ads

বুধবার , ২৯ জানুয়ারি ২০১৪ | ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

রাণীনগর উপজেলা নির্বাচনে আ’লীগের একক প্রার্থী : বিএনপির ৪

রফিকুল ইসলাম আধার , সম্পাদক
জানুয়ারি ২৯, ২০১৪ ২:১৪ অপরাহ্ণ

Naogaon Raninagar Upozila nirbachone prarthi 28.1.14নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁর রাণীনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সরকারী দল আ’লীগ একক প্রার্থী দিয়েছে। অন্যদিকে বিএনপি’র চার নেতা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। আগামী ১৯ ফেব্র“য়ারী এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরুল ইসলাম পাটোয়ারী জানান, গত ২৫ জানুয়ারী এই উপজেলা নির্বাচনে ৩টি পদে মোট ১৮ জন তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। উপজেলা চেয়ারম্যান পদে আ‘লীগের একক প্রার্থী, বিএনপির ৪, জামায়াতের ১ ও স্বতন্ত্র ২ জন, এবং পুরুষ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের দুটি পদে ৮ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করছেন। উপজেলা চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আ‘লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হেলাল, জেলা জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি ও ৯০ দশকের সাবেক ছাত্রনেতা আমিনুল ইসলাম বেলাল, থানা বিএনপির সভাপতি আল ফারুক জেমস্, একডালা ইউনিয়ন বিএনপির সাধারন সম্পাদক ও বর্তমান একডালা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন, কাশিমপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান বিশিষ্ট ক্রীড়াবিদ সাইদুর রহমান বাঘা, থানা জামায়াতে ইসলামীর আমীর মোস্তফা ইবনে আব্বাছ, স্বতন্ত্র প্রার্থী আসাদুজ্জামান নুরুল ও আহসান হাবিব মিলন মনোনয়নপত্র দাখিল করছেন। উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ‘লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শহীদুল­¬াহ মিয়া, গতবারের পরাজিত প্রার্থী অধ্যক্ষ হারুনূর রশিদ, থানা যুবদল নেতা মোজাক্কির হোসেন, আব্দুল লতিফ, আহম্মদ মহিউল চৌধুরী ও আব্দুর রাজ্জাক, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান আ‘লীগ নেত্রী ফরিদা বেগম, সনিয়া ইসলাম, রেশমা পারভীন, থানা মহিলা দলের সাধারন সম্পাদিকা তহমিনা আক্তার রুহি মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ভাইস চেয়ারম্যান পদে আব্দুর রাজ্জাক ও রেশমা পারভীনের মনোনয়ন পত্র কাগজ পত্রে ক্রুটি থাকায় সহকারী রিটানিং অফিসার বাতিল করে দিয়েছেন।
৮টি ইউনিয়ন নিয়ে এক সময়ের রক্তাক্ত জনপদ খ্যাত সর্বহারা ও জেএমবি অধ্যুষিত রানীনগর উপজেলা পরিষদ গঠিত। এই উপজেলা মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৩১ হাজার ৪৬১ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ৬৫ হাজার ৫৪১ জন এবং নারী ভোটার ৬৫ হাজার ৯২০ জন। মোট ভোট কেন্দ্র ৪৩টি। গত নির্বাচনে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হন উপজেলা আ‘লীগের যুগ্ম সম্পাদক আনোয়র হোসেন হেলাল। তার প্রতিদ্বন্দি প্রার্থী থানা বিএনপির সভাপতি আল ফারুক জেমস। এছাড়াও বিএনপির একাধিক প্রার্থী জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি ও ৯০ দশকের সাবেক ছাত্রনেতা আমিনুল ইসলাম বেলাল, একডালা ইউনিয়ন বিএনপির সাধারন সম্পাদক ও বর্তমান একডালা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন, কাশিমপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান বিশিষ্ট ক্রীড়াবিদ সাইদুর রহমান বাঘা, থানা জামায়াতে ইসলামীর আমীর মোস্তফা ইবনে আব্বাছ, স্বতন্ত্র প্রার্থী আসাদুজ্জামান নুরুল ও আহসান হাবিব মিলন প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। তবে আ‘লীগের দলীয় সুত্র জানায়, আগামীতেও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ধরে রাখতে আ‘লীগ মরিয়া হয়ে উঠেছে। দল থেকে দলীয় মনোনয়ন চুড়ান্ত করেছেন, চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হেলাল, ভাইস চেয়ারম্যান শেখ শহীদুল­াহ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফরিদা বেগমকে।
এ ব্যাপারে আনোয়ার হোসেন হেলাল বলেন, গত নির্বাচনে বিএনপির একক প্রার্থীর সাথে নির্বাচন করে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়েছি। নির্বাচন হওয়ার পর থেকে ৫বছর এলাকার প্রতিটি মানুষের সাথে থেকে কাজ করেছি। এবারেও দল আমাকে মনোনয়ন দিয়েছে। বিএনপি, জামায়াত ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ৭জন। এবারেও বিপুল ভোটের মাধ্যমে আ‘লীগেসসহ এই এলাকার জনগন আমাকে বিপুল ভোটের মাধ্যমে বিজয়ী করবে বলে আমার আশাবাদ।
অপরদিকে, চেয়ারম্যান পদে বিএনপির দলীয় একক প্রার্থী দিতে পারেন নি। ভাইস চেয়ারম্যান পদে থানা যুবদলের সাধারন সম্পাদক মোজাক্কির হোসেন ও থানা মহিলা দলের নেত্রী সনিয়া ইসলামকে দিয়েছেন। তবে চেয়ারম্যান পদে এখনও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। বিএনপির দলীয় ভোটাররা কয়েকটি ভাগে ভাগ হয়েছে বলে দলীয় একাধিক সুত্রে জানা গেছে। বিএনপির একটি সুত্র জানায়, বিএনপি নেতা মোশারফ হোসেন, সাইদুর রহমান বাঘা, জামায়াতের আমীর মোস্তফা ইবনে আব্বাছ দলের সিদ্ধান্ত মোতাবেক সোমবার জেলা নির্বাচন অফিসারের কাছে মনোনয়ন প্রত্যাহারের জন্য দরখাস্ত দাখিল করেছেন বলে জানা গেছে।
থানা বিএনপির সভাপতি, চেয়ারম্যান প্রার্থী আল ফারুক জেমস জানান, গতবারে নির্বাচনে পরাজিত হয়েছি। কয়েক বছর ধরে এই এলাকায় কোন উন্নয়ন হয় নাই। উন্নয়ন হয়েছে আ‘লীগের নেতাকর্মীদের। এই এলাকার মানুষ তাদের আচরনে অতিষ্ট হয়ে গেছে। মানুষ এখন পরিবর্তন চায়। বিএনপির অনেক প্রার্থী থাকলেও আমি আশাবাদী এই নির্বাচনে বিপুল ভোটের মাধ্যমে এই এলাকার ভোটাররা বিজয়ী করবেন ইনশাল­াহ।
এ ব্যাপারে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বেলাল জানান, আমি ছাত্র রাজনীতি থেকে ইউপি চেয়ারম্যান হয়ে ইউনিয়ন সহ জেলা সকল উপজেলাসহ দলীয় নেতাকর্মীদের বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করেছি, এখনও করছি। মানুষ এখন নতুন নেতৃত্ব চায়। অবশ্যই বিপুল ভোটের মাধ্যমে আ‘লীগ প্রার্থীকে পরাজিত করে আমি বিজয়ী হব ইনশাল­াহ।
উপজেলা সহকারী রির্টানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরুল ইসলাম পাটওয়ারী জানান, আগামী ১৯ ফেব্র“যারী নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্নের পথে। সুষ্ঠ শান্তিপূর্ন ভাবে এই এলাকার ভোটার ভোট দিবেন আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

সর্বশেষ - ব্রেকিং নিউজ

error: কপি হবে না!