বান্দরবানের শিশুর চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন ওবায়দুল কাদের

o.kader

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : ফেইসবুকে খবর পেয়ে বান্দরবানের ১১ মাস বয়সী অসুস্থ এক শিশুর চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই শিশুকে শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দেখতে যান মন্ত্রী।
সেখানে চিংরুং ম্রো নামে ওই শিশুর চিকিৎসায় সব ধরনের ব্যয় বহন করবেন বলে তার পরিবারকে আশ্বাস দেন আওয়ামী নেতা কাদের।
চিংরুং বান্দরবান সদর উপজেলার চিম্বুক পাহাড়ের টংকবতী ইউনিয়নের ১৬ মাইল বাগান পাড়ার সিংরাও ম্রো আর পাইংপাউ ম্রো এর তিন সন্তানের মধ্যে সবচেয়ে ছোট। সিংরাও পেশায় জুমচাষী।
শিশুটির পরিবার বলছে, জন্মের পর থেকেই মেয়ে শিশুটির চোখের কাছাকাছি নাকের উপর একটি টিউমার হয়। টিউমারটি প্রতিনিয়ত বড় হতে থাকলেও আর্থিক অনটনের কারণে মেয়ের চিকিৎসা করাতে পারছিলেন না তার বাবা-মা।
উপান্তর না দেখে চিংরুংয়ের চিকিৎসায় সহায়তার জন্য কিছুদিন আগে থানচি সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মংসার ম্রোর সঙ্গে দেখা করেন তার বাবা সিংরাও।
চেয়ারম্যান মংসার ম্রো-ই চিকিৎসার তহবিল যোগাড়ের জন্য ওই ফেইসবুক পেজ খোলেন।
চেয়ারম্যান মংসার ম্রো বলেন, “এই মাসের প্রথমে সিংরাও তার মেয়ের চিকিৎসার জন্য সহায়তা চাইতে আমার সঙ্গে দেখা করেছিল। পরে ওদের নিয়ে একটি পেইজ খুলে আর্থিক সাহায্য চাওয়া হয়েছিল।”
ওই ফেইসবুক পেইজ দেখে দুদিন আগে সেতুমন্ত্রী তাকে ফোন করে শিশুটির চিকিৎসার যাবতীয় ব্যয় বহন করতে চাওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন বলে জানান এই ইউপি চেয়ারম্যান।
মংসার বলেন, “তার কথা শুনে ওই পরিবারকে ঢাকায় এনে একদিন মিরপুর রেখেছিলাম।”
থানচির এই ইউপি চেয়ারম্যানের করে দেওয়া ব্যবস্থায় চিংরুংকে তার বাবা সিংরাও ম্রো রাজধানীতে এনে ভর্তি করান ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে, যেখানে শনিবার শিশুটিকে দেখতে গিয়ে তার চিকিৎসার খরচ দেওয়ার আশ্বাস দেন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
সিংরাও জানান,“মন্ত্রী আমার মেয়ের চিকিৎসার খরচ দেবেন বলেছেন। এই দেশে চিকিৎসা না হলে আমার মেয়েকে দেশের বাইরে চিকিৎসা করাবেন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
“এতে আমরা খুব খুশি। তবে আমরা চাই, বাংলাদেশেই যেন শিশুটির অপারেশন হয়।”
হাসপাতালে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন, ‍“কোনো কিছু নয়, মানবিক আবেদনই আমার কাছে বড়। শিশুটি বড় হোক। সুন্দর আগামী রচনা করুক, এমনটাই চাই। তাই তার চিকিৎসার দায়িত্ব নেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি চিংরুংয়ের চিকিৎসার জন্য গঠন করা বোর্ডে নিউরোসার্জন ডা. রাজিউল হক, নাক কান গলা বিভাগের চিকিৎসক ডা. আবু ইউসুফ ফকির ও প্ল্যাস্টিক সার্জারি বিভাগের ডা. আবুল কালাম আজাদ রয়েছেন।

সিংরাও বলেন, ‍“চিকিৎসকরা কখন অপারেশন করবেন না জানালেও ধারণা করছি, ওর অপারেশন খুব তাড়াতাড়ি হবে। আশা করছি ভালভাবে মেয়ের অপারেশন করিয়ে বাড়ি চলে যেতে পারব।”

আপনার মতামত দিন

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

error: Content is protected !!