ads

শুক্রবার , ৬ জুন ২০১৪ | ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

আগৈলঝাড়ায় পোনা মাছ চাষ করে ৫ শতাধিক পরিবার আজ স্বাবলম্বী

শ্যামলবাংলা ডেস্ক
জুন ৬, ২০১৪ ৭:৫১ অপরাহ্ণ

Photo- Agailjhara- 6-6-14আগৈলঝাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি : বরিশালের আগৈলঝাড়ায় ডিম থেকে পোনা মাছ উৎপাদন ও বিক্রি করে ৫ শতাধিক পরিবার স্বাবলম্বী হয়েছে। এসব পোনা বিক্রির হাট বসে উপজেলার গৈলা ইউনিয়নের গুপ্তের হাটে। প্রতিদিন মাছের পোনা কিনতে দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে ক্রেতারা এই হাটে আসেন। ভোর হতে না হতেই প্রতিদিন জমে উঠে পোনার বাজার।
যশোরসহ বিভিন্ন জেলা থেকে উন্নত জাতের মাছের ডিম সংগ্রহ করে উপজেলার মৎস্য ব্যবসায়ীরা পুকুরে চাষাবাদ করে ডিম থেকে রেনু ফোটায়। এসব রেনু ২ থেকে ৫ ইঞ্চি হলে তারা তা বাজারে বিক্রি করছে।
এসব মাছের মধ্যে রয়েছে রুই, কাতলা, মৃগেল, মনোসেক্স তেলাপিয়া, নাইলোনটিকা, কারফু, পাঙ্গাস, চায়না পুঁটি, টাটকিনাসহ প্রায় ১৫ থেকে ২০ প্রজাতির বিভিন্ন জাতের পোনা এ বাজারে বিক্রি হয়। প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে বেড়ে যায় বিভিন্ন প্রজাতির মাছের পোনার চাহিদা।
উপজেলার বিভিন্ন ফার্মের মালিক ও ক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, এ বাজারটিতে প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ বছর যাবৎ পোনা বিক্রি হয়ে আসছে। বর্তমানে ৫-৬ বছর যাবৎ এ বাজারে পোনা বিক্রির সুনাম দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় ছড়িয়ে পরায় প্রতিদিন ক্রেতা-বিক্রেতাদের ভিড় বাড়ছে।
মৎস্য ফার্ম মালিক সোবাহান খান সাংবাদিকদের জানান, শত শত মৎস্য চাষী বিভিন্ন নালা, ডোবা, পুকুরে পোনার উৎপাদন করে স্বাবলম্বী হচ্ছে। গুপ্তের হাটে দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে পোনা কিনতে ট্রাক, মিনিট্রাক, নসিমন ও ভ্যানযোগে মাছের পোনা ক্রয় করে বিভিন্ন এলাকার হাট-বাজার ও গ্রামাঞ্চলে বিক্রি করছে। গুপ্তের হাট থেকে স্বল্পমূল্যে মাছের পোনা কিনে অন্য বাজারে নিয়ে আবার অধিক মূল্যে বিক্রি করে লাভবান হচ্ছে অনেক বিক্রেতা। স্বল্প পূঁজিতে অধিক লাভবান হওয়ায় মানুষ অন্য পেশা ছেড়ে বর্তমানে এই পেশায় ঝুঁকে পরছে।
বাজার কমিটির সদস্য জালাল ঘরামী বলেন, ২৬ বছর যাবৎ তিনি এ বাজারে মাছের পোনা বিক্রি করে আসছেন। বর্তমানে মাছের খাবারের মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় গতবছরের চেয়ে এবছর মাছের পোনা দ্বিগুণ মূল্যে বিক্রি করতে হচ্ছে। মাছ ক্রেতা মহিউদ্দিন খলিফা জানান, এ অঞ্চলের মাছের পোনা চাহিদা মেটানোর পর দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সরবরাহ করা হচ্ছে। অপর এক ক্রেতা মনির সরদার জানায়, প্রায় শতাধিক ফার্ম মালিকেরা মাছের পোনা নিয়ে এ বাজারে প্রতিনিয়ত বিক্রির জন্য নিয়ে আসে। ফার্ম মালিকরা জানান এ বাজারটি এখন পোনা মাছ বিক্রির একটি গুরুত্বপূর্ণ বাজার হিসেবে সারাদেশে পরিচিতি লাভ করেছে।
ফরিদপুর, মাদারীপুর, শরীয়তপুর, ভাঙ্গা, টেকেরহাট, গোপালগঞ্জসহ দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকা থেকে এ বাজারে প্রতিদিন ট্রাক, মিনিট্রাক, ভ্যানসহ বিভিন্ন যানবাহন নিয়ে পোনা কিনতে আসেন। বর্তমানে প্রতিদিন সকালে গড়ে ১৫ থেকে ২০ লক্ষ টাকার পোনা বিক্রি হয় বলে ব্যবসায়ী সূত্রে জানা গেছে।
এ বাজারে পোনা মাছ বিক্রি করে আগৈলঝাড়া উপজেলার ৫ শতাধিক পরিবার আজ স্বাবলম্বী হয়েছে। তবে তারা আক্ষেপ করে জানিয়েছেন, এত টাকার কেনাবেচা হলেও বাজার উন্নয়নের জন্য সরকারী ভাবে কোন বরাদ্দ পাওয়া যাচ্ছেনা।

error: কপি হবে না!