ads

বৃহস্পতিবার , ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৩ | ২৯শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে অজ্ঞাত রোগে দু’টি বিদ্যালয়ের ২১ ছাত্রী অসুস্থ্য : আতঙ্ক এড়াতে বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা

রফিকুল ইসলাম আধার , সম্পাদক
সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৩ ৭:০৯ অপরাহ্ণ

29-0জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার, নালিতাবাড়ী (শেরপুর) : শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার দু’টি বিদ্যালয়ের ২১ জন ছাত্রী হঠাৎ অসুস্থ্য হয়ে পড়ায় শিক্ষক ও অভিভাবক মহল আতংকিত হয়ে পড়েছে। আতঙ্ক এড়াতে ১২ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার স্থানীয়ভাবে একটি বিদ্যালয়ে ৩ দিনের ছুটি ঘোষণা করা  হয়েছে।
জানা যায়, বুধবার ও বৃহস্পতিবার উপজেলার গোজাকুড়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম ও অষ্টম শ্রেণীর ১১ জন ছাত্রী এবং রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ১০ জন ছাত্রী বিদ্যালয় চলাকালে পর্যায়ক্রমে অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রীদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়ার পর সুস্থ্য হয়ে উঠে। গোজাকুড়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রীদের নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে চিকিৎসার পর তাঁরা বাড়ি ফিরে যায়। এ নিয়ে অভিভাবক ও শিক্ষক মহলে আতংক বিরাজ করছে।
গোজাকুড়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমান জানান, আকস্মিকভাবে বুধবার দুপুরে অষ্টম শ্রেণীর এক ছাত্রী হঠাৎ অজ্ঞান হয়ে পড়ে। মাথায় পানি ঢালার পর জ্ঞান ফিরে আসলে তার হাত-পায়ে খিঁচুনি শুরু হয়। ওই অবস্থায় অষ্টম শ্রেণীর ৭ ছাত্রী একইভাবে অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার সময় সপ্তম শ্রেণীর ৩ ছাত্রী অসুস্থ্য হয়ে পড়লে বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সাথে কথা বলে স্থানীয়ভাবে  রবিবার পর্যন্ত ৩ দিন বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
রামচন্দ্রকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুর মোহাম্মদ জানান, বুধবার দুপুরে বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ১০ জন ছাত্রী এক সঙ্গে দুপুরে হঠাৎ অসুস্থ্য হয়ে পড়লে স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসায় তাঁরা সুস্থ্য হয়ে উঠে। শারীরিক দুর্বলতার কারণে এমনটি হয়ে থাকতে পারে বলে তিনি জানান।
অভিভাবক জাহাঙ্গীর আলম জানান, ওই ধরনের ঘটনায় অভিভাবকরা আতংকিত। আসলে এটি কি রোগ বা কি করতে হবে, তা আমরা বুঝে উঠতে পারছি না।
উপজেলা মাধ্যমিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম খোকন জানান, বিষয়টি অভিভাবক ও শিক্ষকদের মাঝে কিছুটা ভীতি সৃষ্টি করেছে। যারা অসুস্থ্য হয়েছিল তারা সবাই প্রাথমিক চিকিৎসায় সুস্থ্য হয়ে উঠেছে। এ ব্যাপারে অভিভাবকদের আতংকিত হওয়ার কিছু নেই।
নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. তাজুল ইসলাম জানান, প্রাথমিকভাবে এটি মাচ হিস্টিরিয়া রোগ হিসেবে ধারণা করা হচ্ছে। এ রোগে আক্রান্ত হলে শিশুরা হঠাৎ অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। সাধারণত দুশ্চিন্তা বা ভয়-ভীতি থেকে এ রোগ হতে পারে। তবে আতংকিত হওয়ার কিছু নেই। তিনি জানান, দু’দিনে এ রোগে আক্রান্ত ১৩ শিক্ষার্থী হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে।

error: কপি হবে না!