বিকাল ৫:২৪ | বৃহস্পতিবার | ১৩ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ব্রহ্মপুত্র সেতু থেকে শেরপুর-বকশীগঞ্জ-রৌমারী যাতায়াতে ২৪ স্পটে চাঁদাবাজীর অভিযোগ

প্রতিবাদে সিএনজি চালকদের মানববন্ধন-বিক্ষোভ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ব্রক্ষপুত্র সেতুর জামালপুর প্রান্তের স্টেশন থেকে শেরপুর-বকশীগঞ্জ-রৌমারী সড়কে আসা-যাওয়ার পথে অন্তত: ২৪টি স্পটে চাঁদাবাজীর অভিযোগ তুলেছেন সিএনজিচালিত অটোরিক্সা চালক-শ্রমিকরা। ওই চাঁদাবাজীর প্রতিবাদে টানা ৪দিন ধরে ধর্মঘট পালন করছে চালক-শ্রমিকরা। বুধবার দুপুরে চাঁদাবাজীর প্রতিবাদে সদর উপজেলার শিমুলতলী বাজারে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে তারা।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সিএনজি চালক-শ্রমিক নেতা শাহজাহান মিয়া, ছামিদুল ইসলাম, হেকমত আলী, শাহীন ইসলাম, ফরিদ মিয়া প্রমুখ। ওইসময় তারা অভিযোগ করে বলেন, জামালপুর ও শেরপুর জেলার অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের বিভিন্ন শাখা কমিটির নামে ব্রক্ষপুত্র সেতুর জামালপুর প্রান্তে, শেরপুর থানার মোড়, নতুন বাসস্ট্যান্ড, খোয়ারপাড়, ডুবারচর, ঝগড়ারচর, শ্রীবরদী, বকশীগঞ্জ, পাথরেরচরসহ ২৪ জায়গায় ওইসব চাঁদা উঠানো হচ্ছে। শ্রমিকদের ভাগ্যের উন্নয়নের কথা বলে চাঁদা উঠানো হলেও সে টাকা সাধারণ শ্রমিকরা পায় না। প্রতিদিন তারা যে টাকা রোজগার করেন, তার বেশিরভাগই চাঁদার খাতে চলে যায়। এতে খুব কষ্টে দিন চলছে তাদের। তাই এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ চায় তারা। তারা আরও অভিযোগ করেন, কোন নতুন সিএনজিচালিত অটোরিক্সা কিনলে ব্রক্ষপুত্র নদের জামালপুর অংশে ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা এককালীন চাঁদা দিয়ে রোডে গাড়ি নামাতে হয়। তা না হলে ওই গাড়ি রাস্তায় চলতে দেয়া হয় না। চাঁদা দিতে অস্বীকার বা কম দিলে তাদেরকে নানাভাবে অপমান-অপদস্থ করে থাকে শ্রমিক সংগঠনের নামধারী নেতাদের সাঙ্গপাঙ্গরা।
অন্যদিকে ওই অভিযোগের বিষয়ে জেলা সিএনজিচালিত অটোরিক্সা চালক-শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ ওয়াজকুরুনী ও সাধারণ সম্পাদক আলাল মিয়া জানান ভিন্ন কথা। তাদের দাবি, শেরপুর-বকশীগঞ্জ-রৌমারী সড়কে যাতায়াতপথে সংগঠনের তরফ থেকে কোন প্রকার চাঁদাবাজী করা হয় না এবং এ বিষয়ে তাদেরকে কেউ অভিযোগও করেনি। তবে ব্রহ্মপুত্রের জামালপুর প্রান্তের স্টেশনটি ওই জেলার নেতারা নিয়ন্ত্রণ করায় সেখানে যাচ্ছেতাই হচ্ছে। প্রতিবাদ ও অভিযোগ করেও কোন কাজ হচ্ছে না। মূলতঃ ওই অভিযোগের প্রতিবাদ করতে গিয়েই চালকদের একটি অংশ তালগোল পাকিয়ে ফেলছে।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» শেরপুরে মুজিববর্ষ উপলক্ষে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন

» বাংলাদেশিদের জন্য সহসাই ভারতের ভিসা চালু হবে : ভারতের হাইকমিশনার

» অনন্য মাইলফলকের সামনে অ্যান্ডারসন

» সাংবাদিক গোলাম সারওয়ারের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ

» উচ্চধাপে নির্ধারিত হল প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন

» ডা. সাবরিনাসহ ৮ জনের চার্জ শুনানি ২০ আগস্ট

» করোনার প্রভাবে নাকুগাঁও স্থলবন্দরে কমেছে রাজস্ব আয়

» ভরিতে সাড়ে ৩ হাজার টাকা কমল স্বর্ণের দাম

» ত্বক ও চুল ভালো রাখবে মধু 

» গভীর কোমায় ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি

» আবারও মা হতে চলেছেন কারিনা

» শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই মাঠে ফিরছেন সাকিব

» সাবেক প্রধান বিচারপতি সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

» কমল স্বর্ণের দাম

» শ্রীলংকা সফরে সাকিবকে ফেরানোর চিন্তা

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  বিকাল ৫:২৪ | বৃহস্পতিবার | ১৩ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ব্রহ্মপুত্র সেতু থেকে শেরপুর-বকশীগঞ্জ-রৌমারী যাতায়াতে ২৪ স্পটে চাঁদাবাজীর অভিযোগ

প্রতিবাদে সিএনজি চালকদের মানববন্ধন-বিক্ষোভ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ব্রক্ষপুত্র সেতুর জামালপুর প্রান্তের স্টেশন থেকে শেরপুর-বকশীগঞ্জ-রৌমারী সড়কে আসা-যাওয়ার পথে অন্তত: ২৪টি স্পটে চাঁদাবাজীর অভিযোগ তুলেছেন সিএনজিচালিত অটোরিক্সা চালক-শ্রমিকরা। ওই চাঁদাবাজীর প্রতিবাদে টানা ৪দিন ধরে ধর্মঘট পালন করছে চালক-শ্রমিকরা। বুধবার দুপুরে চাঁদাবাজীর প্রতিবাদে সদর উপজেলার শিমুলতলী বাজারে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে তারা।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সিএনজি চালক-শ্রমিক নেতা শাহজাহান মিয়া, ছামিদুল ইসলাম, হেকমত আলী, শাহীন ইসলাম, ফরিদ মিয়া প্রমুখ। ওইসময় তারা অভিযোগ করে বলেন, জামালপুর ও শেরপুর জেলার অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের বিভিন্ন শাখা কমিটির নামে ব্রক্ষপুত্র সেতুর জামালপুর প্রান্তে, শেরপুর থানার মোড়, নতুন বাসস্ট্যান্ড, খোয়ারপাড়, ডুবারচর, ঝগড়ারচর, শ্রীবরদী, বকশীগঞ্জ, পাথরেরচরসহ ২৪ জায়গায় ওইসব চাঁদা উঠানো হচ্ছে। শ্রমিকদের ভাগ্যের উন্নয়নের কথা বলে চাঁদা উঠানো হলেও সে টাকা সাধারণ শ্রমিকরা পায় না। প্রতিদিন তারা যে টাকা রোজগার করেন, তার বেশিরভাগই চাঁদার খাতে চলে যায়। এতে খুব কষ্টে দিন চলছে তাদের। তাই এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ চায় তারা। তারা আরও অভিযোগ করেন, কোন নতুন সিএনজিচালিত অটোরিক্সা কিনলে ব্রক্ষপুত্র নদের জামালপুর অংশে ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা এককালীন চাঁদা দিয়ে রোডে গাড়ি নামাতে হয়। তা না হলে ওই গাড়ি রাস্তায় চলতে দেয়া হয় না। চাঁদা দিতে অস্বীকার বা কম দিলে তাদেরকে নানাভাবে অপমান-অপদস্থ করে থাকে শ্রমিক সংগঠনের নামধারী নেতাদের সাঙ্গপাঙ্গরা।
অন্যদিকে ওই অভিযোগের বিষয়ে জেলা সিএনজিচালিত অটোরিক্সা চালক-শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ ওয়াজকুরুনী ও সাধারণ সম্পাদক আলাল মিয়া জানান ভিন্ন কথা। তাদের দাবি, শেরপুর-বকশীগঞ্জ-রৌমারী সড়কে যাতায়াতপথে সংগঠনের তরফ থেকে কোন প্রকার চাঁদাবাজী করা হয় না এবং এ বিষয়ে তাদেরকে কেউ অভিযোগও করেনি। তবে ব্রহ্মপুত্রের জামালপুর প্রান্তের স্টেশনটি ওই জেলার নেতারা নিয়ন্ত্রণ করায় সেখানে যাচ্ছেতাই হচ্ছে। প্রতিবাদ ও অভিযোগ করেও কোন কাজ হচ্ছে না। মূলতঃ ওই অভিযোগের প্রতিবাদ করতে গিয়েই চালকদের একটি অংশ তালগোল পাকিয়ে ফেলছে।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!