রাত ১১:১৩ | সোমবার | ৯ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শেরপুরে সাবেক ফারমার্স ব্যাংকের কর্মকর্তাদের দুর্নীতির প্রতিবাদে ঋণগ্রহীতাদের সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ শেরপুরে সাবেক ফারমার্স ব্যাংক লিমিটেড (বর্তমানে পদ্মা ব্যাংক লিমিটেড)’র পরিচালনা পর্ষদ ও কর্মকর্তাদের অনিয়ম-দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচারিতা ও গ্রাহক হয়রানীর প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৬ নভেম্বর শনিবার রাতে শেরপুর প্রেসক্লাবে ওই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন শেরপুরের ক্ষতিগ্রস্ত ঋণ গ্রাহকরা।
সংবাদ সম্মেলনে ক্ষতিগ্রস্ত ঋণ গ্রাহকদের পক্ষে আশরাফুল আলম সেলিম ও আব্দুল মোতালেব সাক্ষরিত লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ব্যবসায়ী সাইম আহম্মেদ খান। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, শেরপুরে পদ্মা ব্যাংক লিমিটেড (সাবেক ফারমার্স ব্যাংক লিমিটেড)’র প্রতিষ্ঠার পর পরিচালনা পর্ষদের একজন নির্বাহী কর্মকর্তাসহ স্থানীয় ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ অত্যন্ত চাতুরতার সাথে ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার প্রলোভন দেখিয়ে শেরপুরে প্রায় ৫শ জন সু-প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীকে তাদের গ্রাহক হিসেবে করায়ত্ব করে। এরপর মোটা অংকের ঋণ প্রদানের কথা বলে শুরু করে গ্রাহক হয়রানী। চাহিদামত ঋণ আবেদনের পরই চাহিদাকৃত টাকার বিপরীতে নগদ ১০% হারে উৎকোচ গ্রহণসহ আরও একাধিক খাতে গ্রহণ করা হয় মোটা অংকের টাকা। সব মিলিয়ে মঞ্জুরীকৃত ঋণের প্রায় ২৫% টাকা উৎকোচ হিসাবে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের পকেটস্থ হয়েছে। অন্যদিকে ঋণ প্রদানকালে ঋণগ্রহীতা জায়গা-সম্পত্তি ব্যাংকের অনুকূলে মর্টগেজ দেওয়ার পরও সিকিউরিটি মানি হিসেবে প্রদেয় ঋণের সমপরিমাণ অঙ্কের এবং কোন কোন ক্ষেত্রে সাক্ষরিত সাদা চেক রাখা হয়েছে গ্রাহকদের কাছ থেকে।
লিখিত বক্তব্যে আরও বলা হয়, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নে সহজ শর্তে উদ্যোক্তাদের ঋণ প্রদান ও ঋণ আদায়ে সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার জোর তাগিদ দিলে সকল বাণিজ্যিক ব্যাংকসহ বিভিন্ন প্রাইভেট ব্যাংক সিঙ্গেল ডিজিটের কার্যক্রম বাস্তবায়ন হাতে নিলেও ‘পদ্মা ব্যাংক লিমিটেড’ এর সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম। পদ্মা ব্যাংক সকল নিয়ম-নীতি অমান্য করে ক্ষেত্র বিশেষ ১৪ থেকে ১৭% সুদে ঋণ প্রদান ও ঋণ আদায় কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ফলে ঋণগ্রহণে মোটা অঙ্কের উৎকোচ গ্রহণ এবং ব্যবসায়িক মন্দার কারণে শেরপুর অঞ্চলের ঋণ গ্রাহকদের প্রায় ৯৫ ভাগই এখন খেলাপী হয়ে পড়েছেন। অথচ তাদেরকে সহায়তা না করে উল্টো ঋণের পরিমাণের চেয়ে বেশি টাকা দাবি করে দেশের বিভিন্ন আদালতে তাদের বিরুদ্ধে চেক ডিজঅনার ও অর্থঋণ আইনে মামলা দায়ের করা হচ্ছে। এজন্য সুদবিহীন মূল টাকা ন্যূন্যতম ১০ বছর মেয়াদে কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগ দেওয়ার দাবি জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যাংকের ঋণ গ্রাহক সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ইলিয়াস উদ্দিন, ব্যবসায়ী আব্দুল মোতালেব, ফরহাদ আলী, আব্দুর রউফসহ প্রায় অর্ধশতাধিক ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী ও স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» শ্রীবরদী সিআইজি মৎস্যচাষীদের মাঝে জাল বিতরণ

» নকলায় আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস পালিত

» ঝিনাইগাতীতে বেগম রোকেয়া দিবস পালিত

» শেরপুরে বেগম রোকেয়ার ১৩১তম জন্মদিন উপলক্ষে মহিলা পরিষদের আলোচনা সভা

» শেরপুরে বসুন্ধরা সিমেন্টের রিটেইলার সম্মেলন অনুষ্ঠিত

» আন্তর্জাতিক ক্রীড়াঙ্গনে ৪ বছর নিষিদ্ধ রাশিয়া

» শ্রীলংকাকে হারিয়ে স্বর্ণ জিতল বাংলাদেশ

» ‘সম্মেলনের আগে মন্ত্রিসভায় পরিবর্তনের সম্ভাবনা নেই’

» শুধু আইন করে নারী নির্যাতন বন্ধ হবে না : প্রধানমন্ত্রী

» শ্রীবরদীতে পুলিশের বিশেষ শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত

» শ্রীবরদীতে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস পালিত

» শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে আসে জ্ঞানার্জনে, লাশ হতে নয়: রাষ্ট্রপতি

» শেরপুরে পদ্মা ব্যাংকের অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে ঋণগ্রহীতাদের মানববন্ধন

» শেরপুরে বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের বিক্ষোভ সমাবেশ

» শেরপুরে দুর্নীতিবিরোধী দিবসে র‌্যালি, মানববন্ধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  রাত ১১:১৩ | সোমবার | ৯ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শেরপুরে সাবেক ফারমার্স ব্যাংকের কর্মকর্তাদের দুর্নীতির প্রতিবাদে ঋণগ্রহীতাদের সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ শেরপুরে সাবেক ফারমার্স ব্যাংক লিমিটেড (বর্তমানে পদ্মা ব্যাংক লিমিটেড)’র পরিচালনা পর্ষদ ও কর্মকর্তাদের অনিয়ম-দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচারিতা ও গ্রাহক হয়রানীর প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৬ নভেম্বর শনিবার রাতে শেরপুর প্রেসক্লাবে ওই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন শেরপুরের ক্ষতিগ্রস্ত ঋণ গ্রাহকরা।
সংবাদ সম্মেলনে ক্ষতিগ্রস্ত ঋণ গ্রাহকদের পক্ষে আশরাফুল আলম সেলিম ও আব্দুল মোতালেব সাক্ষরিত লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ব্যবসায়ী সাইম আহম্মেদ খান। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, শেরপুরে পদ্মা ব্যাংক লিমিটেড (সাবেক ফারমার্স ব্যাংক লিমিটেড)’র প্রতিষ্ঠার পর পরিচালনা পর্ষদের একজন নির্বাহী কর্মকর্তাসহ স্থানীয় ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ অত্যন্ত চাতুরতার সাথে ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার প্রলোভন দেখিয়ে শেরপুরে প্রায় ৫শ জন সু-প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীকে তাদের গ্রাহক হিসেবে করায়ত্ব করে। এরপর মোটা অংকের ঋণ প্রদানের কথা বলে শুরু করে গ্রাহক হয়রানী। চাহিদামত ঋণ আবেদনের পরই চাহিদাকৃত টাকার বিপরীতে নগদ ১০% হারে উৎকোচ গ্রহণসহ আরও একাধিক খাতে গ্রহণ করা হয় মোটা অংকের টাকা। সব মিলিয়ে মঞ্জুরীকৃত ঋণের প্রায় ২৫% টাকা উৎকোচ হিসাবে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের পকেটস্থ হয়েছে। অন্যদিকে ঋণ প্রদানকালে ঋণগ্রহীতা জায়গা-সম্পত্তি ব্যাংকের অনুকূলে মর্টগেজ দেওয়ার পরও সিকিউরিটি মানি হিসেবে প্রদেয় ঋণের সমপরিমাণ অঙ্কের এবং কোন কোন ক্ষেত্রে সাক্ষরিত সাদা চেক রাখা হয়েছে গ্রাহকদের কাছ থেকে।
লিখিত বক্তব্যে আরও বলা হয়, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নে সহজ শর্তে উদ্যোক্তাদের ঋণ প্রদান ও ঋণ আদায়ে সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার জোর তাগিদ দিলে সকল বাণিজ্যিক ব্যাংকসহ বিভিন্ন প্রাইভেট ব্যাংক সিঙ্গেল ডিজিটের কার্যক্রম বাস্তবায়ন হাতে নিলেও ‘পদ্মা ব্যাংক লিমিটেড’ এর সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম। পদ্মা ব্যাংক সকল নিয়ম-নীতি অমান্য করে ক্ষেত্র বিশেষ ১৪ থেকে ১৭% সুদে ঋণ প্রদান ও ঋণ আদায় কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ফলে ঋণগ্রহণে মোটা অঙ্কের উৎকোচ গ্রহণ এবং ব্যবসায়িক মন্দার কারণে শেরপুর অঞ্চলের ঋণ গ্রাহকদের প্রায় ৯৫ ভাগই এখন খেলাপী হয়ে পড়েছেন। অথচ তাদেরকে সহায়তা না করে উল্টো ঋণের পরিমাণের চেয়ে বেশি টাকা দাবি করে দেশের বিভিন্ন আদালতে তাদের বিরুদ্ধে চেক ডিজঅনার ও অর্থঋণ আইনে মামলা দায়ের করা হচ্ছে। এজন্য সুদবিহীন মূল টাকা ন্যূন্যতম ১০ বছর মেয়াদে কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগ দেওয়ার দাবি জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যাংকের ঋণ গ্রাহক সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ইলিয়াস উদ্দিন, ব্যবসায়ী আব্দুল মোতালেব, ফরহাদ আলী, আব্দুর রউফসহ প্রায় অর্ধশতাধিক ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী ও স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!