প্রকাশকাল: 15 আগস্ট, 2015

মাদারীপুরে দুই কিশোরী হত্যা: ৩ জন রিমান্ডে

Madaripurমাদারীপুর প্রতিনিধি : মাদারীপুরে সুমাইয়া ও হ্যাপি হত্যা মামলায় গ্রেফতার তিনজনকে ৭ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। ১৫ আগস্ট শনিবার বিকেলে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট প্রশান্ত কুমার বিশ্বাস এ আদেশ দেন।
এর আগে সকালে এজাহারভূক্ত আসামি রাকিব শিকদারকে (২০) গ্রেফতার করে পুলিশ। ঘটনার দিনে রফিক ও শিপনকে গ্রেফতার করা হয়।
মাদারীপুর সদর থানার ওসি জিয়াউল মোর্শেদ জানান, শনিবার সকালে সদর উপজেলার ত্রিভাগদি গ্রাম থেকে রাকিবকে গ্রেফতার করা হয়। অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।
গত বৃহস্পতিবার বিকেলে হাসপাতালে আনার পর সুমাইয়া ও হ্যাপির মৃত্যু হয়। তারা মস্তফাপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন। ওই ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উত্তম কুমারকে প্রধান করে ৫ সদস্যবিশিষ্ট একটি মনিটরিং টিম গঠন করা হয়েছে। এ টিম মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাকে সহয়োগিতার করবে।
এদিকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখনও নিশ্চিত করে বলা হয়নি দুই স্কুলছাত্রীর মৃত্যুর কারণ। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হয়েছে ত্রিভূজ প্রেমের কারণে এই মৃত্যুর ঘটনা ঘটতে পারে। অবশ্য নিহতদের স্বজনরা দাবি করছে, ধর্ষণের পরেই জোরপূর্বক বিষ পানে হত্যা করা হয় দুই ছাত্রীকে।
মাদারীপুর সদর থানার এসআই ফায়েকুজ্জামান জানান,ধারণা করা হচ্ছে একই গ্রামের রানা নামে এক ছেলের সাথে সুমাইয়া ও হ্যাপির প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিষয়টি প্রাথমিক ভাবে তাদের কাছে ত্রিভুজ প্রেমের ঘটনা বলে মনে হচ্ছে। এর জের ধরে মৃত্যুর ঘটনা ঘটতে পারে।
মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. শফিকুল ইসলাম রাজিব জানান, ওই দুইছাত্রীর ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর বিস্তারিত জানা যাবে। তবে প্রাথমিকভাবে সুমাইয়ার শরীরে একাধিক নির্যাতনের চিহ্ন পাওয়া গেছে। ময়নাতদন্তকারী এই চিকিৎসক বলেন, ‘বিষের প্রতিক্রিয়ায় তাদের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করছি।’
সুমাইয়ার মা আসমা বেগম জানান, আমার এক সুমাইয়া মারা গেছে। যদি ঘটনার সাথে জড়িতদের বিচার হয়, তাহলে হাজারো সুমাইয়া বেঁচে যাবে। আমি ঘটনার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই, যেন আমার সুমাইয়ার মতো কোনো মেয়েকে অকালে প্রাণ হারাতে না হয়। হ্যাপির চাচী কেয়া বেগম ঘটনার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। সুমাইয়ার বাবা বেল্লাল শিকদার দাবি করেন, তার মেয়েকে শারীরিক নির্যাতন করে খুন করা হয়েছে।
মাদারীপুর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সরোয়ার হোসেন জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে প্রেমঘটিত কারণে দুই কিশোরী আত্মহত্যা করতে পারে। এ ঘটনায় রানা ও মেহেদীসহ ৬ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।
জেলা প্রশাসক মো. কামাল উদ্দিন বিশ্বাস জানান, ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে ঘটনার সাথে জড়িত ব্যক্তিদের বিচারের আওতায় আনা হবে। যাতে কোনো নিরীহ ব্যক্তি হয়রানির শিকার না হয় সেদিকে খেয়াল রাখা হচ্ছে।

আপনার মতামত দিন

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

অবাধে মাছ নিধন অমানবিক নির্যাতনে শিশুর মৃত্যু আত্মহত্যা আহত ইয়াবা উদ্ধার উড়াল সড়ক খুন গাছে বেঁধে নির্যাতন গাছের চারা বিতরণ ঘূর্ণিঝড় 'কোমেন' চাঁদা না পেয়ে স্কুলে হামলা ছিটমহল জাতির জনকের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জাতীয় শোক দিবস জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার সূচি প্রকাশ ঝিনাইগাতী টেস্ট ড্র ড. গোলাম রহমান রতন পাঞ্জাবের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিহত প্রত্যেক বিভাগে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রধানমন্ত্রী বন্যহাতির তান্ডব বন্যহাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে নিহত বাল্যবিয়ের হার ভেঙে গেছে ব্রিজ মতিয়া চৌধুরী মাদারীপুর মির্জা ফখরুলের মেডিকেল রিপোর্ট রিমান্ডে লাশ উদ্ধার শাবলের আঘাতে শিশু খুন শাহ আলম বাবুল শিশু রাহাত হত্যা শেরপুর শেরপুরে অপহরণ শেরপুরে বন্যা শেরপুরের নবাগত জেলা প্রশাসক শ্যামলবাংলা২৪ডটকম’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সংঘর্ষে নিহত ৫ স্কুলছাত্র রাহাত হত্যা স্কুলছাত্রী অপহরণ হাতি বন্ধু কর্মশালা হুইপ আতিক হুমকি ২ স্কুলছাত্রী হত্যা
error: Content is protected !!