শেরপুরে সরিষা চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের

খোরশেদ আলম, ঝিনাইগাতী (শেরপুর) ॥ শেরপুরে সরিষা চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের। সরিষা চাষ স¦ল্প সময়ে উৎপাদনশীল একটি লাভজনক রবিশস্য ফসল হওয়ায় এ জেলায় দিনে দিনে সরিষা চাষ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। বৃদ্ধি পাচ্ছে কৃষকের সংখ্যা।
অতীতে এ জেলার কৃষকরা নিজেদের ব্যবহারের জন্য শুধু সরিষা চাষ করতো। কিন্তু আমন ফসল ঘরে তুলার পর স্বল্প সময়ে এ চাষ একটি লাভজনক ফসল হওয়ায় এখন বানিজ্যিকভাবে চাষাবাদ শুরু করেছে কৃষকরা। এ চাষের পাশাপাশি এখান থেকে উৎপাদন হচ্ছে প্রকৃতির বিশুদ্ধ মধু। বর্তমানে জেলার বিভিন্ন অঞ্চলের মাঠ সরিষার হলুদ ফুলে ভরে উঠেছে। সরিষার ওইসব হলুদ ফুলে ভরে উঠা মাঠের দিকে তাকালে প্রাকৃতিক দৃশ্যই যেন হাতছানি দেয়, হলুদ ফুলে হারিয়ে যেতে। প্রকৃতির হলুদ ফুলে মৌমাছিরা মনের আনন্দে যেমন মধু সংগ্রহের নেশায় ছুটে আসে সরিষা ক্ষেতে। তেমনি সরিষা চাষ লাভজনক হওয়ায় চাষিরাও মনের আনন্দে ঝুকে পড়েছে সরিষা চাষে।
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ও কৃষকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, সরিষা চাষে কৃষকদের প্রতি হেক্টর জমিতে উৎপাদন খরচ হয় ২০ হাজার টাকা। আর উৎপাদিত সরিষা বিক্রি হয় প্রায় ১লাখ টাকা। আমন ধান কাটার পর বোরো মৌসুমের পূর্বেই সরিষা ৮০-৯০ দিনের মধ্যেই কৃষকরা অনায়াসে ঘরে তুলতে পারে এ ফসলটি। সরিষা ঘরে তুলার পর সরিষা আবাদকৃত জমি উর্বরতা বৃদ্ধি পাওয়ায় এসব জমিতে বোরো উৎপাদনও হয় বেশি।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, এ বছর শেরপুর জেলায় ৬ হাজার ৮৭০ হেক্টর জমিতে সরিষার আবাদ হয়েছে। শেরপুর সদর উপজেলায় গত বছর সরিষার আবাদ হয়েছিল ২ হাজার হেক্টর জমিতে। এবার আবাদ হয়েছে ৬হাজার ৮৭০ হেক্টর জমিতে। এ উপজেলায় সরিষা চাষীর সংখ্যা প্রায় ৮ হাজার। ঝিনাইগাতী উপজেলায় গত বছর সরিষা আবাদ হয়েছিল ১৫০ হেক্টর জমিতে। এবার আবাদ হয়েছে ৩৫০ হেক্টর জমিতে। এ উপজেলায় সরিষা চাষীর সংখ্যা প্রায় ১ হাজার। শ্রীবরদী উপজেলায় গত বছর সরিষার আবাদ হয়েছিল ৯৭০ হেক্টর জমিতে। এবার আবাদ হয়েছে ১ হাজার ৩৮০ হেক্টর জমিতে। এ উপজেলায় সরিষা চাষীর সংখ্যা প্রায় ৬ হাজার। নালিতাবাড়ী উপজেলায় গত বছর আবাদ হয়েছিল ৯৫০ হেক্টর। নকলা উপজেলায় গত বছর সরিষার আবাদ হয়েছিল ৯শ ৫০ হেক্টর জমিতে। এবার আবাদ হয়েছে ১হাজার ৪৫০ হেক্টর জমিতে। এ উপজেলায় সরিষা চাষীর সংখ্যা প্রায় ৭ হাজার।
এ ব্যাপারে জেলা খামারবাড়ীর উপ-পরিচালক আশরাফ উদ্দিন বলেন, এবার জেলায় সরিষার ক্ষেতে ৫৫০ জন মৌচাষি প্রাকৃতিক উপায়ে ৩ মেট্রিক টন মধু সংগ্রহের লক্ষমাত্রা নিয়ে কাজ করে আসছেন। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের উদ্যোগ ও পরামর্শে আগামীতে সরিষা আবাদের পরিমাণ আরও বৃদ্ধি পাবে।

আপনার মতামত দিন

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

error: Content is protected !!