ads

শুক্রবার , ২৩ আগস্ট ২০১৩ | ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধী দলীয় নেতার সাথে ফোনালাপ : নির্বাচনকালীন সরকার ব্যবস্থা নিয়ে সংলাপের উপর গুরুত্বারোপ করলেন জাতি সংঘ মহাসচিব

রফিকুল ইসলাম আধার , সম্পাদক
আগস্ট ২৩, ২০১৩ ১০:৪১ অপরাহ্ণ
প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধী দলীয় নেতার সাথে ফোনালাপ : নির্বাচনকালীন সরকার ব্যবস্থা নিয়ে সংলাপের  উপর গুরুত্বারোপ করলেন  জাতি সংঘ মহাসচিব

hasina khaleda moon1শ্যামলবাংলা ডেস্ক :  নির্বাচনকালীন সরকার ব্যবস্থা নিয়ে সরকার ও বিরোধী দলের মাঝে সমঝোতার জন্য সংলাপের উপর গুরুত্বারোপ করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন। তিনি ২৩ আগস্ট শুক্রবার  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধীদলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়ার সাথে আগামী জাতীয় নির্বাচনকালীন সরকার ব্যবস্থা নিয়ে  পৃথক  ফোনালাপে ওই গুরুত্বারোপ করেন। ওই ফোনালাপে শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়া স্ব-স্ব অবস্থান  ব্যাখ্যা করলেও চলমান রাজনীতিতে তার ইতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে রাজনৈতিক বিশ্লেষকগণ ধারনা করছেন।

Shamol Bangla Ads

জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে টেলিফোনে বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে সংলাপের উপর গুরুতারোপ করলে তাকে শেখ হাসিনা বলেন, আগামী মাসে সংসদের অধিবেশন ডাকা হয়েছে। বিরোধী দল যদি কোনো প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করতে চায় তাহলে সরকার তাদের স্বাগত জানাবে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ওই ফোনালাপের সত্যতা নিশ্চিত করে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার গণমাধ্যম বিষয়ক উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ মহাসচিবকে জানিয়েছেন, সংবিধান মেনেই আগামী জাতীয় নির্বাচন হবে। আগামী মাসে সংসদের অধিবেশন ডাকা হয়েছে। বিরোধী দল যদি কোনো প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করতে চায়, তাহলে সরকার তাদের ওয়েলকাম জানাবে।
প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ মহাসচিবকে আরো জানিয়েছেন, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সংলাপ ও আলোচনার মাধ্যমে যেকোনো সমস্যার সমাধানে সরকার আগ্রহী। এ কারণে বিরোধীদলীয় নেতাকে সংলাপের প্রস্তাব দেয়ার বিষয়টিও তিনি বান কি মুনকে জানান। প্রধানমন্ত্রীর কাছে দেশের পরিস্থিতি বান কি মুন জানতে চাইলে সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ সম্পর্কে তাকে জানান শেখ হাসিনা। ওই সময় জাতিসংঘ মহাসচিবকে প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, তার সরকার একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরে বিশ্বাসী। আগামী নির্বাচনে জনগণ যাতে সুষ্ঠুভাবে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে- তার সব পদক্ষেপ নেয়া হবে।
দীর্ঘ আধা ঘণ্টার আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী ও তার সরকারের নেতৃত্বে বাংলাদেশে গণতন্ত্র, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও মিলেনিয়াম ডেভেলপমেন্ট গোল অর্জনে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতির প্রশংসা বান কি মুন করেছেন বলে জানান ইকবাল সোবহান চৌধুরী।

এদিকে শুক্রবার সন্ধ্যায় ফোনালাপকালে  বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া জাতিসংঘ মহাসচিবকে বলেন, নির্বাচন নিয়ে যে কোনো ধরনের সংলাপের জন্য প্রস্তুত বিএনপি। তবে আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনে যাবে না তার দল।
রাতে বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে ফোনালাপের বিষয়টি নিশ্চিত করে  দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে জানান, জাতিসংঘ মহাসচিবকে বিরোধীদলীয় নেতা বলেছেন, সংকট সমাধানে সংলাপ কিংবা আলোচনার বিকল্প নেই। বিএনপি যেকোনো ধরনের সংলাপ ও আলোচনায় প্রস্তুত রয়েছে। তিনি জাতিসংঘের মহাসচিবকে জানিয়ে দিয়েছেন, আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনে বিএনপি যাবে না। তিনি বান কি মুনের টেলিফোন সংলাপের কথা সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরে আরো বলেন, জাতিসংঘের মহাসচিব বিরোধীদলীয় নেতাকে জানিয়েছেন, বাংলাদেশে তারা একটি সবার কাছে গ্রহণযোগ্য ও সব দলের অংশগ্রহণে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন দেখতে চায়। এজন্য বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি জাতিসংঘ নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে। জবাবে বিরোধীদলীয় নেতা জাতিসংঘের মহাসচিবকে বলেছেন, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য নির্দলীয় সরকারের কোনো বিকল্প নেই। সেই সঙ্গে একটি শক্তিশালী নির্বাচন কমিশনও জরুরি । ওই সময় বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে জাতিসংঘ মহাসচিব বিরোধী দলীয় নেতাকে তার উদ্বেগের কথাও জানিয়েছেন বলে  মির্জা আলমগীর জানান।

error: কপি হবে না!