ads

মঙ্গলবার , ২৭ আগস্ট ২০১৩ | ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

ভারতে বন্দিদশা থেকে ১০ বছর পর পালিয়ে দেশে ফিরলো মাটি

শ্যামলবাংলা ডেস্ক
আগস্ট ২৭, ২০১৩ ১১:৩৪ অপরাহ্ণ

Lost childএস.এম আজিজুল হক, পাবনা : ‘মাটি’ শাব্দিক অর্থের মাটি নয়, মাটি এক কিশোরের  নাম। মাত্র ৫ বছর বয়সে বাবা-মায়ের সঙ্গে মেলা দেখতে গিয়ে শিশু পাচারকারী চক্রের খপ্পরে পড়ে ভারতে পাচার হয়ে যায় মাটি। এরপর ভাগ্য তাকে টেনে নেয় মাদক ও অস্ত্র ব্যবসায়ীর কারখানায়। দীর্ঘ ১০ বছর বন্দি জীবন কাটিয়ে পালিয়ে আসা মাটি এখন ১৫ বছরের কিশোর।
পুলিশ ও একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, কিশোর মাটি ৪ দিন আগে ভারত থেকে পালিয়ে বেনাপোল সীমান্ত পার হয়ে খুলনা চলে আসে। রবিবার সে খুলনা থেকে ঢাকাগামী আন্তঃনগর চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনে ওঠে। কিন্তু ট্রেনে ঢাকা যাওয়ার পথে টিকেট না থাকায় তাকে পাবনার চাটমোহর রেল স্টেশনে নামিয়ে দেয় ট্রেনের টিটি। পরে তাকে চাটমোহর থানায় সোপর্দ করে স্থানীয়রা। এসময় সে জানায়, ছেলেবেলা থেকেই মা-বাবা তাকে মাটি বলেই ডাকতেন। তখন থেকেই সে জেনেছে তার নাম মাটি। তার বাবার নাম জসিম খান, পেশায় কাঠমিস্ত্রী। বাড়ি সিলেটের মৌলভীবাজারে। এছাড়া আর কোনো কিছু বলতে পারছে না সে। সে আরও জানায়, ৫ বছর বয়সে বাবা-মায়ের সঙ্গে মৌলভীবাজারে মেলা দেখতে গিয়ে হারিয়ে যায় সে। মেলা থেকে অপরিচিত একটি লোক তাকে তার মা-বাবার কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার কথা বলে পাচারকারী দলের কাছে বিক্রি করে দেয়। পরে চক্রটি তাকে ভারতে পাচার করে দেয়। পাচার হয়ে যাওয়ার পর থেকে ভারতে থাকায় মাতৃভাষা বাংলার পাশাপাশি তাকে শিখতে হয়েছে হিন্দি ভাষা। দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর তাকে কাজ করতে হয় একটি মাদক ও অস্ত্র ব্যবসায়ীর কারখানায়। ওই সময় মাদক তৈরি, বোতলজাত করা, আগ্নেয়াস্ত্র পরিষ্কারসহ নানা অপরাধমূলক কাজ করতে হয়েছে তাকে। ৩ মাস আগে মাদক তৈরির কারখানা থেকে পালিয়ে আসার পথে কলকাতা পুলিশের হাতে আটক হয় সে। এরপর ভারতের জেলখানায় ৩ মাস কারাভোগের পর আদালত তাকে মুক্তি দিলে সে পুলিশের সহায়তায় বেনাপল সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে আসে। সেখান থেকে স্থানীয়রা তাকে কিছু অর্থ সহায়তা দিয়ে ঢাকা গিয়ে সেখান থেকে সিলেট যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে খুলনার একটি ট্রাকে তুলে দেয়। এখন তার আকুতি মা-বাবাকে দেখার। ফিরে যেতে ও ফিরে পেতে চায় মা-বাবাকে। এ ব্যাপারে চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান মুন্সি জানান, প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে কিশোর মাটিকে যশোরের কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের নিরাপদ আশ্রয়ে রাখার জন্য পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। পরে খোঁজ পেলে মা-বাবা অথবা স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে তাকে।

সর্বশেষ - ব্রেকিং নিউজ

error: কপি হবে না!