রাত ১১:৫৯ | বৃহস্পতিবার | ২২শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বোরো মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রার অর্ধেকও ধান-চাল সংগ্রহ হয়নি

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : চলতি রোরো মৌসুমে ধান-চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হতে এখনো প্রায় ১১ লাখ টন বাকি। যার শেষ সময় ছিল ৩১ আগস্ট পর্যন্ত। এ বছরের ২৬ এপ্রিল থেকে শুরু করে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত লক্ষ্যমাত্রার অর্ধেকও সংগ্রহ করতে পারেনি খাদ্য অধিদফতর। খাদ্য অধিদফতরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের গাফিলতি, সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের লটারি করতে করতেই প্রায় দেড় মাস সময় পার হওয়া, গুদামে ধান দিতে গিয়ে নানা ঝক্কি ঝামেলায় আগ্রহ হারানো, উৎকোচ দেয়া, করোনা, টানা বৃষ্টিসহ বন্যার কারণে ধান-চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়নি। ওই কারণে ১ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার আরও ১৫ দিন সময় বৃদ্ধি করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের চিঠি দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়।

img-add

খাদ্য অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, ১৯ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন ধান-চাল সংগ্রহ করার জন্য গত ২৬ এপ্রিল থেকে বোরো ধান ও ৭ মে থেকে চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু করে সরকার। চুক্তি অনুযায়ী ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৮ লাখ মেট্রিক টন। মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত বোরো ধান সংগ্রহ করা হয়েছে ২ লাখ ৮ হাজার ৩৩৭ মেট্রিক টন। ধানের ক্ষেত্রে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের হার ২৬ দশমিক ৪ ভাগ। সিদ্ধ চালের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১০ লাখ মেট্রিক টন। মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত চাল সংগ্রহ করা হয়েছে ৫ লাখ ৬৩ হাজার ৫৫ মেট্রিক টন, যার লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের হার ৫৬ দশমিক ৩৬ ভাগ। আর আতপ চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন। গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত সংগ্রহ হয়েছে ৮২ হাজার ৭৯৫ মেট্রিক টন। আতপ চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের হার ৫৫ দশমিক ২০ ভাগ। ধান, সিদ্ধ চাল ও আতপ চাল মিলে কয়েক মাসে মাত্র ৮ লাখ ৫৪ হাজার ১৮৭ মেট্রিক টন সংগ্রহ করা সম্ভব হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হতে এখনো ১০ লাখ ৯৫ হাজার ৮১৩ লাখ মেট্রিক টন ধান-চাল ঘাটতি রয়েছে। এ লক্ষ্যমাত্রা পূরণ নিয়েও অনেকে শঙ্কা প্রকাশ করছেন।

এদিকে, সরকারি গুদামে বর্তমানে (১ সেপ্টেম্বর) ১৩ লাখ ৩৮ হাজার ২২৫ মেট্রিক টন খাদ্যশস্য মজুত রয়েছে। এর মধ্যে ১০ লাখ ৪৫ হাজার ৫৫৬ মেট্রিক টন চাল এবং ২ লাখ ৩৬ হাজার ৫৮৩ মেট্রিক টন গম।

শেরপুর জেলা চালকল মালিক সমিতির সভাপতি আসাদুজ্জামান রৌশন জানান, ধানের বাজার অনুযায়ী চালের মূল্য হওয়া উচিত ছিল ৪০ টাকা কেজি। ৩৬ টাকা কেজি চালের মূল্য নির্ধারণ করায় মিল মালিকরা লোকসানের মধ্যে আছেন। তারপরও আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করছি। ইতোমধ্যে শেরপুরে ৪৫ ভাগ চাল দেয়া হয়েছে। আবহাওয়ার কারণে হাসকিং মিলগুলো চাল দিতে পারছে না। তবে আশা করি শত ভাগ না পারলেও আমরা কাছাকাছি যেতে পারবো।

নওগাঁ চালকল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসেন চকদার বলেন, নওগাঁ জেলা থেকে আমরা মোট চাহিদার প্রায় ৬৫ ভাগ চাল সরবরাহ করেছি। আবহাওয়া, বিদ্যুৎ সুবিধা সব ঠিক থাকলে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে আরও ১০ থেকে ১৫ ভাগ চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হবে। অটোমিল মালিকদের জন্য কোনো সমস্যা নেই। তবে হাসকিং মিল মালিকরা অনেকটা আবহাওয়ার ওপর নির্ভর করেন। ধান-চালের মজুত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নিয়ম অনুযায়ী ১৫ দিন পর পর আমরা রিটার্ন দাখিল করি। এবারও করা হয়েছে। সেখানে মজুতের পরিমাণ বিস্তারিত বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক সারওয়ার মাহমুদ বলেন, এবার টার্গেট অনেক বেশি। তার মধ্যে বৈরী আবহাওয়া ও করোনার মতো দুর্যোগ। এটা নর্মাল বছরের মতো সময় নয়। এ অবস্থায় লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হওয়া সম্ভব নয়। তবে আমরা কাছাকাছি যাওয়ার চেষ্টা করছি। তিনি
আরও জানান, যারা মিল মালিক এবং যাদের সঙ্গে চুক্তি হয়েছিল তাদের আরেক দফা সময় দেয়া হয়েছে। তারা যাতে বিপদে না পড়েন ওই কারণেই তাদের এ সুযোগ দেয়া হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» ঝিনাইগাতীতে কৃষকদের প্রযুক্তি হস্তান্তর প্রশিক্ষণ

» শেরপুরে ছিনতাই-হামলার শিকার আইনজীবী সহকারী

» দ্বিতীয় পরীক্ষাতেও করোনা পজিটিভ হলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো

» চীনের উদ্বেগ বাড়িয়ে তাইওয়ানে অস্ত্র বিক্রির অনুমোদন যুক্তরাষ্ট্রের

» তোফায়েল আহমেদ ৭৮তম জন্মদিন আজ

» ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদানে ঘুষ-দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

» শ্রীবরদীতে যুবকের লাশ উদ্ধার

» শেরপুরে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করলেন বিভাগীয় কমিশনার কামরুল হাসান

» শেরপুরে জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগ খাদ্যসামগ্রী ও বস্ত্র বিতরণ

» শারদীয় দুর্গা পূজায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার তাগিদ দিলেন মতিয়া চৌধুরী

» করোনামুক্ত হয়ে শেরপুরে ফেরায় হুইপ আতিককে প্রেসক্লাবের ফুলেল শুভেচ্ছা

» শেরপুরে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস পালিত

» মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রেস কাউন্সিলের উদ্যোগে শেরপুর প্রেসক্লাবে বই প্রদান

» শেরপুরে কমিউনিস্ট পার্টির প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন

» জামালপুরে একদিনে কলেজছাত্রীসহ ৩ জনের লাশ উদ্ধার

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  রাত ১১:৫৯ | বৃহস্পতিবার | ২২শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বোরো মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রার অর্ধেকও ধান-চাল সংগ্রহ হয়নি

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : চলতি রোরো মৌসুমে ধান-চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হতে এখনো প্রায় ১১ লাখ টন বাকি। যার শেষ সময় ছিল ৩১ আগস্ট পর্যন্ত। এ বছরের ২৬ এপ্রিল থেকে শুরু করে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত লক্ষ্যমাত্রার অর্ধেকও সংগ্রহ করতে পারেনি খাদ্য অধিদফতর। খাদ্য অধিদফতরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের গাফিলতি, সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের লটারি করতে করতেই প্রায় দেড় মাস সময় পার হওয়া, গুদামে ধান দিতে গিয়ে নানা ঝক্কি ঝামেলায় আগ্রহ হারানো, উৎকোচ দেয়া, করোনা, টানা বৃষ্টিসহ বন্যার কারণে ধান-চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়নি। ওই কারণে ১ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার আরও ১৫ দিন সময় বৃদ্ধি করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের চিঠি দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়।

img-add

খাদ্য অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, ১৯ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন ধান-চাল সংগ্রহ করার জন্য গত ২৬ এপ্রিল থেকে বোরো ধান ও ৭ মে থেকে চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু করে সরকার। চুক্তি অনুযায়ী ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৮ লাখ মেট্রিক টন। মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত বোরো ধান সংগ্রহ করা হয়েছে ২ লাখ ৮ হাজার ৩৩৭ মেট্রিক টন। ধানের ক্ষেত্রে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের হার ২৬ দশমিক ৪ ভাগ। সিদ্ধ চালের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১০ লাখ মেট্রিক টন। মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত চাল সংগ্রহ করা হয়েছে ৫ লাখ ৬৩ হাজার ৫৫ মেট্রিক টন, যার লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের হার ৫৬ দশমিক ৩৬ ভাগ। আর আতপ চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন। গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত সংগ্রহ হয়েছে ৮২ হাজার ৭৯৫ মেট্রিক টন। আতপ চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের হার ৫৫ দশমিক ২০ ভাগ। ধান, সিদ্ধ চাল ও আতপ চাল মিলে কয়েক মাসে মাত্র ৮ লাখ ৫৪ হাজার ১৮৭ মেট্রিক টন সংগ্রহ করা সম্ভব হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হতে এখনো ১০ লাখ ৯৫ হাজার ৮১৩ লাখ মেট্রিক টন ধান-চাল ঘাটতি রয়েছে। এ লক্ষ্যমাত্রা পূরণ নিয়েও অনেকে শঙ্কা প্রকাশ করছেন।

এদিকে, সরকারি গুদামে বর্তমানে (১ সেপ্টেম্বর) ১৩ লাখ ৩৮ হাজার ২২৫ মেট্রিক টন খাদ্যশস্য মজুত রয়েছে। এর মধ্যে ১০ লাখ ৪৫ হাজার ৫৫৬ মেট্রিক টন চাল এবং ২ লাখ ৩৬ হাজার ৫৮৩ মেট্রিক টন গম।

শেরপুর জেলা চালকল মালিক সমিতির সভাপতি আসাদুজ্জামান রৌশন জানান, ধানের বাজার অনুযায়ী চালের মূল্য হওয়া উচিত ছিল ৪০ টাকা কেজি। ৩৬ টাকা কেজি চালের মূল্য নির্ধারণ করায় মিল মালিকরা লোকসানের মধ্যে আছেন। তারপরও আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করছি। ইতোমধ্যে শেরপুরে ৪৫ ভাগ চাল দেয়া হয়েছে। আবহাওয়ার কারণে হাসকিং মিলগুলো চাল দিতে পারছে না। তবে আশা করি শত ভাগ না পারলেও আমরা কাছাকাছি যেতে পারবো।

নওগাঁ চালকল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসেন চকদার বলেন, নওগাঁ জেলা থেকে আমরা মোট চাহিদার প্রায় ৬৫ ভাগ চাল সরবরাহ করেছি। আবহাওয়া, বিদ্যুৎ সুবিধা সব ঠিক থাকলে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে আরও ১০ থেকে ১৫ ভাগ চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হবে। অটোমিল মালিকদের জন্য কোনো সমস্যা নেই। তবে হাসকিং মিল মালিকরা অনেকটা আবহাওয়ার ওপর নির্ভর করেন। ধান-চালের মজুত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নিয়ম অনুযায়ী ১৫ দিন পর পর আমরা রিটার্ন দাখিল করি। এবারও করা হয়েছে। সেখানে মজুতের পরিমাণ বিস্তারিত বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক সারওয়ার মাহমুদ বলেন, এবার টার্গেট অনেক বেশি। তার মধ্যে বৈরী আবহাওয়া ও করোনার মতো দুর্যোগ। এটা নর্মাল বছরের মতো সময় নয়। এ অবস্থায় লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হওয়া সম্ভব নয়। তবে আমরা কাছাকাছি যাওয়ার চেষ্টা করছি। তিনি
আরও জানান, যারা মিল মালিক এবং যাদের সঙ্গে চুক্তি হয়েছিল তাদের আরেক দফা সময় দেয়া হয়েছে। তারা যাতে বিপদে না পড়েন ওই কারণেই তাদের এ সুযোগ দেয়া হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!