ads

বুধবার , ৩১ জুলাই ২০১৩ | ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত অনলাইন নিউজ পোর্টাল
  1. ENGLISH
  2. অনিয়ম-দুর্নীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আমাদের ব্লগ
  6. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  7. ইসলাম
  8. উন্নয়ন-অগ্রগতি
  9. এক্সক্লুসিভ
  10. কৃষি ও কৃষক
  11. ক্রাইম
  12. খেলাধুলা
  13. খেলার খবর
  14. চাকরির খবর
  15. জাতীয় সংবাদ

রংপুর মিশনে প্রধানমন্ত্রী : আগামীতেও নৌকায় ভোট দিয়ে জনগণের ভাগ্যের চাকা গতিশীল করুন

রফিকুল ইসলাম আধার , সম্পাদক
জুলাই ৩১, ২০১৩ ১০:৩১ অপরাহ্ণ

hasinaশ্যামলবাংলা ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী নির্বাচনেও নৌকায় ভোট দিয়ে ভাগ্যের চাকা গতিশীল করতে জনগণের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। ৩১ জুলাই বুধবার বিকেলে রংপুরের পীরগঞ্জ সরকারি হাই স্কুল মাঠে আয়োজিত বিশাল জনসভায় প্রধানমন্ত্রী ওই আহবান জানান। এসময় তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় গেলে জনগণের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়। মানুষের দিন-মানের পরিবর্তন ঘটে। বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন হয়। কিন্তু বিএনপি ক্ষমতায় গেলে দেশে লুটপাট বাড়ে, বেড়ে যায় খুন, ধর্ষণ, দুর্নীতি ও লুটপাট। তিনি বলেন, বিএনপির আমলে মানুষ দু’বেলা খাবার জন্য চাল কিনতে পারতনা, আর এখন বাংলাদেশে খাদ্যের অভাব নেই। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর কৃষককে কৃষিঋণ দেওয়া হয়েছে। তথ্য-প্রযুক্তির প্রসারে প্রতিটি ইউনিয়নে তথ্যসেবা কেন্দ্র খোলা হয়েছে। প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক পর্যায়ে বিনামূল্যে বই দেওয়া হয়েছে। শিক্ষাবর্ষের প্রথমদিন থেকেই এখন সবাই বই হাতে পাচ্ছে। সরকার  দেশের মানুষের উন্নয়নের জন্য কাজ করছে বলেই ওইসব ইতিবাচক কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করা সম্ভব হচ্ছে।
‘বিএনপির আমলে রংপুর সবচেয়ে অবহেলিত ও বঞ্চিত ছিল’ বলে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর রংপুরে বিশ্ববিদ্যালয় হয়েছে, বিভাগ হয়েছে, সিটি করপোরেশন হয়েছে, তিস্তা সেতু হয়েছে। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বার্ন ইউনিট চালু হয়েছে। তিনি বলেন, এ এলাকায় মঙ্গা ছিল, লঙ্গরখানা ছিল। সেই মঙ্গা দূর করে নির্বাসনে পাঠানো হয়েছে। লঙ্গরখানা আর নেই। তিনি জামায়াত ও হেফাজত প্রসঙ্গে বলেন, আমাদের দুর্ভাগ্য তারা  ইসলামের নামে রাজনীতি করছে। বায়তুল মোকাররমে তারা আগুন দিয়েছে, শত শত কোরআন পুড়িয়েছে।  তারা মসজিদে দাঁড়িয়ে মিথ্যা কথা বলছে। এ সময় তিনি ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, মসজিদে দাঁড়িয়ে যারা ইসলামের অপপ্রচার করে, আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করে, তাদের প্রতিরোধ করতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। তিনি বাংলাদেশকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ হিসেবে গড়ে তোলার সংকল্প ব্যক্ত করে বলেন,  আবারো নৌকা মার্কায় ভোট চান ও  উপস্থিত জনতার কাছ থেকে হাত তুলে ওয়াদা আদায় করেন।
পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতাহারুল হক বাবলুর সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রধামন্ত্রীর পুত্র সজীব ওয়াজে জয়, পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী, এডভোকেট ফজলে রাব্বি এমপি, সংসদ সদস্য টিপু মুন্সি, আব্দুল মান্নান এমপি প্রমুখ।
এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিমানবাহিনীর একটি হেলিকপ্টারে বেলা ১২-৩০ টায় পীরগঞ্জের ফতেহপুরে অস্থায়ী হেলিপ্যাডে  পৌঁছেন। তার সাথে জয়ের স্ত্রী ক্রিস্টিনা জয় ছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয় আরেকটি হেলিকপ্টারে আসেন। পরে ফতেহপুরে জয়সদনে প্রবেশ করেন তারা। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়, জয়ের স্ত্রী ক্রিস্টিনা জয়, পরিবারের সদস্য এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর, স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামছুল হক টুকু, সংসদ সদস্য এবং প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা মরহুম ড. ওয়াজেদের কবরস্থান জিয়ারত করেন। পরে প্রধানমন্ত্রী পরিবারের সদস্যদের সাথে কুশল বিনিময় করেন।  বেলা আড়াইটার দিকে জনসভাস্থলের পাশেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল পদ্ধতিতে ড. এমএ ওয়াজেদ মিয়া সেতু, পীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ ডাকবাংলো, রংপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস ও অফিসার্স ডরমেটরি এবং সার্কিট হাউস ভবন, বিভাগীয় কমিশনার কমপ্লেক্স, পীরগঞ্জ উপজেলা কমপ্লেক্স, মেরিন একাডেমি ও টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট ও পীরগঞ্জ পৌরসভা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।
এদিকে পুত্র তথ্য-প্রযুক্তি প্রকৌশলী সজীব ওয়াজেদ জয়সহ স্বপরিবারে প্রধানমন্ত্রীর রংপুর সফরকে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক মহল আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে ‘প্রধানমন্ত্রীর রংপুর মিশন’ বলেই মনে করছেন।

error: কপি হবে না!