ads

রবিবার , ১৩ জুলাই ২০১৪ | ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

পেকুয়ায় গ্রামবাসী-টমটম শ্রমিকদের স্বউদ্যোগে সড়কের সংস্কার কাজ

রফিকুল ইসলাম আধার , সম্পাদক
জুলাই ১৩, ২০১৪ ৪:৫৬ অপরাহ্ণ
পেকুয়ায় গ্রামবাসী-টমটম শ্রমিকদের স্বউদ্যোগে সড়কের সংস্কার কাজ

পেকুয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি : পেকুয়ায় গ্রামবাসী ও টমটম পরিবহন শ্রমিকদের স্ব-উদ্দ্যেগে একটি জনগুরুত্বপুর্ন গ্রামীন সড়কের কাজ সংস্কার হচ্ছে । এ সড়কটি দীর্ঘ এক যুগ ধরে যানবাহন চলাচলের অযোগ্য হয়ে যাওয়ায় গ্রামীন জনপদের বিপুল জনগোষ্টির যোগাযোগ ব্যবস্থা থমকে যায়। এরই ফলে স্থিমিত হয়ে যায় গ্রামীন জনপদের অন্তত ৫গ্রামের ১৫হাজার মানুষের চলাচল।
এদিকে পেকুয়া সদর ইউনিয়নের গোঁয়াখালী-ছিরাদিয়া সড়কের মইয়্যাদিয়া ষ্টেশন থেকে গোঁয়খালী ডুলা ফকির মাজার পর্যান্ত প্রায় দেড় কি.মিটার সড়কের ক্ষতিগ্রস্ত অংশ পুন সংস্কারের জন্য স্থানীয় উদ্দ্যেগে বাস্তবায়িত হচ্ছে এর সংস্কার কাজ। গত তিন দিন ধরে ওই সড়কের সংস্কার কাজ শুরু করা হয়েছে। সংস্কারের জন্য স্থানীয় টমটম পরিবহন এর শ্রমিকরা অর্থ সংগ্রহ করে এ কাজে অর্থ ব্যয় করছে তারা।
এছাড়া গ্রামবাসীরা এ উদ্দ্যেগকে স্বাগত জানিয়ে নিজেরাই সড়ক সংস্কারের জন্য স্বেচ্ছাশ্রমে নিয়োজিত করেছেন। গতকাল ১২জুলাই শনিবার সরেজমিন গোঁয়াখালী-ছিরাদিয়া সড়কের সংস্কার কাজ পরিদর্শনে দেখা গেছে পুনঃসংস্কারের জন্য ১৫/২০জন লোক সড়কে কাজ করছে। তারা সকাল থেকে দুপুর ২টা পর্যান্ত সেখানে ভাঙ্গা অংশে মেরামত কাজ এগিয়ে নিচ্ছেন। ক্ষতিগ্রস্ত অংশে পুর্বের ব্রীক সলিং ওই সড়কটিতে ইটের খোয়া ও বালি আবার কোথাও মাটি দিয়ে খানা খন্দকের এ সড়কটিকে চলাচল উপযোগি করার প্রানপন চেষ্টা চালানো হচ্ছে।
জানতে চাইলে শ্রমিকরা জানান দিনে প্রতিজনের বেতন ৪শ টাকা মজুরী হিসেবে তারা পারিশ্রমিক নিচ্ছেন। আর ওই টাকা সরবরাহ করছেন টমটম পরিবহন শ্রমিকরা। এছাড়া টমটম শ্রমিকরা শ্রমিকদের মজুরির পাশাপাশি সংস্কার কাজে বালি,ইট ও ইটের খোয়াও অর্থ দিয়ে ক্রয়করে রাস্তায় বিছানো হচ্ছে। অপরদিকে গ্রামবাসীরাও দীর্ঘদিনের অবহেলিত এ সড়কটি মেরামত করতে স্বেচ্ছাশ্রম বিলিয়ে দিচ্ছেন।
জানা গেছে সংস্কার কাজে টমটম শ্রমিকরা তুলাতুলি করে লক্ষাধিক টাকারও বেশি ব্যয় করার এ উদ্দ্যেগে শামিল হয়েছে। টমটম মালিক জাহাঙ্গীর আলম,নুর হোসেন বান্ডু,জাকের হোসেন,হাসেম,জামাল উদ্দিন,আবুল কালাম,আবু বক্কর, পারভেজ, ইব্রাহিম, মনু ও গ্রামবাসীদের মধ্যে আ’লীগ নেতা আবুল কালাম, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারন সম্পাদক নেজাম উদ্দিন, বিএনপি নেতা ফয়েজ উদ্দিন জানান দীর্ঘদিন অবহেলিত থাকায় আমরা যাতায়তে চরম দুর্ভোগের মধ্যে ছিলাম। তাই আর কারো দিকে চেয়ে না থেকে নিজেরাই অর্থ ও শ্রম দিয়ে করছি কাজ।
জানা গেছে গোঁয়াখালী-ছিরাদিয়া সড়কটি গ্রামীন জনপদের যাতায়তের অন্যতম মাধ্যম। এ সড়ক দিয়ে সদর ইউনিয়নের পশ্চিম ও দক্ষিন অংশের বিপুল জনগোষ্টির চলাচলের অন্যতম মাধ্যম। এটি অকেজো থাকায় স্থানীয় আর্তসামাজিক অবস্থা অনেকটা থেমে যায়। এ সড়কটি পুর্বে যানবাহনের জন্য সচল ছিল। বিগত কয়েক বছরের ব্যবধানে একদম নাজুক অবস্থা তৈরী হয়। যার ফলে বিগত ৪/৫বছর ধরে আবুর দোকান থেকে ছিরাদিয়া বেঁিড়বাধ পর্যান্ত যানবাহন চলাচল একদম বন্ধ হয়ে যায়।
জানা গেছে সড়কের পেকুয়া বাজার ভোলাইয়া ঘোনা অংশ থেকে আবুর দোকানের একটু উত্তর দিক পর্যান্ত গত অর্থ ১২-১৩বছরে প্রায় দেড় কিলোমিটার সড়ক সংস্কার কাজ বাস্তবায়ন হয়েছে।

পেকুয়ার চেয়ারম্যান মরহুম মোকতার আহম্মদ চৌধুরীর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে বক্তারা
সাদা মনের ব্যক্তি হিসেবে মোখতার আহম্মদ চৌং কর্মময় জীবনে ন্যায়ের পক্ষে আজীবন সংগ্রাম করেছেন

Shamol Bangla Ads

পেকুয়া জমিদার বাড়ীর প্রখ্যাত জমিদার ও পেকুয়া সদর ইউনিয়ন পরিষদের তিন বারের সাবেক সফল চেয়ারম্যান মরহুম আলহাজ্ব মোখতার আহমদ চৌধুরীর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী ও শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়। ১২ জুলাই বিকাল ৪টায় পেকুয়া জমিদার বাড়ী জামে মসজিদ মাঠে মসজিদের পেশ ইমাম ক্বারী নুরী সোলতানীর সভাপতিত্বে ও ডা: আলী আকবরের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত শোকসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পেকুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাফায়েত আজিজ রাজু। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাও.নুরুজ্জামান মঞ্জু, কক্সবাজার জেলা আ’লীগের মুক্তিযুদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক ও পেকুয়া সদর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান এডভোকেট কামাল হোসেন, পেকুয়া জি এম সির প্রধান শিক্ষক এনামুল হক চৌধূরী, পেকুয়া আদর্শ মহিলা মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাও.জালাল আহম্মদ, জামায়াত নেতা ইমতিয়াজ, পেকুয়া শ্রমিকদলের সভাপতি মজিবুল হক চৌং। এতে মরহুমের স্মৃতি নিয়ে বক্তব্য রাখেন মরহুমের বড় ছেলে এডভোকেট আশফাক চৌং, ডা: এন এম আবুল বশর, লেষ্টার পরিচালক মঞ্জুর,ছাত্রনেতা এফ এম সুমন। এসময় উপস্থিত ছিলেন মরহুম মোখতার আহম্মদ চৌং স্মৃতি সংসদের সচিব দেলোয়ারসহ অন্যান্যরা। এসময় বক্তারা বলেছেন মোখতার আহম্মদ চৌং একজন ন্যায় পরায়ন ও সুনামধন্য সৎ ও দক্ষ কর্মঠ ব্যক্তি ছিলেন। পেকুয়া সদর ইউপির মানুষ মরহুম এ সুনামধন্য ব্যক্তিকে তিন বার ইউপির চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছিলেন। তিনি মানুষের একজন প্রিয় ব্যক্তি।

error: কপি হবে না!