ads

রবিবার , ১৮ মে ২০১৪ | ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

কুমিল্লায় র‌্যাব-১১ এর সাবেক সিও সহ ৫ র‌্যাব কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অপহরণ মামলা

শ্যামলবাংলা ডেস্ক
মে ১৮, ২০১৪ ৬:৫২ অপরাহ্ণ

C-1তাপস চন্দ্র সরকার, কুমিল্লা :  কুমিল­ার লাকসাম বাজার ব্যবসায়ি সমিতির সভাপতি, সাবেক সংসদ সদস্য ও লাকসাম উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি আলহাজ্ব সাইফুল ইসলাম হিরু (ভিকটিম), (২) লাকসাম বাজার দৌলতগঞ্জ কাপড় ব্যবসায়ি সমিতির সভাপতি ও লাকসাম পৌর বিএনপি’র সভাপতি হুমায়ুন কবির পারভেজ (ভিকটিম) কে অপহরণ করে গুম করার অভিযোগে র‌্যাব-১১ এর সাবেক সিও লেঃ কর্ণেল (চাকুরীচ্যুত) তারেক সাঈদ মোহাম্মদ সহ ৫জনকে আসামী করে কুমিল­ার লাকসাম উপজেলার ফতেপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে ২নং ভিকটিম হুমায়ুন কবির এর পিতা মোঃ রংগু মিয়া (৭৮) বাদী হয়ে কুমিল­া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ৬নং আমলী আদালতে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন হুমায়ুন কবির পারভেজ এর পিতা লাকসাম উপজেলার ফতেপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রহমান এর ছেলে মোঃ রংগু মিয়া (৭৮)। আজ ১৮ মে রোববার দীর্ঘক্ষণ এডমিট শুনানী অন্তে লাকসাম অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) কে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলে নিদের্শ প্রদান করেন- কুমিল­ার সিনিয়র জুডিশিয়ালম্যাজিষ্ট্রেট সাবরিনা নার্গিস।

Shamol Bangla Ads

C-2মামলার অপর আসামীরা হলেন- কুমিল­া শাকতলা’র র‌্যাব-১১ এর ক্রাইম প্রিভেনশন কোম্পানী-২ এর কোম্পানী কমান্ডার মেজর সাহেদ রাজী, ডিএডি শাহ জাহান আলী, এস.আই কাজী সুলতান আহমেদ ও এস. আই অসিত কুমার রায়।
বাদী পক্ষে এডমিট হিয়ারিং করেন- জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাড. নাজমুস সাদা’ত, সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. শরীফুল ইসলাম, অ্যাড. মুহাম্মদ বদিউল আলম সুজন, অ্যাড. মোঃ মাহাবুবুল হক খন্দকার, অ্যাড. দেওয়ান সামছুল হক, অ্যাড. মোঃ মোস্তফা জামান (জসিম), অ্যাড. মমিনুল ইসলাম মজুমদার (মুকুল), মুরাদনগর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি অ্যাড. নাসির উদ্দিন আহমেদ, অ্যাড. মোঃ আজহারুল ইসলাম (লিটন) সহ অর্ধশতাধিক আইনজীবী।
মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সনের ২৭ নভেম্বর  বুধবার রাত ৯টার সময় র‌্যাব পরিচয়ে কতেক র‌্যাব সদস্য লাকসাম উপজেলার দৌলতগঞ্জ বাজার বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার মিলে প্রবেশ করে ৪ হতে ১২নং স্বাক্ষীকে আটক করে র‌্যাবের গাড়ীতে উঠাইয়া অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় এবং মিলের ক্যাশে থাকা অনুমান ১৪ লাখ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় ওই র‌্যাব এর সাথে র‌্যাব-১১ লিখিত একটি পিক আপ ও একটি মাইক্রোবাস এবং একটি হাইএস মাইক্রোবাস ছিল। পরবর্তীতে সাবেক সংসদ সদস্য ও লাকসাম উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি আলহাজ্ব সাইফুল ইসলাম হিরু, লাকসাম পৌর বিএনপি’র সভাপতি হুমায়ুন কবির পারভেজ কে র‌্যাব সদস্যরা খবর দেয়। এ খবর পেয়ে সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইফুল ইসলাম হিরু ও একই উপজেলার গাজী মুড়া’র আবুল কামাল এর ছেলে জসিম উদ্দিন লাকসাম ফেয়ার হেলথ হাসপাতালের এ্যাম্বুলেন্স যোগে লাকসাম থেকে কুমিল­ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়ে বাদীর ছেলে লাকসাম পৌর বিএনপি’র সভাপতি হুমায়ুন কবির পারভেজ কে উঠিয়ে নিয়ে লাকসাম বাইপাস সড়ক দিয়ে কুমিল­ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। পথিমধ্যে লাকসাম-কুমিল­া সড়কের মধ্যে ৪ হতে ১২নং স্বাক্ষীর বহনকারী র‌্যাব-১১ এর পিক আপ ভ্যানটি রাস্তায় আড়া-আড়ি করে পেছনের এম্বুলেন্স আটক করে। অতঃপর র‌্যাব সদস্যগণ এম্বুলেন্সের ড্রাইভার সাদেককে লাঠি দিয়ে বেদম প্রহার করে ১নং স্বাক্ষী জসিম উদ্দিন, ১নং ভিকটিম সাবেক সংসদ সদস্য সাইফুল ইসলাম হিরু, ২নং ভিকটিম লাকসাম পৌর বিএনপি’র সভাপতি হুমায়ুন কবির পারভেজ নামিয়ে র‌্যাবের জিপে নিয়ে যায়। রাত অনুমান ১২টার দিকে ১নং স্বাক্ষী জসিম উদ্দিন সহ ৪-১২নং স্বাক্ষীগণকে লাকসাম থানায় হস্তান্তর করে কিন্তু সাবেক সংসদ সদস্য সাইফুল ইসলাম হিরু, লাকসাম পৌর বিএনপি’র সভাপতি হুমায়ুন কবির পারভেজ কে অদ্যাবধি কোথাও হস্তান্তর করেনি। উলে­খ্য যে, ঘটনা উলে­খ পূর্বক ভিকটিম হুমায়ুন কবির পারভেজ এর ভাই গোলাম ফারুক লাকসাম থানায় মামলা দায়ের করতে চাইলে লাকসাম থানার তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক আবুল খায়ের মামলা গ্রহণ করেনি। পরবর্তীতে র‌্যাবের নাম বাদ দিয়ে গত বছর ১ ডিসেম্বর শুধুমাত্র একটি নিখোঁজ ডায়েরী করে। যাহার নং-২৩। ভিকটিমদ্বয়ের সন্ধানের জন্য প্রধানমন্ত্রী বরাবরে বেশ কয়েকবার স্মারকলিপি প্রদান করেন বলে জানিয়েছেন তার পরিবারবর্গ।
এ ব্যাপারে মামলার বাদী মোঃ রংগু মিয়া সাংবাদিকদের নানাহ প্রশ্নের জবাবে বলেন, আমার ছেলে হুমায়ুন কবির পারভেজ ও মামাতো ভাই সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইফুল ইসলাম হিরু’র অপহরণ এবং গুমের পেছনে ওই র‌্যাব সদস্য ছাড়াও কতিপয় বে-সামরিক এবং রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের যোগসাজসে অন্যায় ভাবে লাভবান জন্য ও হত্যার  উদ্দেশ্যে অপহরণ করিয়া নিয়ে যায়। আমি আমার ছেলে ও মামাতো ভাইকে সুস্থ এবং জীবিত ফেরত দেয়া সহ এ ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শান্তির দাবী জানান।
এদিকে, সাবেক সংসদ সদস্য ও লাকসাম উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি আলহাজ্ব সাইফুল ইসলাম হিরু’র মেয়ে মাশরুফা ইসলাম- তাঁর পিতাসহ ভিকটিমদ্বয়কে শীঘ্রই জীবিত ফেরত  দেয়া সহ এ ঘটনার সহিত জড়িতদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির জোর দাবী জানান।

error: কপি হবে না!