ads

রবিবার , ১৫ জুন ২০১৪ | ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

ভোলার চরফ্যাশনে হরদমে চলছে মদ-গাঁজা বিকিকিনি : নিরব প্রশাসন

রফিকুল ইসলাম আধার , সম্পাদক
জুন ১৫, ২০১৪ ১২:৪২ অপরাহ্ণ
ভোলার চরফ্যাশনে হরদমে চলছে মদ-গাঁজা বিকিকিনি : নিরব প্রশাসন

মশিউর রহমান পিংকু, ভোলা : ভোলার চরফ্যাশনের ৫২টি স্পটে হরদমে চলছে মদ, গাঁজাসহ বিভিন্ন নিশাজাত দ্রব্য বিকিকিনি। এ সংবাদ থানা পুলিশ জানলেও তারা তেমন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না। ফলে চরফ্যাশনে মদ ও গাঁজা সেবীদের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। এতে বাড়ছে অপরাধ প্রবনতা। অবনতি হচ্ছে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির।

Shamol Bangla Ads

এলাকা সূত্রে জানা যায়, একটি সিন্ডিকেট সরকার দলীয় নেতা-কর্মীদের সহায়তায় বেনাপোল সীমান্ত থেকে এ মদ-গাঁজার আমদানি করেন। আমদানিকৃত মদ-গাঁজা বেনাপোল থেকে বরিশাল-ভোলা হয়ে চরফ্যাশনে পৌঁছে।

রপর চরফ্যাশনের পুরনো ডাক বাংলো, নতুন ডাক বাংলো, পৌরসভার পিছনের বস্তি, চরফ্যাশন থানার পূর্ব পাশ্বের্র বস্তি, স্টেডিয়াম মাঠ, মুখার বান্দা স্কুল মাঠ, দক্ষিণ আইচা বাস স্ট্যান্ড, চরফ্যাশন ডাইরেক্ট ও লোকাল বাস স্ট্যান্ড, শশীভূষণ বালির মাঠ, আঞ্জুর হাট স্কুল মাঠ, বকশীর বেড়িবাঁধ, বেতুয়া লঞ্চ ঘাট, চেয়ারম্যান বাজার বেড়িবাঁধ, জনতা বাজার কৃষি ব্যাংক চত্বর, কচ্ছপিয়া মৎস্য ঘাট, কুকরী-মুকরি স্কুল মাঠ এবং দুলার হাট সিনেমা হল সংলগ্ন মোড়সহ ৫২টি স্পটে এগুলো সরবরাহ করা হয়।
চরফ্যাশনের পুরনো ডাক বাংলো এলাকার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চা ব্যবসায়ী জানান, প্রতিদিন এখানে মদ-গাঁজা বেচা-বিক্রি হয়। ছোট ছোট ছেলেরা এগুলো কেনে। তারা বন্ধু-বান্ধব নিয়ে এসে নিজেরা খায় আবার সাথেও নিয়ে যায়।
পুলিশ দেখে না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তাতে কি হয়েছে। নেতাদের লোকেরাই এগুলো করে। তাই পুলিশ দেখলেও কিছু কয় না।
খুব সহজে মদ-গাঁজা হাতের কাছে পাওয়ায় দিনদিন বাড়ছে গাজাসেবীদের সংখ্যা। ক্রমান্বয়ে স্কুল ও কলেজগামী ছাত্ররা এসবে আসক্ত হচ্ছেন। ফলে বাড়ছে অপরাধ প্রবনতা। এতে দিন-দুপুরেও ঘটছে চুরি-ছিনতাইয়ের ঘটনা।
চরফ্যাশন ব্রিজের উপর দাঁড়িয়ে এক রিকশা চালকের সাথে কথা বললে তিনি এ প্রতিবেদককে জানান, নেতারা এলাকায় মদ-গাঁজা ঢোকার রাস্তা করে দিচ্ছে। আর বাচ্চা বাচ্চা পোলা-পানে এগুলো খেয়ে চুরি-চামারি করছে।
এখন এক প্রকারের প্রকাশ্য দিবালোকেই এসব স্পট গুলোতে মদ-গাঁজার বিকিকিনি চলছে। প্রশাসনের কাছে মৌখিক অভিযোগ করেও কোনো লাভ হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন বহু জনে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে চরফ্যাশন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা (ওসি) আবুল বাশার জানান, বিষয়টি শুনেছি। তবে মদ-গাঁজার বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।
এ বিষয়ে আলাপ কালে এক স্কুল শিক্ষক বলেন, এখানেতো এসব হয় অনেক আগ থেকেই। তবে দিন দিন পরিমানটা আরো বড়ছে। দ্রুত এগুলোর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা দরকার।

error: কপি হবে না!