ads

সোমবার , ৭ অক্টোবর ২০১৩ | ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

কলারোয়া সীমান্তে আটক ১৩ বাংলাদেশী বিজিবির কাছে হস্তান্তর : পৃথক ঘটনায় চাইনিজ কুড়াল, মোটর সাইকেল, শাড়ি ও স্টীল সামগ্রী উদ্ধার

শ্যামলবাংলা ডেস্ক
অক্টোবর ৭, ২০১৩ ৯:১২ অপরাহ্ণ

Satkhira-map2আরিফ মাহমুদ, কলারোয়া (সাতক্ষীরা) : অবৈধপথে ভারতে যাওয়ার সময় কলারোয়া সীমান্তের বিপরীতে ভারতের তারালীতে নারী-শিশুসহ ১৩ জন বাংলাদেশিকে আটক করে বিএসএফ। পরে পতাকা বৈঠকের মাধ্যেমে বিএসএফ আটককৃত বাংলাদেশিদের বিজিবির কাছে হস্তান্তর করেছে। সাতীরা, ৩৮বিজিবি ব্যাটালিয়নের অপারেশনাল (অপস) অফিসার মেজর আনোয়ারুল মাযহার জানান, খুলানার কয়রা এলাকার নারী-শিশুসহ ১৩ বাংলাদেশি রবিবার রাতে ইটভাটায় কজের উদ্দেশ্যে অবৈধপথে ভারতে যায়। সোমবার বেলা ১২টার দিকে তাদেরকে কলারোয়ার কাকডাঙ্গা সীমান্তের বিপরীতে ভারতের তারালী ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা আটক করে। পরে বিজিবি-বিএসএফ’র পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে আটককৃতদের বিজিবির কাছে হস্তান্তর করে বিএসএফ।

Shamol Bangla Ads

বিজিবি সূত্র জানায়, সোমবার বেলা ১২টার দিকে কলারোয়ার কাকডাঙ্গা সীমান্তের বিপরীতে ভারতের উত্তর ২৪পরগণা জেলার স্বরূপনগর থানার তারালী ক্যাম্পের বিএসএফ অবৈধপথে ভারতে যাওয়ার সময় ১৩জন বাংলাদেশিকে আটক করে। তাদের মধ্যে ৫জন পুরুষ, ৪জন মহিলা ও ৪জন শিশু। পরে বেলা সাড়ে ৩টা থেকে ৪টা ৫০মিনিট পর্যন্ত স্থায়ী এক পতাকা বৈঠকে আটককৃত  কাকডাঙ্গা বিজিবির কাছে হস্তান্তর করে বিএসএফ। কাকডাঙ্গা সীমান্তের বিপরীতে ভারতের তারালী এলাকার ১৩/৪ এস/আরবি পিলারের সন্নিকটে ওই পতাকা বৈঠকে কাকডাঙ্গা বিজিবি ক্যাম্পের নায়েব সুবেদার আমীর হোসেন সহ ৫ বিজিবি সদস্য এবং বিএসএফের পে তারালী ক্যাম্পের কমান্ডার এসআই বড়–য়া সহ ৫বিএসএফ সদস্য অংশগ্রহণ করেন।
হস্তান্তরিত বাংলাদেশিরা হলো খুলনা জেলার কয়রার মইনুদ্দিনের পুত্র আসাদুল (২২), হাফিজের স্ত্রী রেহেনা (১৯), হাফিজের মেয়ে আছিয়া (৩) ও পুত্র হাসিব (৫মাস), ইমান আলীর পুত্র ছিদ্দিক (২২), ছিদ্দিকের স্ত্রী মাছুরা (১৯), মোহর আলীর পুত্র হাফিজ (১৩), হাবিবের পুত্র হাসান গাজি (২৭), হাসনের মেয়ে নাজমা (২) ও মিমি (৩), আজিবরের পুত্র মনিরুল সানা (২২), আশরাফের মেয়ে মোমেনা (১৩) এবং ছিদ্দিকের মেয়ে মুন্নি (১৬)। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তাদের কলারোয়া থানায় হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছিল।
অপরদিকে কলারোয়ার কেঁড়াগাছির পাশ্ববর্তী সাতীরার তলুইগাছা সীমান্তে চাইনিজ কুড়াল, হাসুয়া দা সহ মোটরসাইকেল উদ্ধার করেছে বিজিবি। বিজিবি সূত্র জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রবিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে তলুইগাছা চৌরাস্তা মোড় থেকে কয়েক ব্যক্তিকে ধাওয়া করে তাদের ফেলে যাওয়া একটি ভারতীয় ১০০ সিসি ইয়ামাহা মোটরসাইকেল, ১টি চাইনিজ কুরাল ও ১টি হাসুয়া দা উদ্ধার করে তলুইগাছা বিওপির সুবেদার নজরুল ইসলাম। তবে এসময় কাউকে আটক করতে না পারলেও বিজিবি ৪ব্যক্তিকে আসামী করে সাতীরা সদর থানায় মামলা করেছে। আসামীরা হলো উত্তর তলুইগাছা গ্রামের মৃত দবিরউদ্দীনের পুত্র আকবর (৪০), মৃত দারা গাজির পুত্র আফছার আলী (৩৭), ইউসুফ মোল্যার পুত্র মিকাইল হোসেন (৩৫) ও ইউসুফের পুত্র অছিকুর রহমান (৩৭)।
এছাড়াও কলারোয়া সীমান্তে শাড়ি ও স্টিল সামগ্রী উদ্ধার করেছে বিজিবি। তবে এসময় কেউ আটক হয়নি। বিজিবি সূত্র জানায়, সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার কেঁড়াগাছি এলাকা থেকে তলুইগাছা বিওপির সুবেদার নজরুল ইসলাম ৪০পিচ ভারতীয় উন্নতমানের শাড়ি ও ১৩ কেজি স্টিল সামগ্রী উদ্ধার করে। উদ্ধারকৃত পণ্যের আনুমানিক মূল্য ৮৮ হাজার টাকা।

error: কপি হবে না!