প্রকাশকাল: 11 জুলাই, 2018

৫ লাখ পাউন্ড জরিমানার মুখে ফেইসবুক

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা কেলেঙ্কারি নিয়ে ফেইসবুককে পাঁচ লাখ পাউন্ড জরিমানা করতে চায় যুক্তরাজ্যের ডেটা সুরক্ষা পর্যবেক্ষণ কর্তৃপক্ষ। ১১ জুলাই বুধবার বিবিসি’র প্রতিবেদনে বলা হয়, কার্যকর করা হলে এটি এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ জরিমানার অংক হবে। এই অংক কমাতে চেষ্টা করা হবে কিনা তা নিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক মাধ্যমটি এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি।
ফেইসবুককে জরিমানা করার সঙ্গে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার মূল প্রতিষ্ঠান এসসিএল ইলেকশনস-এর বিরুদ্ধে অপরাধের অভিযোগ আনার ইচ্ছা প্রকাশ করা হয়েছে। এসসিএল ইলেকশনস ইতোমধ্যে বন্ধ হয়ে গিয়েছে। সেইসঙ্গে ‘ভোট লিভ’ প্রচারণার সঙ্গে কাজ করা অ্যাগ্রিগেট আইকিউ-কে অবশ্যই যুক্তরাজ্যের নাগরিকদের ডেটা নিয়ে কাজ করা বন্ধ করতে হবে বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ। যুক্তরাজ্যের ১১টি মূল রাজনৈতিক দলকে তাদের ডেটা সুরক্ষা চর্চা যাচাইয়ে বাধ্য করতে অবহিত করা হয়েছে বলেও জানায় তারা।
যুক্তরাজ্যের ইনফরমেশন কমিশনার’স অফিস (আইসিও)-এর পক্ষ থেকে বলা হয়, এই দলগুলো ডেটা ব্রোকারদের কাছ থেকে মানুষের লাইফস্টাইলের তথ্য নিতে পারে, আর এসব তথ্য নিতে প্রয়োজনীয় মানুষের অনুমতি নেওয়া নাও হতে পারে।
এক্ষেত্রে আইসিও ‘এমা’স ডায়েরি’ নামের একটি ডেটা ব্রোকার প্রতিষ্ঠান নিয়ে বিশেষ উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। প্রতিষ্ঠানটি গর্ভবতী নারীদের চিকিৎসাবিষয়ক পরামর্শ দেয় ও নবজাতকদের উপহার পাঠিয়ে থাকে বলে আইএএনএস-এর প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। এই প্রতিষ্ঠান তাদের রাজনৈতিক কার্যক্রম নিয়ে কতোটা স্বচ্ছ তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আইসিও।
আইসিও জানিয়েছে যুক্তরাজ্যের লেবার পার্টি ‘এমা’স ডায়েরি’-কে ব্যবহারের কথা নিশ্চিত করেছে কিন্তু এ নিয়ে বিস্তারিত তথ্য দেয়নি। তবে এই ডেটা সরবরাহকারীদের মালিক প্রতিষ্ঠান লাইফসাইকেল মার্কেটিং ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ান-কে বলেছে, তারা আইসিও’র দাবির সঙ্গে একমত নয়।
ব্রেক্সিট গণভোটের প্রচারণা চালানোর সময় রাজনৈতিক প্রচারণায় ব্যক্তিগত ডেটা ব্যবহার নিয়ে চলমান এক তদন্ত শুরুর ১৬ মাস পর আইসিও এই পদক্ষেপ নিচ্ছে। এর মধ্যে জানা যায় লন্ডনভিত্তিক পরামর্শদাতা প্রতিষ্ঠান কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা তাদের হাতে যাওয়া লাখ লাখ ফেইসবুক ব্যবহারকারীর ডেটা মুছে ফেলার বিষয়টি নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হয়েছে সোশাল জায়ান্টটি। যদিও কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার দাবি ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে ফেইসবুকের অনুরোধ পাওয়ার পর এই ডেটা মুছে দিয়েছে।
কিন্তু আইসিও জানিয়েছে, ওই ডেটা অন্যদের সঙ্গে শেয়ার করা হয়েছে এমন প্রমাণ রয়েছে। “এটি সম্ভবত ফেইসবুককে ডেটা মুছে ফেলা নিয়ে দেওয়া বিবৃতির যথার্থতা প্রশ্নের মুখে ফেলে”- বলেছে তারা।

আপনার মতামত দিন

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

error: Content is protected !!