ads

শুক্রবার , ১৮ অক্টোবর ২০১৩ | ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

ঈদের ছুটিতে মহাদেবপুরের ছাতরা বিলের তীরে দর্শনার্থীদের ভীড়

রফিকুল ইসলাম আধার , সম্পাদক
অক্টোবর ১৮, ২০১৩ ২:৫০ অপরাহ্ণ

Mohadevpur Picture_17-10-2013এম.এ ছালাম, মহাদেবপুর (নওগাঁ) : পর্যটনে অপার সম্ভাবনাময় নওগাঁর মহাদেবপুরের নয়নাভিরাম ছাতরা বিলে এবারের ঈদে দর্শনার্থীদের ভীড় জমে উঠেছে। ঈদের দিন থেকে শুরু করে শুক্রবার পর্যন্ত প্রতিদিন শত শত দর্শনার্থীর আনাগোনা এলাকাকে মুখরিত করে তুলেছে।
বিলের চারপাশের প্রায় ২০ কিলোমিটার এলাকা যেন প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্য প্রকাশ করে চলেছে নীরবে। সেই সৌন্দর্য উপভোগ করতে আসা নারী-পুরুষ ও শিশুরা মেতে ওঠেন আনন্দ-উল্লাসে। বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে ফুটে তোলা অপরূপ সৌন্দর্যময় এ বিল নওগাঁ জেলা সদর থেকে ৩৫ কিঃমিঃ এবং মহাদেবপুর উপজেলা সদর থেকে ১৫ কিঃমিঃ পশ্চিম দিকে অবস্থিত। এ বিলের পশ্চিম প্রান্তের মাঝামাঝি স্থান থেকে শুরু হয়েছে নিয়ামতপুর উপজেলা। যোগাযোগ ব্যবস্থা চমৎকার। নিকটবর্তী নওগাঁ, জয়পুরহাট, রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ঠিক মধ্যবর্তী জায়গায় অবস্থিত এ বিল এলাকায় যাতায়াত করা যায় সহজেই। এ কারণে বরাবরের মত এবারের ঈদেও ছাতরা বিল এলাকা সরগরম হয়ে উঠেছিল শত শত ভ্রমণ পিপাসুর পদচারণায়। তারা ঈদে অবসর সময়ে আনন্দ নিতে এ বিল এলাকায় ছুটে এসেছিলেন বেড়াতে। বিলের উত্তর এবং দক্ষিণ দিকে প্রায় ২০ কিলোমিটার এলাকা জুড়েই রয়েছে পানি প্রবাহের ব্যবস্থা। বিলের মাঝ দিয়ে তৈরী করা হয়েছে কয়েক কিলোমিটার লম্বা পাকা সড়ক। সড়কের মধ্যে রয়েছে পর পর দু’টি ব্রিজ। দেখে মনে হবে যেন বিশাল কোন সমুদ্র-সৈকত এলাকা। বিলের চারপাশেই গড়ে উঠেছে অনেক নিভৃত পল্লী এবং গ্রামীণ হাটবাজার। এসবের মধ্যেই প্রকৃতির অপরূপ সাজ নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে এ বিল। বিলের পানিতে মনের আনন্দে ডিঙ্গী নৌকা ভ্রমণে মেতে ওঠেন ভ্রমণ পিপাসুরা। এ বিল এলাকা থেকে সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্তের মুহূর্তটা মনে রাখার মত। এ রকম নয়নাভিরাম পরিবেশে যে বিল অবস্থিত সে বিলটিকে পর্যটনের অপার সম্ভাবনা হিসেবে দেখছেন ভ্রমণ পিপাসুরা। এ ঈদে এখানে সময় কাটাতে আসা নারী-পুরুষদের মধ্যে সাবিনা আক্তার, ঝুমু খাতুন, সুমি চৌধুরী, ইয়াসমিন বানু, আক্তার হোসেন, নূরী আক্তার, আ. মালেক ও আবুল কালাম আজাদ জানান, সত্যিকারের ভ্রমণ পিপাসা মেটানোর জন্য খুব সহজে এত সুন্দর ও মনোমুগ্ধকর পরিবেশের প্রাকৃতিক জায়গা খুঁজে পাওয়া কঠিন।

সর্বশেষ - ব্রেকিং নিউজ

error: কপি হবে না!