সকাল ১০:৩৯ | মঙ্গলবার | ২৮শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং | ১৫ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মিয়ানমারকে বিশ্বাস করা যায় না: গাম্বিয়া

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : রোহিঙ্গা মুসলিম জনগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সহিংসতায় অভিযুক্ত সৈন্যদের মিয়ানমার বিচার করবে এবং সহিংসতা বন্ধে অবিলম্বে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে- এটা বিশ্বাস করা যায় না। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর গণহত্যার অভিযোগে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে নেদারল্যান্ডসের হেগে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসিজে) দায়ের করা মামলার তৃতীয় দিনের শুনানিতে বৃহস্পতিবার গাম্বিয়ার আইনজীবী পাল রাখলার এ কথা বলেন। খবর রয়টার্সের
১৯৪৮ সালের গণহত্যা সনদের অধীনে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়ার করা মামলার তৃতীয় ও শেষ দিনের শুনানিতেও বাদী পক্ষের আইনজীবীরা মামলাটির শুনানি সম্পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে সহিংস কর্মকাণ্ড থেকে বিরত রাখার জন্য ‘অন্তর্বর্তীকালীন পদক্ষেপে’র দাবি জানান।
পল রাখলার বলেন, মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে সহিংসতার গুরুতর যেসব অভিযোগ উঠেছে শুনানিতে তারা এমনকি এগুলো অস্বীকার করার চেষ্টাও করেননি। এ ছাড়া ২০১৭ সালে নির্মূল অভিযান শুরুর পর গণহারে রোহঙ্গাদের দেশ ছেড়ে চলে যাওয়ার বিষয়টিও তার অস্বীকার করার চেষ্টা করেননি। এছাড়া অভিযুক্ত সেনা সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে যে বিবৃতি মিয়ানমার দিয়েছে সেটাকেও অবিশ্বাস্য বলে উল্লেখ করেন তিনি।

img-add

রাখলার বলেন, রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে গণহত্যার অভিযোগে টাটমাডো (মিয়ানমারের সেনাবাহিনী) নিজেদের বিচার করবে- এটা কীভাবে কেউ বিশ্বাস করবে, যেখানে এই বাহিনীরই প্রধান সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইংসহ শীর্ষস্থানীয় ছয় জেনারেলকে গণহত্যায় অভিযুক্ত করার পাশাপাশি অপধারী হিসেবে বিচারের সুপারিশ করেছে জাতিসংঘের ফ্যাক্ট-ফাইন্ডিং মিশন।
বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টায় তৃতীয় দিনের শুনানি শুরু হয়। এদিনের শুনানিতে গাম্বিয়ার পর মিয়ানমার তাদের যুক্তি তুলে ধরার সুযোগ পাবে। তবে তিন দিনের এই শুনানি শেষে কবে রায় ঘোষণা করা হবে সে বিষয়ে এখনও কিছু বলা হয়নি।
এর আগে মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক আদালতে শুনানির প্রথম দিনে গাম্বিয়া তাদের বক্তব্য তুলে ধরে। ওই দিন মিয়ানমারে গণহত্যা বন্ধের নির্দেশ দিতে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের (আইসিজে) প্রতি আহ্বান জানায় গাম্বিয়া। এরপর বুধবার শুনানিতে মিয়ানমারের পক্ষে বক্তব্য দেন দেশটির স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চি। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর গণহত্যা চালানোর অভিযোগে করা মামলাটি ‘অসম্পূর্ণ’ ও ‘বিভ্রান্তিকর’ বলে দাবি করেন সু চি।
‘ওয়ার্ল্ড কোর্ট’ বা বিশ্ব আদালত হিসেবে পরিচিত আইসিজেতে গত মাসে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মামলাটি করে গাম্বিয়া। এতে কূটনৈতিক ও আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে ওআইসি। শুনানি শুরুর আগের দিন গাম্বিয়ার উদ্যোগকে সমর্থন দেয় কানাডা ও নেদারল্যান্ডস।

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» অর্থাভাবে হৃদযন্ত্রের অস্ত্রোপচার করাতে পারছেন না শেরপুরের হতদরিদ্র স্বপন

» মুজিববর্ষে হাত ধুয়ে বিশ্ব রেকর্ডের পরিকল্পনা

» আবারও মা হতে চলছেন ঐশ্বরিয়া!

» চীনে অবস্থানরত বাংলাদেশি নাগরিকদের ফিরিয়ে আনার নিদের্শ প্রধানমন্ত্রীর

» ঢাকা ২ সিটি নির্বাচনে মাঠে থাকবে ৬৫ প্লাটুন বিজিবি

» বিএনপি ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশকে অশান্ত করার চেষ্টা করছে : যুবলীগ চেয়ারম্যান

» ভারত এশিয়া কাপে অংশ না নিলে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বয়কট করবে পাকিস্তান

» হাসান শরাফত’র পদ্য ‌‌’বাবা’

» শেরপুরে জমিদারসহ ঘোড়ার ভাস্কর্যটি অন্যত্র প্রতিস্থাপন করা হবে ॥ সংবাদ সম্মেলনে পৌর মেয়র

» শ্রীবরদী সীমান্তের ‘বর্মন পল্লী’তে মানবেতর জীবন-যাপন করছে অধিবাসীরা

» বঙ্গবন্ধু জাতীয় চ্যাম্পিয়নশীপ ॥ মানিকগঞ্জকে হারিয়ে কাপ পর্বের জোন ফাইনালে শেরপুর

» শেরপুরে প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে শোভাযাত্রা-স্মারকলিপি প্রদান

» শেরপুরে ব্র্যাকের প্রতিষ্ঠাতা স্যার ফজলে হাসান আবেদের স্মরণে সভা অনুষ্ঠিত

» লক্ষ্মীপুর-বগুড়ায় হচ্ছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

» চীন থেকে বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনার নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রীর

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  সকাল ১০:৩৯ | মঙ্গলবার | ২৮শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং | ১৫ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মিয়ানমারকে বিশ্বাস করা যায় না: গাম্বিয়া

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : রোহিঙ্গা মুসলিম জনগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সহিংসতায় অভিযুক্ত সৈন্যদের মিয়ানমার বিচার করবে এবং সহিংসতা বন্ধে অবিলম্বে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে- এটা বিশ্বাস করা যায় না। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর গণহত্যার অভিযোগে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে নেদারল্যান্ডসের হেগে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসিজে) দায়ের করা মামলার তৃতীয় দিনের শুনানিতে বৃহস্পতিবার গাম্বিয়ার আইনজীবী পাল রাখলার এ কথা বলেন। খবর রয়টার্সের
১৯৪৮ সালের গণহত্যা সনদের অধীনে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়ার করা মামলার তৃতীয় ও শেষ দিনের শুনানিতেও বাদী পক্ষের আইনজীবীরা মামলাটির শুনানি সম্পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে সহিংস কর্মকাণ্ড থেকে বিরত রাখার জন্য ‘অন্তর্বর্তীকালীন পদক্ষেপে’র দাবি জানান।
পল রাখলার বলেন, মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে সহিংসতার গুরুতর যেসব অভিযোগ উঠেছে শুনানিতে তারা এমনকি এগুলো অস্বীকার করার চেষ্টাও করেননি। এ ছাড়া ২০১৭ সালে নির্মূল অভিযান শুরুর পর গণহারে রোহঙ্গাদের দেশ ছেড়ে চলে যাওয়ার বিষয়টিও তার অস্বীকার করার চেষ্টা করেননি। এছাড়া অভিযুক্ত সেনা সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে যে বিবৃতি মিয়ানমার দিয়েছে সেটাকেও অবিশ্বাস্য বলে উল্লেখ করেন তিনি।

img-add

রাখলার বলেন, রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে গণহত্যার অভিযোগে টাটমাডো (মিয়ানমারের সেনাবাহিনী) নিজেদের বিচার করবে- এটা কীভাবে কেউ বিশ্বাস করবে, যেখানে এই বাহিনীরই প্রধান সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইংসহ শীর্ষস্থানীয় ছয় জেনারেলকে গণহত্যায় অভিযুক্ত করার পাশাপাশি অপধারী হিসেবে বিচারের সুপারিশ করেছে জাতিসংঘের ফ্যাক্ট-ফাইন্ডিং মিশন।
বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টায় তৃতীয় দিনের শুনানি শুরু হয়। এদিনের শুনানিতে গাম্বিয়ার পর মিয়ানমার তাদের যুক্তি তুলে ধরার সুযোগ পাবে। তবে তিন দিনের এই শুনানি শেষে কবে রায় ঘোষণা করা হবে সে বিষয়ে এখনও কিছু বলা হয়নি।
এর আগে মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক আদালতে শুনানির প্রথম দিনে গাম্বিয়া তাদের বক্তব্য তুলে ধরে। ওই দিন মিয়ানমারে গণহত্যা বন্ধের নির্দেশ দিতে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের (আইসিজে) প্রতি আহ্বান জানায় গাম্বিয়া। এরপর বুধবার শুনানিতে মিয়ানমারের পক্ষে বক্তব্য দেন দেশটির স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চি। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর গণহত্যা চালানোর অভিযোগে করা মামলাটি ‘অসম্পূর্ণ’ ও ‘বিভ্রান্তিকর’ বলে দাবি করেন সু চি।
‘ওয়ার্ল্ড কোর্ট’ বা বিশ্ব আদালত হিসেবে পরিচিত আইসিজেতে গত মাসে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মামলাটি করে গাম্বিয়া। এতে কূটনৈতিক ও আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে ওআইসি। শুনানি শুরুর আগের দিন গাম্বিয়ার উদ্যোগকে সমর্থন দেয় কানাডা ও নেদারল্যান্ডস।

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!