শেখ হাসিনার যাদুতে দেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন ॥ নালিতাবাড়ীতে মতিয়া চৌধুরী

নালিতাবাড়ী (শেরপুর) প্রতিনিধি ॥ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, কৃষি মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, সাবেক কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, শেখ হাসিনার সাফল্য হলো ফসলে। তার হাতে যাদু আছে, তাই দেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন হয়েছে। ১৯৯৬ সালে সরকার গঠন করে ১৯৯৮ সালে আমরা খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন হয়েছি। এই মাটি এই মানুষই ছিল। বরং মানুষ কম ছিল মাটি বেশি ছিল। ২০০১ সালে দেশে আবার খাদ্য ঘাটতি হয়। ২০০৯ সালে সরকার গঠন করে আমরা আবার খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন হয়েছি। কিছু চাল রপ্তানীও করছি। নেপালে ভূমিকম্পের সময় আমরা সাহায্য করেছি। বাংলাদেশ কোনদিন অন্য দেশকে খাদ্যে সাহায্য করবে, এটা আমাদের পূর্ব পুরুষরাও ভাবেনি। আজকে জমি কম, মানুষ বেশি। তারপরও আমরা এই অসাধ্যকে সাধন করতে সক্ষম হয়েছি। শেখ হাসিনার যোগ্যতা দিয়েই তিনি এই জায়গায় দেশটাকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন। তিনি ১৯ মে রবিবার দুপুরে যোগানিয়া ইউনিয়নের কাপাসিয়া শহিদ স্মৃতি নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে নিজ তহবিল থেকে তার নির্বাচনী এলাকা শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার শিক্ষার্থীদের মেধার ভিত্তিতে প্রণোদনা হিসেবে থ্রি পিস ও গরিব অসহায়দের মাঝে ঈদুল ফিতরের শাড়ি বিতরণকালে ওইসব কথা বলেন।
মতিয়া চৌধুরী বলেন, সারা পৃথিবীতে প্লেগ রোগ হয়, কলেরা হয়, গুটি বসন্ত হয়। ঠিক তেমনি জঙ্গিবাদ একটি রোগ। এই জঙ্গিবাদ আমাদের অনেক অগ্রগতিকে নষ্ট করে দিতে চায়। ঈদের জামাতে বোমা মেরে ইসলাম কায়েম করতে চায়। শবে-বরাতের রাতে বাসে, ট্রেনে পেট্রোল বোমা মেরে ইসলাম কায়েম করা হয়- এটা আমরা কোন মুসলমান বিশ্বাস করতে পারি না।
তিনি বলেন, এ দেশে আইটি আসবে এটা কেউ ভাবেনি। আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রীর সুযোগ্য সন্তান সজিব ওয়াজেদ জয় আইটি দিয়ে মোবাইলে অংক শিখিয়ে দিয়েছে। যে এক লিখতে পারতো না, সে এখন মোবাইলে এক লিখতে জানে।
এদিন বেগম মতিয়া চৌধুরী তার নিজস্ব তহবিল থেকে পৌরনভাসহ ১০টি ইউনিয়নের মেধাবী ৫১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৫৫১ জন শিক্ষার্থী ও ২২শ’ অসহায় নারীদের মাঝে ঈদুল ফিতরের শাড়ি ও মেয়েদের থ্রী পিচ বিতরণ করেন। ওইসময় তার সাথে স্পেশাল পিপি এডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু, সহকারী পুলিশ সুপার (নালিতাবাড়ী সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) লুবনা শারমীন, আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সবুর, যুগ্ম সম্পাদক ওয়াজকুরুনীসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত দিন

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

error: Content is protected !!