ads

শুক্রবার , ৪ অক্টোবর ২০১৩ | ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

ভোগান্তির অপর নাম চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়ক

রফিকুল ইসলাম আধার , সম্পাদক
অক্টোবর ৪, ২০১৩ ৬:৪২ অপরাহ্ণ

jonodurvogমীর আসলাম, রাউজান (চট্টগ্রাম) : চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়ক পথ এখন যানবাহন যাত্রীদের জন্য চরম ভোগান্তির যাতায়াত মাধ্যম। দিনের শুরু থেকে গভীর রাত পর্যন্ত  ব্যস্ততম ওই সড়ক পথটি থাকে সীমাহীন যানজটপূর্ণ। পরিবহন যাত্রী ও এলাকার লোকজনের অভিযোগ, কাপ্তাই রাস্তার মাথা (মোহরা) থেকে নোয়াপাড়া পথের হাট পর্যন্ত প্রায় ১৫ কিলোমিটার সড়ক পথ যানবাহন যোগে অতিক্রম করতে অনেক সময় দেড় থেকে দু’ঘন্টা যানজটে থাকতে হয়। এতে জনসাধারণকে চরম ভোগান্তি মধ্যে থাকতে হয়। অনেক সময় যানজটে পড়ে হাসপাতালগামী মুমুর্ষ রোগীর মৃত্যু ঘটে।
ভূক্তভোগীদের মতে, রাগুনিয়া উপজেলার পোমরা এলাকা থেকে ওয়াসার পাইপ লাইন শহরমুখী নেয়া হচ্ছে। বড় বড় পাইপ বসানো হচ্ছে। কার্পেটিং করা সড়ক পথের অর্ধেক কেটে। অভিযোগ রয়েছে, পাইপ বসানোর পর সড়ক পথটি পূর্ববস্থায় ভরাট করে দিতে সংশ্লিষ্ট বিলম্ব করায় যানবাহন চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।
সরেজমিনে পরিদর্শনে দেখা গেছে, কুয়াইশ থেকে মদুনাঘাট পর্যন্ত সড়ক পথের দুপাশে অবৈধ দখলদারদের রাখা ইট বালুসহ বিভিন্ন পন্যসামগ্রীর কারণে সড়কটি সংকোচিত হয়ে পড়েছে। তার উপর ওয়াসার পাইপ বসানোর কাজ করা, নজু মিয়া হাট এলাকায় সড়ক জুড়ে সিএনজি অটো রিক্সা ও মাইক্রো ষ্ট্যাণ্ড করা ও মাছের বাজার বসানোর কারণে এখানে ঘন্টার পর ঘন্টা যানজট লেগে থাকে। এছাড়া সড়ক পাশের কয়েকটি সিএনজি গ্যাস ফিলিং ষ্টেশনের কারণেও যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। পাম্প এলাকায় দেখা গেছে, পাম্পের সামনে জ্বালানী নিতে আসা অপেমান শত শত গাড়ির রাস্তা দখল করে দাঁড়িয়ে রয়েছে। এখানে গাড়ি স্বাভাবিক গতিতে চলাচল করতে না পারায় যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। জনৈক গাড়ি চালকের অভিযোগ, কাপ্তাই সড়কের অধিকাংশ জায়গা অবৈধদখলদারদের কবলে চলে গেছে। অবৈধদখলদারদের কারণে সড়ক পাশ দিয়ে মানুষ হাঁটার পথও বন্ধ হয়ে আছে। এ কারণে যানবাহন চালকরা গাড়ি চালাতে হয় অত্যন্ত ধীরগতিতে। এলাকার জনসাধারণ আরও অভিযোগ করে জানিয়েছে, এই গুরুত্বপূর্ণ সড়ক পথটি প্রতিদিন অবৈধ দখলদারিত্ব চলে যাচ্ছে। সড়ক বিভাগের লোকজনের রহস্যজনক নিরবতায় জবরদখলকারীরা প্রতিদিন নতুন নতুন স্থাপনা নির্মাণ করে ব্যবসা বানিজ্যে ভাড়ায় খাটাচ্ছে।
ব্যস্ততম সড়ক পথটির ইতোমধ্যে যেসব এলাকার বেশিরভাগ অংশ জবরদখলকারীদের হাতে চলে গেছে সেই এলাকা সমূহ হচ্ছে মদুনাঘাট, বইজ্জ্যাখালী গেইট, নজুমিয়াহাট, কুয়াইশ কলেজ সংলগ্ন, ধুপপুল, নোয়াপাড়া পথের হাট, পাহাড়তলী, ইছাখালী, শান্তির হাট, গোছরা চৌমুহনী, মরিয়মনগর, রোয়াজার হাট, চন্দ্রঘোনা লিচু বাগান উল্লেখযোগ্য। এলাকার সচেতন মহল মনে করেন, ব্যস্ততম এই সড়ক পথটিতে সর্বসাধারণের ভোগান্তি লাঘবে সড়ক বিভাগের লোকজনকে আরও দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে। ওয়াসার গ্যাস পাইপ স্থাপনের কাজ দ্রুততম সময়ে শেষ করে সড়কটি কাটা অংশ মেরামত করা জরুরী।

error: কপি হবে না!