সন্ধ্যা ৭:৫৭ | সোমবার | ৩০শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শতবর্ষে পা দিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ বলতেই এক কথায় বুঝানো হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে। ১৯২১ সালের এ দিনে যাত্রা শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়টি। এরপর স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায়, জাতির মনন গঠনে বিশ্ববিদ্যালয়টির ভূমিকা অনন্য। আজকের এ দিনে বিশ্ববিদ্যালয়টি পা দিচ্ছে শতবর্ষে।
শতবর্ষ উপলক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান শুভেচ্ছা বাণীতে বলেন, ‘পহেলা জুলাই ২০২০। ৯৯ বছর শেষ করে এদিন শতবর্ষে পা দিবে আমাদের এই চিরতরুণ প্রতিষ্ঠান। করোনার উদ্ভূত পরিস্থিতিতে লোকসমাবেশ এড়িয়ে প্রাণপ্রিয় ছাত্র-ছাত্রীবিহীন স্বল্পপরিসরে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আয়োজনে নি:সন্দেহে আনন্দ, প্রশান্তি ও স্বস্তির ঘাটতি অনস্বীকার্য। তবে মুজিববর্ষের এই অলোকসামান্য কালপর্বে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এবারের বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের তাত্পর্য অত্যন্ত গভীর ও ব্যাপক।’ তিনি আরো বলেন, প্রকৃতপক্ষে, বঙ্গবন্ধু এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ নামক আমাদের প্রাণপ্রিয় মাতৃভূমির দুই অন্তহীন প্রেরণা-উত্স। জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষে পালিত হওয়ায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস ২০২০ লাভ করবে এক অনন্য মাত্রা।

img-add

উপচার্য আরো বলেন, শিক্ষা ও গবেষণার বিস্তার, মুক্তচিন্তার উন্মেষ ও বিকাশ এবং সৃজনশীল কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে নতুন ও মৌলিক জ্ঞান সৃষ্টির লক্ষ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। তিনটি অনুষদ, ১২টি বিভাগ, ৬০ জন শিক্ষক, ৮৪৭ জন শিক্ষার্থী এবং তিনটি আবাসিক হল নিয়ে ১৯২১ সালের ১ জুলাই এই বিশ্ববিদ্যালয়ের যাত্রা শুরু হয়েছিল। ২০২১ সালে আমাদের অস্তিত্বপ্রতিম এই প্রতিষ্ঠান শতবর্ষপূর্তি উদ্যাপন করবে। বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীও একই বছর উদ্যাপিত হবে। তাই এটি হবে আমাদের জন্য এক বিশেষ মর্যাদা, সম্মান, আবেগ, অনুভূতির সংশ্লেষে গৌরবদীপ্ত বছর।
তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসের অতিসংক্রমণের কারণে সমগ্র বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশও গভীর সংকটময় মুহূর্ত অতিক্রম করছে। আশার কথা এই যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্যবৃন্দ বিশেষ করে বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থী জাতীয় দুর্যোগ মোকাবিলায় মানবিক সহায়তায় এগিয়ে এসেছে। তাদের প্রতি অসীম কৃতজ্ঞতা।
তিনি বলেন, বাংলাদেশের বিস্ময়কর অভিযাত্রার নিরবচ্ছিন্ন সঙ্গী হয়ে এই জ্ঞানপীঠ যেন আরো বেশি করে পৃথিবীর সাম্প্রতিকতম জ্ঞানকে আয়ত্ব্ব করার সাধনায় নিয়োজিত থাকতে পারে আর মৌলিক গবেষণার সম্প্রসারণ এবং শিক্ষার গুণগত মান ও পরিবেশ উন্নয়ন ঘটাতে পারে, সেই প্রত্যাশায় আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস ২০২০-কে সফল করে তুলি।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» শেরপুরে মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে যুবলীগের বিক্ষোভ মিছিল

» শেরপুরে স্বাস্থ্য সহকারীদের কর্মবিরতি ॥ ভোগান্তিতে শিশু ও গর্ভবতী নারীসহ সেবাপ্রার্থীরা

» শ্রীবরদীতে স্কুলছাত্রী ধর্ষণ, ধর্ষক পলাতক

» শেরপুরে মেয়র মনোনয়নপ্রত্যাশী আ’লীগ নেতা আধারের গণসংযোগ অব্যাহত

» জয়কে ১নং সদস্য করে পীরগঞ্জ আ’লীগের কমিটি অনুমোদন

» ১৩ তম জাতীয় আয়কর দিবস আজ

» চেলসিকে রুখে দিয়ে শীর্ষে ফিরলো টটেনহ্যাম

» বিয়ে করছেন অঙ্কুশ-ঐন্দ্রিলা

» দ্বিতীয় ধাপে ৬০ পৌরসভার ভোট জানুয়ারির মধ্যভাগে

» শেরপুরে বিএডিসির বীজ হিমাগার পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক

» চুল পড়া বন্ধ করবে ভেষজ চা

» ৯০ মিলিয়ন ডলারের সম্পদ রেখে গেছেন ম্যারাডোনা

» ঢাকা থেকে পায়রা বন্দর পর্যন্ত রেলপথ হবে : প্রধানমন্ত্রী

» শেরপুরের মনিরুজ্জামান স্যার আর নেই

» ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডে বাংলাদেশের মডেল ইশরাত তন্বী

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  সন্ধ্যা ৭:৫৭ | সোমবার | ৩০শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শতবর্ষে পা দিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ বলতেই এক কথায় বুঝানো হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে। ১৯২১ সালের এ দিনে যাত্রা শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়টি। এরপর স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায়, জাতির মনন গঠনে বিশ্ববিদ্যালয়টির ভূমিকা অনন্য। আজকের এ দিনে বিশ্ববিদ্যালয়টি পা দিচ্ছে শতবর্ষে।
শতবর্ষ উপলক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান শুভেচ্ছা বাণীতে বলেন, ‘পহেলা জুলাই ২০২০। ৯৯ বছর শেষ করে এদিন শতবর্ষে পা দিবে আমাদের এই চিরতরুণ প্রতিষ্ঠান। করোনার উদ্ভূত পরিস্থিতিতে লোকসমাবেশ এড়িয়ে প্রাণপ্রিয় ছাত্র-ছাত্রীবিহীন স্বল্পপরিসরে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আয়োজনে নি:সন্দেহে আনন্দ, প্রশান্তি ও স্বস্তির ঘাটতি অনস্বীকার্য। তবে মুজিববর্ষের এই অলোকসামান্য কালপর্বে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এবারের বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের তাত্পর্য অত্যন্ত গভীর ও ব্যাপক।’ তিনি আরো বলেন, প্রকৃতপক্ষে, বঙ্গবন্ধু এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ নামক আমাদের প্রাণপ্রিয় মাতৃভূমির দুই অন্তহীন প্রেরণা-উত্স। জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষে পালিত হওয়ায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস ২০২০ লাভ করবে এক অনন্য মাত্রা।

img-add

উপচার্য আরো বলেন, শিক্ষা ও গবেষণার বিস্তার, মুক্তচিন্তার উন্মেষ ও বিকাশ এবং সৃজনশীল কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে নতুন ও মৌলিক জ্ঞান সৃষ্টির লক্ষ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। তিনটি অনুষদ, ১২টি বিভাগ, ৬০ জন শিক্ষক, ৮৪৭ জন শিক্ষার্থী এবং তিনটি আবাসিক হল নিয়ে ১৯২১ সালের ১ জুলাই এই বিশ্ববিদ্যালয়ের যাত্রা শুরু হয়েছিল। ২০২১ সালে আমাদের অস্তিত্বপ্রতিম এই প্রতিষ্ঠান শতবর্ষপূর্তি উদ্যাপন করবে। বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীও একই বছর উদ্যাপিত হবে। তাই এটি হবে আমাদের জন্য এক বিশেষ মর্যাদা, সম্মান, আবেগ, অনুভূতির সংশ্লেষে গৌরবদীপ্ত বছর।
তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসের অতিসংক্রমণের কারণে সমগ্র বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশও গভীর সংকটময় মুহূর্ত অতিক্রম করছে। আশার কথা এই যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্যবৃন্দ বিশেষ করে বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থী জাতীয় দুর্যোগ মোকাবিলায় মানবিক সহায়তায় এগিয়ে এসেছে। তাদের প্রতি অসীম কৃতজ্ঞতা।
তিনি বলেন, বাংলাদেশের বিস্ময়কর অভিযাত্রার নিরবচ্ছিন্ন সঙ্গী হয়ে এই জ্ঞানপীঠ যেন আরো বেশি করে পৃথিবীর সাম্প্রতিকতম জ্ঞানকে আয়ত্ব্ব করার সাধনায় নিয়োজিত থাকতে পারে আর মৌলিক গবেষণার সম্প্রসারণ এবং শিক্ষার গুণগত মান ও পরিবেশ উন্নয়ন ঘটাতে পারে, সেই প্রত্যাশায় আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস ২০২০-কে সফল করে তুলি।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!