ads

শুক্রবার , ২২ আগস্ট ২০১৪ | ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

বঙ্গোপসাগরে জলদস্যু আতঙ্ক : অপহরনের ৫ দিনেও উদ্ধার হয়নি জেলেরা

রফিকুল ইসলাম আধার , সম্পাদক
আগস্ট ২২, ২০১৪ ৫:১৪ অপরাহ্ণ

Kalapara  B Pic 22-08-2014এস কে রঞ্জন, কলাপাড়া (পটুয়াখালী) : কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে সুন্দরবনের জলদস্যু রাজু বাহিনী ও জসীম বাহিনী আবারও সক্রিয় হয়ে উঠেছে। জেলেদের অমানবিক নির্যাতন আর অপহরন বানিজ্যের অভয়ারন্যে পরিনত হয়েছে বঙ্গোপসাগর। অপহরনের ৫ দিন পরেও কেউ উদ্ধার হয়নি। জলদস্যুদের আতঙ্কে শত শত ট্রলার মৎস্য বন্দর মহিপুর-আলীপুরের ঘাটে আশ্রয় নিয়েছে।

Shamol Bangla Ads

মৎস্য বন্দর আলীপুরে ফিরে আসা জেলেরা জানায়, অপহরনের ৫ দিন পর ২২ আগষ্ট শুক্রবার পর্যন্ত জলদস্যুদের কবল থেকে কোন অপহৃত জেলে ফিরে আসার খবর পাওয়া যায়নি। সুন্দরবনের জলদস্যু রাজু বাহিনী ও জসীম বাহিনীর হাতে শতাধিক জেলে বন্ধী রয়েছে। মুক্তিপন আদায়ের জন্য প্রতিদিন বন্ধী জেলেদের নির্মম নির্যাতনের শিকার হতে হয় বলে ভুক্তভোগী জেলোরা জানায়। রাজু বাহিনীর কার্ড নিয়ে সাগরে মাছ ধরতে আসবি বলে জলদস্যুরা হুমকী দেয়। তাদের হাতে দেয়া চিরকুটে রাজু বাহিনীর নম্বর ০১৭৫৫৫২৯৯৫৪ থেকে ফোন করে দেড় লক্ষ থেকে সর্বনি¤œ পঞ্চাশ হাজার টাকা দাবী করছে। একই ভাবে জসীম বাহিনী প্রতিদিন ভিন্ন ভিন্ন নম্বর থেকে কল করে সংশ্লিষ্ট ট্রলার মালিক ও জেলে পরিবারের সদস্যদের কাছে মোটা অংকের মুক্তি পন দাবি করছে। এছাড়া আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহীনি কিংবা গনমাধ্যমে ফোনের কথা প্রকাশ করলে অপহরনকৃতদের মেরে ফেলা হবে বলে হুমকী দেয় জলদস্যুরা। তাই জেলেদের স্বজনরা কেউ ভয়ে মুখ খুলছেননা।
উল্লেখ্য, ১৮ আগষ্ট সোমবার সকাল ৯টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বঙ্গোপসাগরে জলদস্যুরা তান্ডব চালায়। ১৯ আগষ্ট মঙ্গলবার সকালে মৎস্য বন্দর মহিপুর-আলীপুরে জলদস্যুদের কবলে পড়া একাধীক ট্রলার পৌঁছয়। ফিরে আসা ট্রলার এফ বি হক ট্রলারের মাঝি আলামিন গাজী, এফ বি বাবা মায়ের দোয়া নাসির মাঝি, এফ বি বাবা মায়ের দোয়া-২’র মাঝি নাসির (৩০), এফ বি অবিনাসের মাঝি শহিদ (৫৫), এফ বি লিটনের মাঝি নান্নু (৩৫)সহ প্রায় শাতাধিক জেলেকে অপহরন করেছে জল দস্যু রাজু বাহিনী। এদের কেউ এখন পর্যন্ত উদ্ধার হয়নি। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক মাঝি জানান, ২০ আগষ্ট বুধবার সকাল ৮টার দিকে ঢালচর, সুন্দরবন ও চালনার বয়া এলাকার দিকে জলদস্যুরা ওৎ পেতে থাকে এবং সেখান থেকেই ট্রলার আটক করে মাছ, জ্বালানীতেল, জাল, মোবাইল ফোনসহ দু’এক জন জেলেকে অপহরন করে নিয়ে যায়। জলদস্যুদের কথামতো কাজ না করলে তাদের বেধম মারধর করা হয়। তাদের কাছ থেকে মোবাইল নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় ফোন করে মুক্তিপন দাবী করে।
অপহৃত জেলে পরিবারগুলোতে চলছে শোকের মাতম। উপকূলীয় এলাকার জেলে ও ট্রলার মালিকরা এখন শঙ্কিত রয়েছেন। রাজু বাহিনী ও জসীম বাহিনীর কাছ থেকে বন্ধী জেলেদের রক্ষা করতে অপহৃত জেলেদের স্বজন ও ট্রলার মালিকরা সরকারের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

সর্বশেষ - ব্রেকিং নিউজ

error: কপি হবে না!