প্রকাশকাল: 4 আগস্ট, 2015

বিষখালী নদীর করাল গ্রাসে ছোট হয়ে আসছে কাঁঠালিয়ার মানচিত্র

jhalokathi-kathalia-bare-baএইচ এম নাসির উদ্দিন আকাশ, ঝালকাঠি : বিষখালী নদীর করাল গ্রাসে ঝালকাঠি জেলার কাঠালিয়া উপজেলার নিঃস্ব হয়ে পড়ছে হাজারও মানুষ, দিন দিন ছোট হয়ে আসছে এ উপজেলার মানচিত্র থেকে কাঠালিয়া উপজেলা।, সিডর,আ্লই, মহাসেন প্রভাবের পরে এ বছরের অতি বৃষ্টিতে বিষখালীর ভাঙ্গন তীব্র আকার ধারন করেছে। ফসলি জমি ও বসত ভিটা হারিয়ে ভুমিহীনে পরিনত হচ্ছে শ’ শ’ পরিবার। ভাঙ্গনের মুখোমুখি এসে দাড়িয়েছে আমুয়া বন্দর, স্টীমারঘাট প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়, হাসপাতাল, কচুয়া বোড সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বহু হাট বাজার, মসজিদ, মন্দির এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। একাধিক প্রাকৃতিক দূর্যোগ, অতি বৃষ্টি ও অতিরিক্ত জোয়রে সৃষ্ট বন্যার পানি কমার সাথে সাথে আগ্রাসী হয়ে উঠেছে ঝালকাঠির বিষখালী নদী। ভয়াল গ্রাসে বিলিন হচ্ছে শ’ শ’ একর ফসলী জমি। নদী ভাঙ্গনে সহায় সম্বল হারিয়ে ভুমিহীনে পরিনত হচ্ছে বহু পরিবার। মাথা গোজার শেষ ঠাইটুকু হারিয়ে অনেকেই আশ্রয় নিয়েছে অন্যের বাড়ীতে। এক সময়ের সচ্ছল কৃষক পরিনত হচ্ছে শ্রমিকে, কেউবা রিক্স চালিয়ে কিংবা মাছ ধরে জীবন যাপনের চেষ্ঠা করছে। যাদের সে সামর্থও নেই তারা বেছে নিয়েছে ভিক্ষাবৃত্তি। ভাঙ্গনের ঝুঁকির মুখে রয়েছে অনেক হাট-বাজার, মসজিদ-মন্দির এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ভাঙ্গন রোধে কার্যকর কোন পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না।
ভাঙ্গন কবলিত পরিবারগুলো আশা করছে কেউ না কেউ তাদের দুর্দশা লাঘবে এগিয়ে আসবে। তাদের এ আশা কবে পুরণ হবে কিংবা আদৌ হবে কিনা এর কোন জবাব মিলছে না। এ ব্যাপারে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক রবিন্দ্র শ্রী বড়ুয়া সোমবার সকালে শৌলজালিয়ার রঘুয়ার চরের ভেঙ্গে যাওয়া বেরীবাধ পরির্দশন করেন এবং তিনি শীঘ্রই ভেঙ্গে যাওয়া বেরীবাধ নির্মান করা হবে বলে আশ্বাস দেন। শৌলজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মাহমুদ হোসেন রিপন জানান, তালগাছিয়ার রঘুয়ারচর এবং রঘুয়ার দরিরচরবাসীসহ নদী ভাঙ্গনের ক্ষতিগ্রস্থদের দ্রুত পুর্নবাসনের দাবি জানান এবং অত্র এলাকায় সোনার বাংলা মাধ্যমিক বিদ্যালয় হতে রঘুয়ার দরির চর হইয়া আওরাবুনিয়া ইউনিয়নের সীমানা পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার বেরীবাধ নির্মান করা হইলে এ এলাকার মানুষ স্বাভাবিক জিবন যাপন করতে পারবেন। সাথে সাথে সোনার বাংলা মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং ৫৪ নং দক্ষিণ তালগাছিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ২টি সাইকোন সেল্টার নির্মান করা হলে বন্যা এবং ঝড়ো হাওয়ার সময় আশ্রায় নিতে পারিবে বলে তাহা ঝালকাঠি জেলা প্রশাসকের কাছে এলাকাবাসীর পক্ষে তিনি দাবী জানিয়েছেন এবং ঘূর্ণিঝড়ে সাইকোন সেল্টারে আশ্রায়কৃতদের ওষুধ এবং খাবারের ও দাবি জানিয়েছেন।

আপনার মতামত দিন

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

error: Content is protected !!