ads

শনিবার , ১৩ মে ২০১৭ | ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

শেরপুরে আ’লীগের সভায় পর পর ৪ বার অনুপস্থিত : মতিয়া চৌধুরী ও সাংসদ চাঁনসহ ৬ জনের প্রতি শোকজ

শ্যামলবাংলা ডেস্ক
মে ১৩, ২০১৭ ৭:৪৬ অপরাহ্ণ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ শেরপুরে জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী পরিষদের পর পর ৪ সভায় অনুপস্থিত থাকায় শোকজ নোটিশ পাচ্ছেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, নালিতাবাড়ী-নকলা নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য, কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী ও শ্রীবরদী-ঝিনাইগাতী নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য প্রকৌশলী একেএম ফজলুল হক চাঁনসহ দলের ৬ নেতা। ১৩ মে শনিবার সন্ধ্যায় শহরের চকবাজারস্থ দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী পরিষদের সভায় ওই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়। বেগম মতিয়া চৌধুরী ও একেএম ফজলুল হক চাঁন জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সদস্য। শোকজ নোটিশ পাচ্ছেন এমন অন্যান্য নেতারা হচ্ছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শামছুন্নাহার কামাল, নালিতাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিয়াউল হক মাস্টার, সাধারণ সম্পাদক ফজলুল হক ও নকলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জিন্নাহ। তবে কমিটি গঠনের পর থেকে ওই সভায় এবারই প্রথম হাজির হয়ে শোকজের আওতায় পড়েননি জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবীর রুমান ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ছানুয়ার হোসেন ছানু। এছাড়া সভায় আগামী জাতীয় নির্বাচনসহ বিভিন্ন ইস্যুতে দলের বাইরে ভিন্ন অবস্থান গড়ে তোলা থেকে বিরত হয়ে ঐক্যবদ্ধ অবস্থানে তথা দলের পক্ষে এক প্লাটফর্মে দৃঢ় অবস্থান নিশ্চিতকরণসহ মূল দলকে পাশ কাটিয়ে সহযোগী সংগঠনের কমিটির অনুমোদন দেওয়া থেকে বিরত থাকতে কেন্দ্রের প্রতি অনুরোধ ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য অধ্যক্ষ গোলাম হাসান খান সুজনের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় নিন্দা প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়। ৭১ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাহী পরিষদের ওই সভায় ৬১ সদস্য উপস্থিত ছিলেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হুইপ আতিউর রহমান আতিকের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট চন্দন কুমার পাল পিপি, জাতীয় পরিষদ সদস্য মোঃ খোরশেদুজ্জামান, সিনিয়র সদস্য কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবীর রুমান, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ছানুয়ার হোসেন ছানু, পৌর মেয়র গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন, বশিরুল ইসলাম শেলু, এডভোকেট রফিকুল ইসলাম আধার, এসএম আব্দুল্লাহেল ওয়ারেজ নাইম, রফিকুল ইসলাম চেয়ারম্যান, প্রকাশ দত্ত, মোতাহারুল ইসলাম লিটন, অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান, অধ্যক্ষ শহীদুল ইসলাম মুকুল, এডিএম শহীদুল ইসলাম প্রমুখ। ৭১ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাহী পরিষদের ওই সভায় সিনিয়র সদস্য সাবেক এমপি খন্দকার মোঃ খুররম ও আব্দুল হালিম উকিল, সহ-সভাপতি এডভোকেট মজদুল হক মিনু, গোলাম রব্বানী, ফখরুল মজিদ খোকন, এডভোকেট একেএম মোছাদ্দেক ফেরদৌসী, মিনহাজ উদ্দিন মিনাল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাজিমুল হক নাজিম ও এডভোকেট সুব্রত কুমার দে ভানু, সাংগঠনিক সম্পাদক বশিরুল ইসলাম শেলু ও আনোয়ারুল হাসান উৎপলসহ ৬১ সদস্য উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ১৯ মে জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন এবং পরের বছর ১১ অক্টোবর নির্বাহী পরিষদের পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়।

error: কপি হবে না!