ads

রবিবার , ৩১ আগস্ট ২০১৪ | ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

বাসাইলের বাথুলী-আইসড়া সড়ক যান চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে

রফিকুল ইসলাম আধার , সম্পাদক
আগস্ট ৩১, ২০১৪ ৭:১৬ অপরাহ্ণ

Basail Tangail pic. 1আবুল কাশেম, বাসাইল (টাঙ্গাইল) : টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার বাথুলী-আইসড়া (ভায়া ঝনঝনিয়া) সড়কটি দীর্ঘদিন যাবৎ সংশ্লিস্ট কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় সংস্কার ও প্রয়োজনীয় রক্ষনা-বেক্ষনের অভাবে জনসাধারন ও যানবাহন চলাচলের প্রায় সম্পূর্ণ অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এতে ভয়াবহ যন্ত্রনা আর চরম ভোগান্তির শিকার উপজেলার প্রায় ২০ টি গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ। পুরো ফুলকি ইউনিয়ন বাসির উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম এ সড়কটি। বিগত ১৯৯২-৯৩ অর্থ বছরে কাশিল ইউনিয়ন পরিষদ থেকে আইসড়া বাজার পর্যন্ত ১৩ কিলোমিটার এ সড়কটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও উদ্ভোধন করেন তৎকালিন জাতীয় সংসদের ডিপুটী স্পিকার হুমায়ুন খান পান্নী । তারপর থেকে বিভিন্ন সময় ভিন্ন ভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে ধাপেধাপে ২০০৯ সাল পর্যন্ত বাথুলী থেকে ফুলকী পর্যন্ত মাত্র সাড়ে ৬ কিলোমিটার সড়কের পাকাকরনের কাজ কোন রকমে দায়সারা ভাবে সম্পন্ন করা হয়। বিভিন্ন সময়ে সড়কটি নির্মান কালে গুণগত মান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বারবার। অত্যন্ত নি¤œ মানের নির্মান সামগ্রি ব্যবহার করায় অপেক্ষকৃত সরু এ সড়কটি বছর-ছয়মাস যেতে না যেতেই কার্পেটিং উঠে যায়। ফলে বহু খানা খন্দের সৃষ্টি হয়। এতে সামান্য বৃষ্টিতেই পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। তার উপর দিয়ে অতিরিক্ত বোঝাই ট্রাক, ট্রাফেটাক্টর, লড়িচলাচল করায় পুরো সড়কটিতেই অসংখ্য বড়বড় খাদের সৃষ্টি হয়ে সড়কটির বেহাল দশা হয়ে পড়েছে। এছারাও সড়কটি দু’ধার ভেঙ্গে গিয়ে আরও সরু হয়ে গেছে। ফলে দু’টি গাড়ি ক্রসিং করতে নিতে হয় জীবনের ঝুঁকি। দীর্ঘ দিন পূর্বে সড়কটির আংশিক পাকা করনের কাজ সম্পন্ন হলেও বর্তমানে তা একবারেই মানুষ ও যান চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। তারপরেও অনিচ্ছা সত্বেও নিতান্ত প্রয়োজনের তাগিদে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে আসছে এলাকার হতভাগ্য জনগণ। প্রতিদিন এ রাস্তায় বিকল হয়ে পড়ছে যান বাহন । আবার অনেক সময় বেবী, অটোরিক্সা,সিএনজি চালিত অটো-ট্যাম্পু উল্টে গিয়ে প্রতিনিয়ত ঘটছে কোন না কোন দূর্ঘটনা। কোনকোন সময় অসুস্থ রোগি তো দূরের কথা সুস্থ মানুষই অসুস্থ হয়ে পড়ে এ রাস্তার ঝাঁকুনীতে। সরেজমিন পরিদর্শন কালে যোগাযাগের ক্ষেত্রে সুবিধা বঞ্চিত এলাকাবাসী তুলে ধরেন তাদের ক্ষোভের কথা। তারা বলেন, বহুদিন ধরে এসড়কটির এমন বেহাল অবসাথা থাকা সত্বেও এনিয়ে কোন প্রকার মাথা ব্যাথা নেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের। অনেক আবেদন নিবেদনের পরেও কোন উদ্যোগ নেই সড়কটির পুণঃনির্মানের। তাদের অভিযোগ শুধু ভোটের সময় এলেই আমাদের কদর বাড়ে। নির্বাচনে ফায়দা লুটার জন্য অনেক প্রার্থীই রাস্তাঘাট নির্মানসহ এলাকার উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিলেও ভোটে জেতার পর কোন প্রকার ভ্রুক্ষেপ নেই তাদের। বস্তুত বাথুলী- আইসড়া সড়কটি অত্যন্ত জন গুরুত্বপূর্ণ হওয়া সত্বেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসিনতায় দীর্ঘদিন ধরে সড়কটি সংস্কারের অভাবে উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগের সুবিধা থেকে বঞ্চিত এলাকাবাসী। অপরদিকে সড়কটির বাকী অংশ ফুলকি বাজার থেকে আইসড়া পর্যন্ত রাস্তাটি প্রায় আড়াই যুগের হলেও এখনো কাঁচাই রয়েগেছে। বর্ষা মৌসুমের প্রায় ৬ মাস সড়কটির এ অংশে প্রায় পুরো রাস্তাই হাটু অবদি কাঁদা-পানি জমে মানুষ চলাচলের সম্পূর্ণ অযোগ্য হয়ে পড়ে। আবার শকনো মৌসুমে ধুলা-বালির তান্ডবে নাকাল এলাকার মানুষ। রাস্তাটির এমন বেহাল অবস্থায় উপজেলার ফুলকি ইউনিয়নের সুবিধা বঞ্চিত মানুষগুলোর জেলা ও উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ফলে সীমাহীন দূর্ভোগের শিকার এতদ্বঞ্চলের জনসাধারন। সড়কটির এ অংশ পাকা হলে সখিপুর উপজেলার উত্তারাঞ্চল, বাসাইলের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল এবং কালিহাতি উপজেলার দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার হাজার হাজার মানুষের টাঙ্গাইল জেলা সদর ও টাঙ্গাইলে ঐতিহ্যবাহী বানিঝ্যিক কেন্দ্র করটিয়ার সাথে যোগাযোগের পথ সুগম হবে। এমতাবস্থায় জনগুরুত্বপূর্ণ এ রাস্তাটি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পাকা করে এলাকার সুবিধা বঞ্চিত মানুষের দূর্ভোগ লাঘবে সচেতন ভুমিকা রাখবেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এমনটাই এলাকার মানুষের প্রাণের দাবি।

Shamol Bangla Ads

টাঙ্গাইল জেলা অটোরিক্সা অটো ট্যাম্পো শ্রমিক ইউনিয়নের কাশিল- বটতলা শাখার সভাপতিসহ শ্রমিকদের দাবী রাস্তাটির এমনই বেহাল দশা যে মাত্র ১৫ মিনিটের রাস্তা পারি দিতে ১ঘন্টা লেগে যায়।এ রাস্তা দিয়ে চলাচলের সময় প্রায় প্রতিদিনই আমাদের যানবাহন বিকল হয়ে পড়ছে। এসড়কটি দ্রুত সংস্কার না হলে এমন ভয়াবহ রাস্তা দিয়ে আমাদের আর গাড়ী চালানো সম্ভব হবেনা। ফলে এলাকার মানুষের চলাচলের ক্ষেত্রে চরম দূর্গতি নেমে আসবে । এ ছারাও আমাদের মতো দরিদ্র শ্রমিকদের রুটি রোজিও বন্ধ হয়ে যাবে। তারা সড়কটি যথাশীঘ্র সংস্কারের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সংশ্লিস্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোড় দাবি করেন।
এ ব্যাপারে কাশিল ইউপি চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন এবং ফুলকি ইউপি চেয়ারম্যান শামছুল আলম বিজু বলেন, মাননীয় সংসদ সদস্যের হস্তক্ষেপ ছারা সড়কটি সংস্কার সম্ভব নয়, আমরা আমাদের সাধ্যমত রাস্তার বড়বড় গর্ত গুলোতে ইটের আধলা-খোয়া ফেলে জলাবদ্ধতা ও গাড়ি উল্টে যাওয়ার ঝুঁকি থেকে কিছুটা রক্ষার চেষ্টা করছি। বাথুলী- আইসড়া সড়কটির ভয়াবহ বেহাল অবস্থার কথা স্বীকার করে বাসাইল উপজেলা চেয়ারম্যান কাজি শহিদুল ইলাম বলেন, সত্যই এ সড়কটির ভয়াবহ বেহাল অবস্থা। এ সড়কটি সংস্কারের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য খুব শিঘ্রই উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট কাগজ পত্র পাঠানো হবে।
এব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্য অনুপম শাহজাহান জয় বলেন, আইসড়া থেকে ফুলকি পর্যন্ত কাচা রাস্তাটি পাকাকরনের জন্য ইতোমধ্যে টেন্ডার হয়েছে, রাস্তাটি উদ্ভোধনের ব্যাপারে আমাকে একবার বলেছিল, কিন্তু পরবর্তীতে আর কেউ যোগাযোগ করে নাই। তবে আগামী শুকনো মওসুমে কাজটি শুরু হবে। অপর দিকে সড়কটির বিদ্ধস্ত পাকা অংশ কাশিল ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ফুলকি বাজার পর্যন্ত সংস্কারের জন্য ডিও লেটার দেয়া আছে, বরাদ্ধ আসলেই কাজ করা হবে।
এ প্রসঙ্গে উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুস সাত্তার বলেন, সড়কটি আমি দেখেছি ফুলকী ইউনিয়নের জনসাধারনের চলাচলের জন্য রাস্তাটি খুবই জনগুরুত্বপূর্ণ । রাস্তটি সংস্কারের ব্যপারে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রস্তাব পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। অনুমোদন হলেই সংস্কারের কাজ শুরু হবে ।

বাসাইল থানায় মাসিক ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত

গত কাল ৩১ আগষ্ট বাসাইল থানায় মাসিক ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন টাঙ্গাইলের সহকারি পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায়। উপজেলার আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক নানা দিক নিয়ে এ মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাসাইল থানার অফিসার ইনচার্জ দেলোয়ার আহমেদ। বাসাইল থানা মাঠে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বাসাইল পৌর মেয়র মজিবর রহমান, বাসাইল সদর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ মিয়া, কাঞ্চনপুর ইউপি চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ খান,উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আব্দুল মান্নান, বাসাইল প্রেস ক্লাব সভাপতি এম শহিদুল ইসলাম,বাসাইল উপজেলা শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আবুল হাশেম ,বাসাইল পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও কাউন্সিলর জহিরুল ইসলাম পিন্টু,নারী নেত্রী শিপ্তা অধিকারী ও সাহিদা আক্তার মিকু।

সর্বশেষ - ব্রেকিং নিউজ

error: কপি হবে না!