রাত ৮:৪৫ | শনিবার | ২৮শে মার্চ, ২০২০ ইং | ১৪ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বাঁশের সাঁকোই ১৫ গ্রামের মানুষের ভরসা

খোরশেদ আলম, ঝিনাইগাতী (শেরপুর) ॥ শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে মহারশি নদীর বনগাঁও এলাকায় ৪ যুগেও নির্মিত হয়নি ব্রিজ। এতে ওই পথে যাতায়াতকারীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। নদী পারাপারে বাঁশের সাঁকোই ১৫ গ্রামের মানুষের একমাত্র ভরসা।
জানা যায়, ঝিনাইগাতী উপজেলার সদর ইউনিয়নের আহাম্মদনগর ও গৌরীপুর ইউনিয়নের বনগাঁও রাস্তার মাঝখানে মহারশি নদীর উপর একটি ব্রিজ নির্মাণের দাবি গ্রামবাসীদের দীর্ঘদিনের। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকেই ওই নদীর উপর ব্রিজ নির্মাণের দাবি উঠে গ্রামবাসীদের পক্ষ থেকে। বনগাঁও গ্রামের কৃষক মোহাম্মদ আলী, মোফাজ্জল হোসেন, নুরুল হকসহ গ্রামবাসীরা জানান, বিভিন্ন সময় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের কাছ থেকে আশ্বাসও পাওয়া গেছে। কিন্তু আজও তা বাস্তবায়িত হয়নি। চতল গ্রামের কৃষক আবুল হোসেন, মোতালেব, চাঁন মিয়া, নজরুল ইসলামসহ আরও অনেকে জানান, নদী পার হয়ে ওই পথে বনগাঁও, চতল, আহাম্মদনগর, দিঘীরপাড়, হলদিবাটা, জিগাতলা, কালাকুড়া, রামনগর, নয়াপাড়া, খন্দকারপাড়া ও মাটিয়াপাড়াসহ প্রায় ১৫ টি গ্রামের শত শত মানুষ যাতায়াত করে থাকে। ওই গ্রামের কৃষক হাবিবুর রহমান, নাসির উদ্দিন, আবু বক্কর ও আলম মিয়া জানান, এ নদীর উপর ব্রিজ না থাকায় বর্ষা মৌসুমে নৌকা ও শুষ্ক মৌসুমে বাঁশের সাঁকোই ওইসব গ্রামের মানুষের পারাপারে একমাত্র ভরসা। এতে স্কুল, কলেজের কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের নদী পারাপারে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বাঁশের সাঁকোতে পারাপার হতে গিয়ে মাঝে মধ্যেই ঘটছে দুর্ঘটনা। ব্রিজের ওভাবে এ পথে কোন যানবাহন চলাচল করতে পারে না। এলাকায় উৎপাদিত কৃষি পণ্য ও গবাদী পশু পারাপারে কৃষকদের চরম বিড়ম্বনার শিকার হতে হয়। অনেক সময় নদীর এপাড় থেকে ওপাড় যেতে ৫-৭ কিলোমিটার রাস্তা ঘুরে আসতে হয়।

img-add

গৌরীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান মন্টু বলেন, এখানে ব্রিজ নির্মানের বিষয়ে উপজেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভায় বিভিন্ন সময় আলোচনাও হয়েছে। প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের কাছ থেকে আশ্বাসও পাওয়া গেছে। কিন্তু আজও তা বাস্তবায়িত হয়নি।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ মোজাম্মেল হক বলেন, ব্রিজ নির্মাণের নকশা প্রস্তুত করে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে। যেকোন সময় তা টেন্ডার আহ্বান করা হতে পারে।

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» করোনা প্রতিরোধে শেরপুর জেলায় ১শ টন চাল ও ৭ লাখ টাকা বরাদ্দ

» শেরপুরে করোনা সংক্রমণ রোধে নিজ উদ্যোগে জীবাণুনাশক স্প্রে করছেন স্থানীয়রা

» করোনা পরিস্থিতি : বর্তমান ও ভবিষ্যৎ ভাবনা : আবুল কালাম আজাদ

» মুক্ত করো হে সবার সঙ্গে যুক্ত করো হে বন্ধ : শিবশঙ্কর কারুয়া শিবু

» জেনে নিন মানসিক চাপ কমানোর উপায়

» করোনা মোকাবেলায় ৫ শ্রেণির মানুষকে মাশরাফির কৃতজ্ঞতা

» দৃশ্যমান হলাে পদ্মা সেতুর ৪০৫০ মিটার

» করোনা প্রতিরোধে নকলা পৌরসভার উদ্যোগে জীবাণুনাশক স্প্রে কার্যক্রম শুরু

» করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে শেরপুরে মাস্ক ও সাবান বিতরণ

» শেরপুরে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে পুলিশের বিশেষ কর্মসূচি

» কোয়ারেন্টিন শেষে সন্তানদের কাছে শাওন

» করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ব্রিটেনের রানী ২য় এলিজাবেথ

» করোনা মোকাবিলায় তহবিলে ৫০ লাখ রুপি দিলেন শচীন

» দেশে করোনায় নতুন শনাক্ত নেই, সুস্থ আরও ৪ জন

» বৃদ্ধদের কান ধরিয়ে ছবি তোলা সেই এসিল্যান্ড প্রত্যাহার

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  রাত ৮:৪৫ | শনিবার | ২৮শে মার্চ, ২০২০ ইং | ১৪ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বাঁশের সাঁকোই ১৫ গ্রামের মানুষের ভরসা

খোরশেদ আলম, ঝিনাইগাতী (শেরপুর) ॥ শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে মহারশি নদীর বনগাঁও এলাকায় ৪ যুগেও নির্মিত হয়নি ব্রিজ। এতে ওই পথে যাতায়াতকারীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। নদী পারাপারে বাঁশের সাঁকোই ১৫ গ্রামের মানুষের একমাত্র ভরসা।
জানা যায়, ঝিনাইগাতী উপজেলার সদর ইউনিয়নের আহাম্মদনগর ও গৌরীপুর ইউনিয়নের বনগাঁও রাস্তার মাঝখানে মহারশি নদীর উপর একটি ব্রিজ নির্মাণের দাবি গ্রামবাসীদের দীর্ঘদিনের। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকেই ওই নদীর উপর ব্রিজ নির্মাণের দাবি উঠে গ্রামবাসীদের পক্ষ থেকে। বনগাঁও গ্রামের কৃষক মোহাম্মদ আলী, মোফাজ্জল হোসেন, নুরুল হকসহ গ্রামবাসীরা জানান, বিভিন্ন সময় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের কাছ থেকে আশ্বাসও পাওয়া গেছে। কিন্তু আজও তা বাস্তবায়িত হয়নি। চতল গ্রামের কৃষক আবুল হোসেন, মোতালেব, চাঁন মিয়া, নজরুল ইসলামসহ আরও অনেকে জানান, নদী পার হয়ে ওই পথে বনগাঁও, চতল, আহাম্মদনগর, দিঘীরপাড়, হলদিবাটা, জিগাতলা, কালাকুড়া, রামনগর, নয়াপাড়া, খন্দকারপাড়া ও মাটিয়াপাড়াসহ প্রায় ১৫ টি গ্রামের শত শত মানুষ যাতায়াত করে থাকে। ওই গ্রামের কৃষক হাবিবুর রহমান, নাসির উদ্দিন, আবু বক্কর ও আলম মিয়া জানান, এ নদীর উপর ব্রিজ না থাকায় বর্ষা মৌসুমে নৌকা ও শুষ্ক মৌসুমে বাঁশের সাঁকোই ওইসব গ্রামের মানুষের পারাপারে একমাত্র ভরসা। এতে স্কুল, কলেজের কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের নদী পারাপারে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বাঁশের সাঁকোতে পারাপার হতে গিয়ে মাঝে মধ্যেই ঘটছে দুর্ঘটনা। ব্রিজের ওভাবে এ পথে কোন যানবাহন চলাচল করতে পারে না। এলাকায় উৎপাদিত কৃষি পণ্য ও গবাদী পশু পারাপারে কৃষকদের চরম বিড়ম্বনার শিকার হতে হয়। অনেক সময় নদীর এপাড় থেকে ওপাড় যেতে ৫-৭ কিলোমিটার রাস্তা ঘুরে আসতে হয়।

img-add

গৌরীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান মন্টু বলেন, এখানে ব্রিজ নির্মানের বিষয়ে উপজেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভায় বিভিন্ন সময় আলোচনাও হয়েছে। প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের কাছ থেকে আশ্বাসও পাওয়া গেছে। কিন্তু আজও তা বাস্তবায়িত হয়নি।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ মোজাম্মেল হক বলেন, ব্রিজ নির্মাণের নকশা প্রস্তুত করে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে। যেকোন সময় তা টেন্ডার আহ্বান করা হতে পারে।

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!