সকাল ১০:৪২ | সোমবার | ২৫শে মে, ২০২০ ইং | ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শেরপুরে ভুল চিকিৎসায় গর্ভের সন্তান হত্যার অভিযোগ ॥ চিকিৎসক ও নার্স পলাতক

স্টাফ রিপোর্টার ॥ শেরপুরে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় গর্ভের সন্তান মেরে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। ৪ নভেম্বর সোমবার রাতে শহরের গোপালবাড়ীস্থ ‘শেরপুর ইউনাইটেড হসপিটাল’ এ ওই ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরে অস্ত্রোপচারকৃত প্রসূতির চিকিৎসা না দিয়ে ওই হাসপাতালে কর্মরত চিকিৎসক ও নার্স কৌশলে পালিয়ে যায়। অবস্থা গুরুতর হলে পরে ওই প্রসূতিকে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার বিকেলে জেলা সদর হাসপাতালে ওই নবজাতকের ময়নাতদন্তের প্রস্তুতি চলছে। এ নিয়ে শহরে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে।
জানা যায়, শেরপুর শহরের উত্তর গৌরীপুর (খোয়ারপাড়) মহল্লার শাহিনুর রহমান পনিরের স্ত্রী তানিয়া (২২) সন্তানসম্ভবা হওয়ার পর থেকেই শহরের গোপালবাড়ীর প্রাক্তন পারভীন ক্লিনিক বর্তমানে ইউনাইটেড হসপিটালের চিকিৎসক ডাঃ হাসিনাতুল ফেরদৌস লোপা’র তত্ত্বাবধানে ছিলেন। সোমবার সকালে ওই অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হলে তাকে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা শুরু করান। এরপর গৃহবধূর ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডাঃ লোপার কাছে পরামর্শ করতে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তার স্বামী মিলন ফোন রিসিভ করে বিভিন্ন ঔষধ খাওয়ার পরামর্শ দেন। পরে বিকেলে ওই চিকিৎসকের স্বামী রোগীর স্বামীকে ফোন করে গর্ভের সন্তানের নানা রকম ক্ষতির ভয়-ভীতি দেখিয়ে তার নিজস্ব ইউনাইটেড হসপিটালে ভর্তি হওয়ার জন্য চাপ দেয়। ওই অবস্থায় রাত সাড়ে ৮টার দিকে তানিয়াকে সেখানে ভর্তি করলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গর্ভের সন্তান ক্ষতির শঙ্কা দেখিয়ে বার বার নিষেধ সত্বেও রাত সাড়ে ১০টার দিকে মিলনের ছোট ভাইয়ের স্ত্রী ডাঃ মুসলিমা আক্তার মৌসুমী তানিয়াকে অস্ত্রোপচার করলে তার গর্ভের সন্তান মারা যায়। এদিকে বাচ্চা মারা যাওয়ার পর প্রসূতির স্বজনরা চিৎকার শুরু করলে প্রথমে তাদের মারধর করে হাসপাতাল থেকে বের করে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। বিষয়টি বেশী জানাজানি হলে এক পর্যায়ে হাসপাতালের সকল নার্স ও চিকিৎসক কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে তানিয়ার অবস্থা খারাপের দিকে গেলে তানিয়ার স্বজনরা তাকে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে নিয়ে যান।
মঙ্গলবার বিকেলে গৃহবধূর স্বামী শাহিনুর রহমান পনির অভিযোগ করে বলেন, নবজাতক শিশুর শরীরের নানা স্থানে কাটা-ছেঁড়ার দাগ রয়েছে। বার বার নিষেধ করা সত্ত্বেও তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর সিজার করতে গিয়ে গর্ভের সন্তানকে মেরে ফেলা হয়েছে। এজন্য ইউনাইটেড হসপিটালের সংশ্লিষ্টরাই দায়ী। তিনি আরও বলেন, ঘটনার বিষয়ে মঙ্গলবার দুপুরে সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গেলে তাকে মৃত সন্তানের ময়নাতদন্ত ও দাফন-কাফন সেরে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।
এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে রাতেই ওই মৃত শিশু ও তার মাকে জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। হাসপাতাল মর্গে মৃত শিশুর ময়নাতদন্তের প্রস্তুতি চলছে। ঘটনার বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ঈদ পালন করুন : কাদের

» তিনটি জীবন্ত ‘করোনা ভাইরাস’ ছিল উহানের ল্যাবে!

» ঘরে বসেই ঈদের আনন্দ উপভোগ করার অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর

» শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে, কাল ঈদ

» সাধারণ ছুটি বাড়বে কিনা সিদ্ধান্ত বৃহস্পতিবার: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

» শেরপুরে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করলেন হুইপ আতিক

» শেরপুরের ৭ গ্রামে আগাম ঈদুল ফিতর পালিত

» সাবেক এমপি শ্যামলী ॥ মানবতার এক অনন্য ফেরীওয়ালা

» শেরপুরে পত্রিকার হকারদের মাঝে পুলিশের ঈদ উপহার

» শেরপুরে আরও দুইজনের করোনা শনাক্ত ॥ জেলায় মোট আক্রান্ত ৭৭

» ঈদে শবনম ফারিয়ার চমক

» করোনায় একদিনে রেকর্ড ২৮ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ১৫৩২

» শেরপুরে ৩ হাজার দরিদ্র ও অসহায় পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার পৌঁছে দিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান

» শেরপুরের সূর্যদীর সেই শহীদ পরিবার ও যুদ্ধাহত পরিবারগুলোর পাশে জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব

» শেরপুরে ৯৬ শিক্ষার্থীর ভাড়া মওকুফ করে দিলেন ছাত্রাবাসের মালিক

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  সকাল ১০:৪২ | সোমবার | ২৫শে মে, ২০২০ ইং | ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শেরপুরে ভুল চিকিৎসায় গর্ভের সন্তান হত্যার অভিযোগ ॥ চিকিৎসক ও নার্স পলাতক

স্টাফ রিপোর্টার ॥ শেরপুরে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় গর্ভের সন্তান মেরে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। ৪ নভেম্বর সোমবার রাতে শহরের গোপালবাড়ীস্থ ‘শেরপুর ইউনাইটেড হসপিটাল’ এ ওই ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরে অস্ত্রোপচারকৃত প্রসূতির চিকিৎসা না দিয়ে ওই হাসপাতালে কর্মরত চিকিৎসক ও নার্স কৌশলে পালিয়ে যায়। অবস্থা গুরুতর হলে পরে ওই প্রসূতিকে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার বিকেলে জেলা সদর হাসপাতালে ওই নবজাতকের ময়নাতদন্তের প্রস্তুতি চলছে। এ নিয়ে শহরে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে।
জানা যায়, শেরপুর শহরের উত্তর গৌরীপুর (খোয়ারপাড়) মহল্লার শাহিনুর রহমান পনিরের স্ত্রী তানিয়া (২২) সন্তানসম্ভবা হওয়ার পর থেকেই শহরের গোপালবাড়ীর প্রাক্তন পারভীন ক্লিনিক বর্তমানে ইউনাইটেড হসপিটালের চিকিৎসক ডাঃ হাসিনাতুল ফেরদৌস লোপা’র তত্ত্বাবধানে ছিলেন। সোমবার সকালে ওই অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হলে তাকে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা শুরু করান। এরপর গৃহবধূর ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডাঃ লোপার কাছে পরামর্শ করতে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তার স্বামী মিলন ফোন রিসিভ করে বিভিন্ন ঔষধ খাওয়ার পরামর্শ দেন। পরে বিকেলে ওই চিকিৎসকের স্বামী রোগীর স্বামীকে ফোন করে গর্ভের সন্তানের নানা রকম ক্ষতির ভয়-ভীতি দেখিয়ে তার নিজস্ব ইউনাইটেড হসপিটালে ভর্তি হওয়ার জন্য চাপ দেয়। ওই অবস্থায় রাত সাড়ে ৮টার দিকে তানিয়াকে সেখানে ভর্তি করলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গর্ভের সন্তান ক্ষতির শঙ্কা দেখিয়ে বার বার নিষেধ সত্বেও রাত সাড়ে ১০টার দিকে মিলনের ছোট ভাইয়ের স্ত্রী ডাঃ মুসলিমা আক্তার মৌসুমী তানিয়াকে অস্ত্রোপচার করলে তার গর্ভের সন্তান মারা যায়। এদিকে বাচ্চা মারা যাওয়ার পর প্রসূতির স্বজনরা চিৎকার শুরু করলে প্রথমে তাদের মারধর করে হাসপাতাল থেকে বের করে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। বিষয়টি বেশী জানাজানি হলে এক পর্যায়ে হাসপাতালের সকল নার্স ও চিকিৎসক কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে তানিয়ার অবস্থা খারাপের দিকে গেলে তানিয়ার স্বজনরা তাকে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে নিয়ে যান।
মঙ্গলবার বিকেলে গৃহবধূর স্বামী শাহিনুর রহমান পনির অভিযোগ করে বলেন, নবজাতক শিশুর শরীরের নানা স্থানে কাটা-ছেঁড়ার দাগ রয়েছে। বার বার নিষেধ করা সত্ত্বেও তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর সিজার করতে গিয়ে গর্ভের সন্তানকে মেরে ফেলা হয়েছে। এজন্য ইউনাইটেড হসপিটালের সংশ্লিষ্টরাই দায়ী। তিনি আরও বলেন, ঘটনার বিষয়ে মঙ্গলবার দুপুরে সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গেলে তাকে মৃত সন্তানের ময়নাতদন্ত ও দাফন-কাফন সেরে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।
এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে রাতেই ওই মৃত শিশু ও তার মাকে জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। হাসপাতাল মর্গে মৃত শিশুর ময়নাতদন্তের প্রস্তুতি চলছে। ঘটনার বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!