সকাল ৭:৪৩ | বুধবার | ৫ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শ্রীবরদীতে ভূমিহীনদের উচ্ছেদের প্রতিবাদে মানববন্ধন

শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি ॥ শেরপুরের শ্রীবরদীর গোশাইপুর ইউনিয়নের উত্তর গিলাগাছা গ্রামের ১৩টি ভূমিহীন পরিবারকে উচ্ছেদ করে আশ্রয়ন প্রকল্প করার প্রতিবাদে এবং উচ্ছেদকৃত ভূমিহীনদের পূণর্বাসনের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৭ মার্চ বৃহস্পতিবার দুপুরে উত্তর গিলাগাছার কুচনীপাড়া সড়কে এক ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধন করেছে উচ্ছেদকৃত ভূমিহীন পরিবার ও এলাকাবাসী।
উপজেলা ভূমি অফিস সূত্রে জানা গেছে, গোশাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান এস এম যোবায়েল ২০১৭ সালের ৬ আগস্ট গিলাগাছা বন্দর গুচ্ছগ্রাম নামে একটি প্রকল্পের প্রস্তাব প্রেরণ করেন। ওই প্রস্তাবটি ২০১৭ সালের ২৪ আগস্ট গিলাগাছা বন্দর গুচ্ছগ্রাম নামে অনুমোদন হয় এবং মাটি ভরাট কাজের জন্য ১০৭.৭৩৮ মে.টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়। বরাদ্দ পাওয়ার পর ২০১৮ সালের ৪ জানুয়ারী থেকে ওই গুচ্ছগ্রামের কাজ শুরু করে কর্তৃপক্ষ।
মানববন্ধনে শ্রীবরদীর গোশাইপুর ইউনিয়নের গিলাগাছা গ্রামের উচ্ছেদকৃত ভূমিহীন পরিবারের পক্ষে আব্দুল হামিদ, রবিউল ইসলাম, আব্দুস ছাত্তার, রাজা মিয়া, বাদশা মিয়া, হযরত আলী, আব্দুল হান্নান, আশরাফ আলী, আবুল হোসেন বলেন, উত্তর গিলাগাছা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন আরএস ১১৫৩ নং দাগের ৩.৩২ একর ভূমিতে দীর্ঘদিন যাবত বসবাস করে আসছি। এখানে আমরা ঘর-বাড়ি নির্মাণ, গাছ-পালা রোপন, পুকুর খনন ও চাষাবাদ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছি। ওই ভূমি থেকে ৫০ শতাংশ রবিউলের নামে এবং ১.০৯ শতাংশ ভূমি আব্দুল হামিদের নামে শ্রীবরদী-গোশাইপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিস কর্তৃক নামজারী করা হয়েছে। একই ভূমিতে স্থাপিত হয়েছে উত্তর গিলাগাছা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। গুচ্ছগ্রাম প্রকল্পের সভাপতি ইউপি সদস্য আনিছুর রহমান। তিনি বরাদ্দ পাওয়ার পরই শুরু করেন মাটি ভরাটের কাজ। এ সময় বসতকৃত ১৫টি পরিবারের মধ্যে ১৩টি পরিবারকে উচ্ছেদ করা হয়। গ্রামবাসী এর প্রতিবাদ করলে কাজ বন্ধ রাখা হয়। তবে আবারো কাজ শুরু করার পায়তারা করছে বলে অভিযোগ তুলেছেন ভুক্তভোগিরা। এদিকে উচ্ছেদকৃত ১৩ টি ভূমিহীন পরিবার আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছে। একমাত্র মাথাগুজার ঠাই নিজেদের বসতভিটা গুচ্ছগ্রাম প্রকল্প কেড়ে নেওয়ায় চরম হতাশায় ভূগছে ওই পরিবারগুলোর সদস্যরা। এছাড়াও যে দুটি পরিবার রয়েছে তারাও রয়েছেন চরম উচ্ছেদ আতংকে।
ঘর-বাড়ি ভেঙ্গে ভূমিহীন পরিবারগুলোকে উচ্ছেদ করে যাতে গুচ্ছগ্রাম তৈরী না করতে পারে সেজন্য ভূক্তভোগী রবিউল ইসলাম ও আব্দুল হামিদ শেরপুর আদালতে অন্তর্বতীকালীন নিষেধাজ্ঞার জন্য মামলা দায়ের করেছেন। মামলার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বিবাদীগণ যাতে বাদী পক্ষের ভূমি জোরপূর্বক বেদখল করে গুচ্ছগ্রাম নির্মাণ করতে না পারে এ জন্য শেরপুর আদালত ওই ভূমিতে অন্তবর্তীকালীন নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। কিন্তু আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান এস.এম যোবায়েল ও গুচ্ছগ্রাম প্রকল্পের সভাপতি ইউপি সদস্য আনিছুর রহমান জোরপূর্বক প্রকল্পের কাজ করার পায়তারা করছে। এ ব্যাপারে গোশাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান এস.এম যোবায়েল জানান, মানববন্ধনের কথা শুনেছেন। তিনি বলেন, আশ্রয়ন প্রকল্পে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে উচ্ছেদকৃতদের ঘর বরাদ্দ দেওয়া হবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সেঁজুতি ধর বলেন, আশ্রয়ন প্রকল্পের কাজ শেষ হলে উচ্ছেদকৃত ভূমিহীন পরিবারদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ঘর বরাদ্দ দেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» শেরপুরে পৃথক ঘটনায় একদিনে পাঁচ শিশুসহ ৭ জনের মৃত্যু

» ঝিনাইগাতীতে ফাঁসিতে ঝুলে কৃষকের আত্মহত্যা

» নালিতাবাড়ীতে ইজিবাইকের চাপায় শিশুর মৃত্যু

» শ্রীবরদীতে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

» নালিতাবাড়ীতে নিখোঁজের ১২ ঘন্টা পর ১০ মাসের শিশুর লাশ উদ্ধার

» শেরপুরে মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু

» সিনহা রাশেদের মাকে প্রধানমন্ত্রীর ফোন, বিচারের আশ্বাস

» জামালপুরে পানিতে ডুবে ৩ শিশুর মৃত্যু

» শেরপুরে বন্যার্তদের মধ্যে প্রথম আলোর পক্ষ থেকে ত্রাণ বিতরণ

» দেশে করোনায় আরও ৫০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৯১৮

» ঝিনাইগাতীতে বজ্রপাতে স্কুলছাত্রীর মৃত্যু

» শেরপুরে অনলাইন নিউজপোর্টাল কালেরডাক২৪ডটকম’র উদ্বোধন করলেন হুইপ আতিক

» শেরপুরে সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করলেন জেলা প্রশাসক

» নালিতাবাড়ীতে শ্বশুরবাড়ি থেকে জামাইয়ের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

» নালিতাবাড়ীতে বজ্রপাতে কলেজছাত্রের মৃত্যু

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  সকাল ৭:৪৩ | বুধবার | ৫ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শ্রীবরদীতে ভূমিহীনদের উচ্ছেদের প্রতিবাদে মানববন্ধন

শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি ॥ শেরপুরের শ্রীবরদীর গোশাইপুর ইউনিয়নের উত্তর গিলাগাছা গ্রামের ১৩টি ভূমিহীন পরিবারকে উচ্ছেদ করে আশ্রয়ন প্রকল্প করার প্রতিবাদে এবং উচ্ছেদকৃত ভূমিহীনদের পূণর্বাসনের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৭ মার্চ বৃহস্পতিবার দুপুরে উত্তর গিলাগাছার কুচনীপাড়া সড়কে এক ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধন করেছে উচ্ছেদকৃত ভূমিহীন পরিবার ও এলাকাবাসী।
উপজেলা ভূমি অফিস সূত্রে জানা গেছে, গোশাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান এস এম যোবায়েল ২০১৭ সালের ৬ আগস্ট গিলাগাছা বন্দর গুচ্ছগ্রাম নামে একটি প্রকল্পের প্রস্তাব প্রেরণ করেন। ওই প্রস্তাবটি ২০১৭ সালের ২৪ আগস্ট গিলাগাছা বন্দর গুচ্ছগ্রাম নামে অনুমোদন হয় এবং মাটি ভরাট কাজের জন্য ১০৭.৭৩৮ মে.টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়। বরাদ্দ পাওয়ার পর ২০১৮ সালের ৪ জানুয়ারী থেকে ওই গুচ্ছগ্রামের কাজ শুরু করে কর্তৃপক্ষ।
মানববন্ধনে শ্রীবরদীর গোশাইপুর ইউনিয়নের গিলাগাছা গ্রামের উচ্ছেদকৃত ভূমিহীন পরিবারের পক্ষে আব্দুল হামিদ, রবিউল ইসলাম, আব্দুস ছাত্তার, রাজা মিয়া, বাদশা মিয়া, হযরত আলী, আব্দুল হান্নান, আশরাফ আলী, আবুল হোসেন বলেন, উত্তর গিলাগাছা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন আরএস ১১৫৩ নং দাগের ৩.৩২ একর ভূমিতে দীর্ঘদিন যাবত বসবাস করে আসছি। এখানে আমরা ঘর-বাড়ি নির্মাণ, গাছ-পালা রোপন, পুকুর খনন ও চাষাবাদ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছি। ওই ভূমি থেকে ৫০ শতাংশ রবিউলের নামে এবং ১.০৯ শতাংশ ভূমি আব্দুল হামিদের নামে শ্রীবরদী-গোশাইপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিস কর্তৃক নামজারী করা হয়েছে। একই ভূমিতে স্থাপিত হয়েছে উত্তর গিলাগাছা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। গুচ্ছগ্রাম প্রকল্পের সভাপতি ইউপি সদস্য আনিছুর রহমান। তিনি বরাদ্দ পাওয়ার পরই শুরু করেন মাটি ভরাটের কাজ। এ সময় বসতকৃত ১৫টি পরিবারের মধ্যে ১৩টি পরিবারকে উচ্ছেদ করা হয়। গ্রামবাসী এর প্রতিবাদ করলে কাজ বন্ধ রাখা হয়। তবে আবারো কাজ শুরু করার পায়তারা করছে বলে অভিযোগ তুলেছেন ভুক্তভোগিরা। এদিকে উচ্ছেদকৃত ১৩ টি ভূমিহীন পরিবার আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছে। একমাত্র মাথাগুজার ঠাই নিজেদের বসতভিটা গুচ্ছগ্রাম প্রকল্প কেড়ে নেওয়ায় চরম হতাশায় ভূগছে ওই পরিবারগুলোর সদস্যরা। এছাড়াও যে দুটি পরিবার রয়েছে তারাও রয়েছেন চরম উচ্ছেদ আতংকে।
ঘর-বাড়ি ভেঙ্গে ভূমিহীন পরিবারগুলোকে উচ্ছেদ করে যাতে গুচ্ছগ্রাম তৈরী না করতে পারে সেজন্য ভূক্তভোগী রবিউল ইসলাম ও আব্দুল হামিদ শেরপুর আদালতে অন্তর্বতীকালীন নিষেধাজ্ঞার জন্য মামলা দায়ের করেছেন। মামলার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বিবাদীগণ যাতে বাদী পক্ষের ভূমি জোরপূর্বক বেদখল করে গুচ্ছগ্রাম নির্মাণ করতে না পারে এ জন্য শেরপুর আদালত ওই ভূমিতে অন্তবর্তীকালীন নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। কিন্তু আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান এস.এম যোবায়েল ও গুচ্ছগ্রাম প্রকল্পের সভাপতি ইউপি সদস্য আনিছুর রহমান জোরপূর্বক প্রকল্পের কাজ করার পায়তারা করছে। এ ব্যাপারে গোশাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান এস.এম যোবায়েল জানান, মানববন্ধনের কথা শুনেছেন। তিনি বলেন, আশ্রয়ন প্রকল্পে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে উচ্ছেদকৃতদের ঘর বরাদ্দ দেওয়া হবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সেঁজুতি ধর বলেন, আশ্রয়ন প্রকল্পের কাজ শেষ হলে উচ্ছেদকৃত ভূমিহীন পরিবারদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ঘর বরাদ্দ দেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!