ads

রবিবার , ২৭ জুলাই ২০১৪ | ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

বালিয়াডাঙ্গী থানা পুলিশের অভিযানে ফেন্সিডিলসহ মাদকব্যবসায়ী গ্রেফতার

রফিকুল ইসলাম আধার , সম্পাদক
জুলাই ২৭, ২০১৪ ৯:০২ অপরাহ্ণ
বালিয়াডাঙ্গী থানা পুলিশের অভিযানে ফেন্সিডিলসহ মাদকব্যবসায়ী গ্রেফতার

বালিয়াডাঙ্গী (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আজ রবিবার রাত পৌনে ২টায় উপজেলার উত্তর পাড়িয়া আঠিয়াবাড়ী গ্রামের মাদক ব্যবসায়ীর বাড়ীতে অভিযান চালিয়ে ভারতীয় ১০২ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার কালে মাদক ব্যবসায়ী উপেন্দ্র সিং অরফে জানজালুকে (৩৫) কে গ্রেফতার করে অপর ব্যবসায়ী ফরিদ হোসেন (৩৮) পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।
থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বালিয়াডাঙ্গী থানার এসআই আব্দুর রহিম এবং এএসআই আজিজুল ইসলাম ও তাদের সঙ্গীয় ফোর্সসহ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আজ রবিবার রাত পৌনে ২টায় উপজেলার পাড়িয়া ইউনিয়নের উত্তর পাড়িয়া আঠিয়াবাড়ী গ্রামের ছবি লাল সিংহের ছেলে মাদক ব্যবসায়ী উপেন্দ্র সিং অরফে জানজালুর বাড়ীতে অভিযান চালিয়ে ভারতীয় ১০২ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধারের পর উপেন্দ্র সিংহকে গ্রেফতার করলেও সহযোগী ব্যবসায়ী ফরিদ হোসেন (৩৮) দূত পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। এব্যাপারে বালিয়ডাঙ্গী থানায় ১৯৭৪ সালের ২৫/বি (বি) ধারায় গ্রেফতারকৃত উপেন্দ্র সিংহ ও পলাতক আসামী একই গ্রামের আলিমুদ্দিন অরফে কুলুমিঞার ছেলে কুক্ষাত মাদক ব্যবসায়ী ফরিদ হোসেনসহ দুইজনের বিরুদ্ধে এসআই আব্দুর রহিম বাদী হয়ে আজ স্থানীয় থানায় মামলা দায়ের করে।

Shamol Bangla Ads

 

বালিয়াডাঙ্গীর নবঘোষিত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২৪২ শিক্ষকের বকেয়া বিলে স্বাক্ষর করতে উপজেলা শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে উৎকোচ আদায়ের অভিযোগ

 

Shamol Bangla Ads

ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গীতে নব-ঘোষিত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২৪২ শিক্ষকের বকেয়া বিলে স্বাক্ষর করতে উপজেলা শিক্ষা অফিসার রবিউল ইসলামের বিরুদ্ধে উৎকোচ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে।
জানা গেছে, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার নব-ঘোষিত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২৪২ শিক্ষকের ২০১৩ সালের জানুয়ারী থেকে ২০১৪ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত ১৫ মাসের বকেয়া বিলে গত জুন মাসে স্বাক্ষর করতে উপজেলা শিক্ষা অফিসার রবিউল ইসলাম প্রত্যেকের নিকট থেকে এক হাজার থেকে পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত উৎকোচ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ভূক্তভোগী শিক্ষক/শিক্ষিকা জানিয়েছেন, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রবিউল ইসলামের প্রশাসনিক হুমকির কারণে আমরা প্রত্যেকেই এক হাজার থেকে পাঁচ হাজার টাকা উৎকোচ দিতে বাধ্য হয়। এতে তিনি নব-ঘোষিত ২৪২ জন শিক্ষকের নিকট থেকে প্রায় তিন লক্ষ টাকা উৎকোচ আদায় করে। এব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা অফিসার রবিউল ইসলামের নিকট জানতে চাওয়া হলে তিনি এই প্রতিবেদককে জানান, স্বেচ্ছায় শিক্ষকরা আমাকে এক, দুই হাজার টাকা দিয়েছে।

সর্বশেষ - ব্রেকিং নিউজ

error: কপি হবে না!