়া হয়েছে। বিদ্যুৎ চলে গেলে এখন আর মানুষকে আলোকস্বল্পতার জন্য কোন সমস্যায় পড়তে হয় না। পৌর মেয়রের সু-দৃষ্টির ফলেই লোডশেডিংয়ের সময়েও পুরো শহর আলোকিত থাকে। বিদ্যুৎ চলে যাওয়ার সাথে সাথে ওইসব ল্যাম্পপোষ্টের লাইটগুলো স্বয়ংক্রিয়ভাবে জ্বলে উঠে। বিদ্যুৎ কখন যায় আর কখন আসে বর্তমানে তা কেউ বুঝে না। পৌর এলাকায় চুরিসহ বিভিন্ন অপরাধ বন্ধে এবং জানমালের নিরাপত্তার স্বার্থে গত সপ্তাহে দু’টি টিআর প্রকল্পের ২৪ মেট্রিকটন চালের সমমূল্যে শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সোলার প্যানেল এ্যাটাচ করা ২০টি ল্যাম্পপোষ্ট স্থাপন করা হয়। এখন বাজারের আরও ১শ ৫টি ল্যাম্পপোষ্টের সাথে সোলার সিস্টেম চালু করায় জানমালের পূর্ণ নিরাপত্তা পেলো জনগণ।
তথ্যমতে, ২০০১ সালে গঠিত হওয়া প্রায় ১৯বর্গ কিলোমিটার আয়তন বিশিষ্ট সদ্য ঘোষিত দ্বিতীয় শ্রেণীতে উন্নতি হয়। পৌর এলাকায় ৬টি বানিজ্যিক ব্যাংকের শাখা, ১টি ফাজিল মাদরাসা, ১টি আলীম ও ২টি দাখিল মাদরাসা; ৪টি মাধ্যমিক স্কুল, ৩টি কওমী মাদরাসা, ২-৩টি হাফেজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানা, ৮টি কেজি স্কুল, ১৪-১৫টি মসজিদসহ রয়েছে অসংখ্য সরকারি-বেসরকারি অফিস ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। কিছু দিন আগেও লোডশেডিং চলাকালে পৌর এলাকায় বিশেষকরে বাজারে কয়েক দিন অন্তর চুরিসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড ঘটতো। লোডশেডিংয়ের সময় এমন অনাকাঙ্খীত ঘটনা থেকে রেহাই পেতে এবং জন চলাচলের সুবিধার্থে লোডশেডিংয়ের সময় আলো নিশ্চিত করতে ২০টি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে সোলার ল্যাম্পপোষ্ট স্থাপনের পরে বাজারের আরও ১শ ৫ ল্যাম্পপোষ্টের সাথে সোলার সিস্টেম চালু করা হলো। তাছাড়া টিআরের টাকায় ইতোমধ্যে পৌর ভবনের সব অফিস কক্ষে, নকলা মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ও পৌর জামে মসজিদকে সম্পূর্ণভাবে সোলার সিস্টেমের আওতায় আনা হয়েছে।
আকাশ সোলারের সেলস্ এন্ড টেকনিক্যাল ম্যানেজার হাফিজুল হাসান জানান, পুরো বাজারকে আলোকিত রাখতে পৌরসভা ভবনের ছাদে ৩ হাজার ওয়াটের সৌর প্যানেল বসানো হয়েছে। শুধুমাত্র আগের লাইনের সাথে সোলারের লাইন সংযোগ করে দেওয়া হয়েছে। বিদ্যুৎ চলে গেলে সয়ংক্রিয়ভাবে লাইটগুলো জ্বলে উঠবে। তিনি আরও জানান, ১শ ৫টি লাইটের মধ্যে ১৫ টি এলইডি বাল্ব, বাকিগুলো এনার্জি বাল্ব। সকল সরঞ্জাম জার্মানী হলেও সৌর প্যানেলটি চাইনিজ। আর এতে খরচ হওয়ার কথা ৬১ হাজার টাকা, কিন্তু নিজের জন্মস্থান হওয়ায় অফিসে আবেদনের মাধ্যমে মেশিনের ক্ষমতা অক্ষুন্ন রেখেই ৪০হাজার টাকায় কাজ শেষ করেছেন। তিনি বলেন, সব পোষ্টে এলইডি বাল্ব লাগালে এই প্যানেলের আওতায় আরও বাড়তি লাইট সংযোগ দেওয়া যাবে।
বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন পরিবহনের ড্রাইভার জানান, আগে কয়েক দিন পর পর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের তালা, গ্রিল ও দেওয়াল ভেঙ্গে এবং টিনের চালা কেটে চুরি হওয়ায় কয়েকজন ব্যবসায়ী নিঃস্ব হয়ে ব্যবসা ছেড়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। সোলার ল্যাম্পপোষ্ট স্থাপন করায় এখন চুরি বন্ধ হয়েছে।
নকলা থানার ওসি খাঁন আব্দুল হালিম সিদ্দিকী বলেন, এর পরেও কোন চুরি, ছিনতাই বা যেকোন অপরাধমূলক কর্মকান্ড হলে অপরাধী সনাক্ত করে দ্রুত আইনের আওতায় এনে তা নির্মুল করা হবে। পৌরসভার মেয়র হাফিজুর রহমান লিটন জানান, শহরে সোলার লাইট ও সৌর প্যানেল স্থাপন করায় বিভিন্ন অপরাধের মাত্রা কমে গেছে। আগামী অর্থ বছরে শুধু শহর নয় সারা পৌর এলাকার সব ল্যাম্পপোষ্টগুলো সোলার সিস্টেমের আওতায় আনা হবে বলেও তিনি জানান।

error: কপি হবে না!