[bangla_time] | [bangla_day] | [english_date] | [bangla_date]

সাফল্যের কথোকতা ॥ শেরপুরে তৃণমূল থেকে ওঠে এলেন আ’লীগ নেতা রফিকুল

স্টাফ রিপোর্টার ॥ শেরপুরে তৃণমূল থেকে ধাপে ধাপে ওঠে এলেন আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম। ১৪ অক্টোবর পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের শেষ ধাপে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এ অনুষ্ঠিত শেরপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিনি প্রায় পৌণে ৩২ হাজার ভোটের ব্যবধানে প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থীকে হারিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। এর মধ্য দিয়ে তিনি এখন সাফল্যের শীর্ষ শিখরে অবস্থান করছেন।
শ্যামলবাংলা২৪ডটকমের অনুসন্ধানে ওঠে এসেছে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলামের উত্থানের কথোকতা। সদর উপজেলার ভাতশালা ইউনিয়নের চরবয়ড়া গ্রামে কৃষক পরিবারের সন্তান রফিকুল ইসলাম ২ ভাই ২ বোনের মধ্যে দ্বিতীয়। ছাত্র জীবন থেকেই তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতি তথা ছাত্রলীগের সাথে জড়িত। সেইসাথে ওই সময় থেকেই তিনি পিতার কৃষি সংসারের দেখভালের পাশাপাশি স্থানীয়ভাবে ঔষধের ব্যবসা শুরু করেন। এক পর্যায়ে তিনি তৎকালীন সদর থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন। এরপর থেকে ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে পরিচিতি ও অবস্থান। পরবর্তী সম্মেলনে তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। সেই থেকে ৩ দফায় আছেন একই দায়িত্বে। রাজনৈতিক অঙ্গনে ব্যপ্তি বাড়ার পাশাপাশি তিনি নিজ এলাকা ভাতশালা ইউনিয়নে প্রথম নির্বাচনে অংশ নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এরপর আরও দু’দফায় নির্বাচিত হন চেয়ারম্যান পদে। ৩ দফায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ৩ দফায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের দায়িত্বে থাকার সুবাদে সদর উপজেলার দলীয় নেতা-কর্মীসহ সাধারণ মানুষের সাথে তার উঠা-বসা, মেলা-মেশার যথেষ্ট সুযোগ হয়। একজন সাদাসিধে ও সহজ-সরল প্রকৃতির মানুষ হিসেবে বেড়ে যায় তার পরিচিতি। এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলের বিদায়ী উপজেলা চেয়ারম্যানকে বাদ রেখে তার ভাগ্যে জুটে দলীয় মনোনয়ন। কিন্তু দলের আরও দু’জন নেতা বিদ্রোহ ঘোষণা করে নির্বাচনে অবতীর্ণ হয়। এছাড়া বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীর অংশগ্রহণে নির্বাচনে যোগ হয় ভিন্ন মাত্রা। কিন্তু আওয়ামী লীগের ভোটব্যাংক খ্যাত পূর্বাঞ্চলে একমাত্র প্রার্থী হওয়ায় এবং ভোটের রাজনীতিতে হিরো খ্যাত সদর আসন থেকে টানা ৫ দফায় নির্বাচিত সংসদ সদস্য, দ্বিতীয় দফার হুইপ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিউর রহমান আতিকের ক্যারিশমায় আস্তে আস্তে রফিকুল ইসলামের অবস্থান ভারি হতে থাকে। অবশেষে তা বিশাল বিজয়ে বর্তায় নির্বাচনী ফলাফলে। তার বিপরীতে লড়াই করা ৪ উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে নিকটতম প্রার্থী ব্যতীত অপর ৩ জনকেই হারাতে হয় জামানত। এছাড়া তার প্রাপ্ত ভোটের পরিমাণ দাড়ায় প্রতিদ্বন্দ্বী ৪ প্রার্থীর চেয়েও বেশি।
বিজয়োত্তর জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক বিজয় সমাবেশে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম তাকে বিজয়ী করার জন্য সদর উপজেলাবাসীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, আগামী দিনগুলোয় বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় এবং হুইপ আতিউর রহমান আতিক ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট চন্দন কুমার পালের সহযোগিতায় সদর উপজেলার সার্বিক উন্নয়ন তথা উপজেলাবাসীর ভাগ্যোন্নয়নে তিনি সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন। নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করার জন্য দলের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মীকে তিনি অভিনন্দন জানান ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» শেরপুরে জেলা প্রশাসনের আর্থিক সহায়তা পেল ৩ হতদরিদ্র শিক্ষার্থীসহ ৫ জন

» শেখ ফয়জুর রহমান’র কবিতাগুচ্ছ

» নালিতাবাড়ীতে ১ হাজার পিস ইয়াবাসহ ২ যুবক গ্রেফতার

» দিবা-রাত্রির টেষ্ট ম্যাচ : ‘পিঙ্ক সিটি’তে রুপ নিয়েছে কলকাতা

» যুবলীগের সম্মেলন ২৩ নবেম্বর

» অস্ট্রেলিয়ায় ভয়ানক রূপ ধারণ করেছে দাবানল : ৩ রাজ্যে সর্বোচ্চ সতর্কতা

» আমন মৌসুমে ছয় লাখ টন ধান কিনবে সরকার : কৃষিমন্ত্রী

» পিইসিতে শিশুদের বহিষ্কার কেন অবৈধ নয় জানতে চেয়ে হাইকোর্টের রুল

» ইমার্জিং কাপের ফাইনালে বাংলাদেশ

» শ্রীলঙ্কার অন্তর্বর্তীকালীন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন মাহিন্দা রাজাপাকসে

» পরিবহন শ্রমিকদের দাবিতে অসঙ্গতি আছে কিনা খতিয়ে দেখা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

» অপপ্রচারে কান না দেওয়ার অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর

» নালিতাবাড়ীতে ইয়াবাসহ ২ সাবেক নারী ইউপি সদস্য গ্রেফতার

» শেরপুরে মেজবান রেঁস্তোরার উদ্বোধন

» রাজনৈতিক বিজ্ঞাপনে গুগলের কড়াকড়ি

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

কারিগরি সহযোগিতায় BD iT Zone

,

সাফল্যের কথোকতা ॥ শেরপুরে তৃণমূল থেকে ওঠে এলেন আ’লীগ নেতা রফিকুল

স্টাফ রিপোর্টার ॥ শেরপুরে তৃণমূল থেকে ধাপে ধাপে ওঠে এলেন আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম। ১৪ অক্টোবর পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের শেষ ধাপে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এ অনুষ্ঠিত শেরপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিনি প্রায় পৌণে ৩২ হাজার ভোটের ব্যবধানে প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থীকে হারিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। এর মধ্য দিয়ে তিনি এখন সাফল্যের শীর্ষ শিখরে অবস্থান করছেন।
শ্যামলবাংলা২৪ডটকমের অনুসন্ধানে ওঠে এসেছে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলামের উত্থানের কথোকতা। সদর উপজেলার ভাতশালা ইউনিয়নের চরবয়ড়া গ্রামে কৃষক পরিবারের সন্তান রফিকুল ইসলাম ২ ভাই ২ বোনের মধ্যে দ্বিতীয়। ছাত্র জীবন থেকেই তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতি তথা ছাত্রলীগের সাথে জড়িত। সেইসাথে ওই সময় থেকেই তিনি পিতার কৃষি সংসারের দেখভালের পাশাপাশি স্থানীয়ভাবে ঔষধের ব্যবসা শুরু করেন। এক পর্যায়ে তিনি তৎকালীন সদর থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন। এরপর থেকে ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে পরিচিতি ও অবস্থান। পরবর্তী সম্মেলনে তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। সেই থেকে ৩ দফায় আছেন একই দায়িত্বে। রাজনৈতিক অঙ্গনে ব্যপ্তি বাড়ার পাশাপাশি তিনি নিজ এলাকা ভাতশালা ইউনিয়নে প্রথম নির্বাচনে অংশ নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এরপর আরও দু’দফায় নির্বাচিত হন চেয়ারম্যান পদে। ৩ দফায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ৩ দফায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের দায়িত্বে থাকার সুবাদে সদর উপজেলার দলীয় নেতা-কর্মীসহ সাধারণ মানুষের সাথে তার উঠা-বসা, মেলা-মেশার যথেষ্ট সুযোগ হয়। একজন সাদাসিধে ও সহজ-সরল প্রকৃতির মানুষ হিসেবে বেড়ে যায় তার পরিচিতি। এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলের বিদায়ী উপজেলা চেয়ারম্যানকে বাদ রেখে তার ভাগ্যে জুটে দলীয় মনোনয়ন। কিন্তু দলের আরও দু’জন নেতা বিদ্রোহ ঘোষণা করে নির্বাচনে অবতীর্ণ হয়। এছাড়া বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীর অংশগ্রহণে নির্বাচনে যোগ হয় ভিন্ন মাত্রা। কিন্তু আওয়ামী লীগের ভোটব্যাংক খ্যাত পূর্বাঞ্চলে একমাত্র প্রার্থী হওয়ায় এবং ভোটের রাজনীতিতে হিরো খ্যাত সদর আসন থেকে টানা ৫ দফায় নির্বাচিত সংসদ সদস্য, দ্বিতীয় দফার হুইপ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিউর রহমান আতিকের ক্যারিশমায় আস্তে আস্তে রফিকুল ইসলামের অবস্থান ভারি হতে থাকে। অবশেষে তা বিশাল বিজয়ে বর্তায় নির্বাচনী ফলাফলে। তার বিপরীতে লড়াই করা ৪ উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে নিকটতম প্রার্থী ব্যতীত অপর ৩ জনকেই হারাতে হয় জামানত। এছাড়া তার প্রাপ্ত ভোটের পরিমাণ দাড়ায় প্রতিদ্বন্দ্বী ৪ প্রার্থীর চেয়েও বেশি।
বিজয়োত্তর জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক বিজয় সমাবেশে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম তাকে বিজয়ী করার জন্য সদর উপজেলাবাসীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, আগামী দিনগুলোয় বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় এবং হুইপ আতিউর রহমান আতিক ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট চন্দন কুমার পালের সহযোগিতায় সদর উপজেলার সার্বিক উন্নয়ন তথা উপজেলাবাসীর ভাগ্যোন্নয়নে তিনি সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন। নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করার জন্য দলের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মীকে তিনি অভিনন্দন জানান ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

কারিগরি সহযোগিতায় BD iT Zone

error: Content is protected !!