ads

শনিবার , ২ মে ২০১৫ | ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

বিশুদ্ধ পানির সংকটে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতাল

রফিকুল ইসলাম আধার , সম্পাদক
মে ২, ২০১৫ ৭:৩৩ অপরাহ্ণ

habigonj picএম সজলু, হবিগঞ্জ : দীর্ঘ দিন ধরেই বিশুদ্ধ পানি সংকটে ভুগছে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতাল। হাসপাতাল চত্বরে তিনটি টিউবলেয় থকলেও দীর্ঘ দিন ধরেই তা অকেজো অবস্থায় রয়েছে। নামে মাত্র, পানি সরবরহ সাপ্লাইয়ের ব্যবস্থা থাকলেও পানি সংরিক্ষিত ট্যাংকিটি ময়লার স্তুপে পরিণত হয়ে পড়েছে। বিষয়গুলো দেখেও অনেকটা না দেখার নাটকীয়তায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর যেখানে বিশুদ্ধ পানির সরবারহে প্রচার-প্রচারণ করে থাকে, সেক্ষেত্রে হাসপাতালের এমন দৃশ্য সত্যিই রোগীদের নিয়ে বিবেক বর্জিত উপহাসের বিষয় বলে মন্তব্য সচেতন মহলের।
পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে দৈনিক পাঁচ থেকে ছয় শতাধিক লোক বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিতে আসেন। এদের মধ্যে শিশু ও মহিলাদের সংখ্যাই বেশি। সেবা নিতে আসা রোগীদের মধ্যে বেশির ভাগেই নি¤œবৃত্ত ও মধ্যবৃত্ত আয়ের । শুধু হবিগঞ্জ জেলাই নয় পাশ্ববর্তী বিভিন্ন জেলা থেকেও রোগীরা এসে থাকেন।
তবে এসব রোগীদের বেশির ভাগেই চিকিৎসা নিতে এসে হাসপাতালের অপরিচ্ছন্নতার ছোবলে পড়ে নানা ভাবে অসুস্থ হচ্ছে।
সরোজমীনে দেখা যায়, হাসপাতাল ক্যাম্পাসের ডায়রীয়া ওয়ার্ডের পিছনে চৌবাচ্চা আকৃতির পানির ট্যাংকিটি খোলা আকাশের নিচে ঢাকনা বিহীন অবস্থায় রয়েছে দীর্ঘ দিন ধরেই। শুধু তাই নয়, ট্যাংকটিকে ঘিরে হাসপাতালের ময়লা ফেলার অন্যতম স্থানে পরিণত হওয়ায় পঁচা-বাসি দূর্গন্ধ সহ আবর্জনার স্তুপে পরিণত হয়েছে। ময়লা ও মাটি পড়ে জন্ম নিয়েছে গুল্ম ও ঘাসের। ট্যাংকটিতে ঢাকনা না থাকায় পসু-পাখি সহ বিভিন্ন ভাবে ময়লা আবর্জনা পানিতে পড়ছে। টিউবয়েলহীন বিশুদ্ধ পানি সরবারহ না থাকায় রোগীরা বাধ্য হয়েই উক্ত ট্যাংকির ময়লা পানি সংগ্রহ করতে দেখা গেছে।
দক্ষিণ সাঙ্গর গ্রামের বাসিন্দা খাদিজা বেগম জানায়, আমার ছয় বছরের মেয়ের চিকিৎসার জন্য হাসপাতলেই থাকতে হচ্ছে। কিন্তু খাবারের পানির সংকট রয়েছে। টিউবয়েল নষ্ট হওয়ার কারণে সবাই গোসল করা সহ পান করার পানি সাপ্লাইয়ের পানি দিয়েই চালাতে হচ্ছে। যাদের টাকা আছে তারা খাবারের জন্য বাহির থেকে পানি সংগ্রহ করে থাকে। কিন্তু আমার মতো গরিবের জন্য ময়লা ও দুর্গন্ধ পানিই পান করতে হচ্ছে।
হাসপাতালের দায়িত্বরত কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ করা হলে তারা জানায় বিষয়টি নিয়ে বারবার উদ্ধর্তন পর্যায়ে অবগত করা হয়েছে। আমাদের কিছুই করার নেই। কে বা কারা সিকিউরিটির অভাবে টিউবয়েলের হাতল চুরি করে নিয়ে যাওয়াতে এগুলো ব্যবহার করা যাচ্ছে না।
পানির ট্যাংকি ময়লার স্তুপে পরিণত হবার পর তা পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে না কেন? এ বিষয়ে প্র¯œ করা হলে অনেকটাই এড়িয়ে যাবার চেষ্টা করে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এ কর্মকর্তা। তবে বিষয়টিকে পূর্নরায় জোরালো ভাবে মাসিক মিটিংয়ে তোলা হবে বলে আশ্বাস প্রদাণ করেন।

error: কপি হবে না!