রাত ৪:১০ | বৃহস্পতিবার | ৯ই এপ্রিল, ২০২০ ইং | ২৬শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পড়ালেখা শিখে সরকারি কর্মকর্তা হতে চায় প্রতিবন্ধী তুহিন

স্টাফ রিপোর্টর : মৌত্তাছিম মিল্লা তুহিন শারীরিক প্রতিবন্ধী। সেরিব্রাল পালসি রোগে আক্রান্ত তার পুরো শরীরই প্রায় অবশ। একা হাঁটতে পারে না। অন্যের সাহায্য নিয়ে চলতে হয়। কিন্তু এ প্রতিবন্ধিতা তাকে দমাতে পারেনি। সে এ বছর এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে। শেরপুর শহরের আইডিয়াল প্রিপারেটরি অ্যান্ড হাইস্কুল উপ-কেন্দ্রের একটি কক্ষে একজন শ্রুতলেখকের সহযোগিতায় পরীক্ষা দিচ্ছে মৌত্তাছিম। সে সদর উপজেলার ধাতিয়াপাড়া উচ্চবিদ্যালয় থেকে পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে।
জানা যায়, শেরপুর সদর উপজেলার চরমোচারিয়া ইউনিয়নের মুকসুদপুর গ্রামের আলাল উদ্দিন ও মমতাজ বেগম দম্পতির ছেলে তুহিন। তার দুটি হাতই বাঁকা ও শক্তিহীন। ঘাড়ও খানিকটা বাঁকা। দুই পা সোজা করে দাঁড়াতে পারে না। হাত অচল। কিন্তু পড়ালেখার প্রতি প্রবল আগ্রহ তুহিনের। শ্রুতলেখকের সাহায্য নিয়ে এত দূর এসেছে সে। হাল ছাড়েননি তার মা-বাবাও। ৬ বছর বয়সে ছেলেকে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি করিয়ে দেন মাঝপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। ২০১৪ সালে জিপিএ-৩.০৮ পেয়ে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় পাস করে সে। এরপর ভর্তি হয় ধাতিয়াপাড়া উচ্চবিদ্যালয়ে। ২০১৭ সালে জিপিএ-৪.২৯ পেয়ে জেএসসি পরীক্ষায় পাস করে। একই বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে তুহিন। তার বাবা আলাল উদ্দিন একজন কৃষিজীবী। আর মা মমতাজ ধাতিয়াপাড়া উচ্চবিদ্যালয়ের আয়া। মায়ের হাত ধরেই বিদ্যালয়ে যাওয়া-আসা করেছে সে।

img-add

আলাল উদ্দিন বলেন, তার ৫ ছেলেমেয়ের মধ্যে তুহিন সবার ছোট। জন্ম থেকেই সে শারীরিক প্রতিবন্ধী। তার কথাও অস্পষ্ট। অনেক চিকিৎসা করিয়েও লাভ হয়নি। তার অন্য ছেলেমেয়েরা পড়ালেখা করেছে। তাই তুহিনকে অন্ধকারে রাখতে চাননি তিনি। শারীরিক প্রতিবন্ধী বলে সে যেন সমাজের বোঝা না হয়, সে জন্য তাকে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে পড়ালেখা করাচ্ছেন।
সম্প্রতি পরীক্ষাকেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, শ্রুতলেখন পদ্ধতিতে এসএসসি পরীক্ষা দিতে তুহিনকে সহযোগিতা করছে তারই বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী খাইরুল ইসলাম। তুহিন প্রশ্নের উত্তর বলার পর তার সহযোগী খাইরুল খাতায় উত্তর লিখে দিচ্ছে। এ জন্য ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ড থেকে অনুমতি নিতে হয়েছে। প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থী হিসেবে নির্ধারিত সময় ৩ ঘণ্টার চেয়ে ২০ মিনিট বেশি পায় সে।
বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষা শেষে কথা হয় তুহিনের সাথে। পরীক্ষার ফল কেমন হবে, বড় হয়ে কী হতে চায়-এসব প্রশ্নে সে জানায়, ভালো ফলের আশা তার। পড়ালেখা শিখে স্বনির্ভর জীবন-যাপন করতে ও সরকারি কর্মকর্তা হতে চায় সে।
ধাতিয়াপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফা বলেন, শারীরিক প্রতিবন্ধী তুহিন মেধাবী। তার পড়ালেখার ব্যাপারে বিদ্যালয় থেকে সহযোগিতা করা হয়েছে। সরকারি পর্যায়ে তাকে সহযোগিতা দেওয়া হলে সে পরবর্তী সময়ে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করে নিজেকে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারবে।

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়াল ৮২ হাজার

» যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে রেকর্ড ১৭৩৬ মৃত্যু

» শেরপুরে কর্মহীনদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করলেন যুব মহিলা লীগ নেত্রী মুন্নী

» ঝিনাইগাতীতে ট্রাক-ইজিবাইক সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৫

» শেরপুরে লকডাউনে এবার ভিন্ন মাত্রা ॥ শহর নীরব, এলাকায় এলাকায় ব্যারিকেড

» শেরপুরে করোনা শনাক্ত হওয়া সেই ২ নারীর সংস্পর্শে থাকা ২০ জনের নমুনা সংগ্রহ

» শেরপুরে জেলা আ’লীগের সাবেক সভাপতি এডভোকেট আব্দুস ছামাদের ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

» বাসায় থাকাই হচ্ছে করোনার মেডিসিন : বিদ্যা সিনহা মিম

» বাজার বা দোকানে গেলে যেসব মেনে চলা জরুরি

» ফার্মেসি ছাড়া সন্ধ্যার পর সব দোকান-বাজার বন্ধ

» মুসল্লিদের ঘরে নামাজ পড়ার নির্দেশ

» করোনায় দেশে আরও ৩ মৃত্যু, একদিনেই নতুন শনাক্ত ৩৫

» জাতীয় সংসদের অধিবেশন শুরু ১৮ এপ্রিল

» শেরপুরে হাসপাতালের স্টাফসহ করোনা ভাইরাসের ২ রোগী শনাক্ত

» শেরপুরে ১ হাজার কর্মহীন মানুষ পেল আ’লীগ নেতা উৎপলের খাদ্য সহায়তা

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  রাত ৪:১০ | বৃহস্পতিবার | ৯ই এপ্রিল, ২০২০ ইং | ২৬শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পড়ালেখা শিখে সরকারি কর্মকর্তা হতে চায় প্রতিবন্ধী তুহিন

স্টাফ রিপোর্টর : মৌত্তাছিম মিল্লা তুহিন শারীরিক প্রতিবন্ধী। সেরিব্রাল পালসি রোগে আক্রান্ত তার পুরো শরীরই প্রায় অবশ। একা হাঁটতে পারে না। অন্যের সাহায্য নিয়ে চলতে হয়। কিন্তু এ প্রতিবন্ধিতা তাকে দমাতে পারেনি। সে এ বছর এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে। শেরপুর শহরের আইডিয়াল প্রিপারেটরি অ্যান্ড হাইস্কুল উপ-কেন্দ্রের একটি কক্ষে একজন শ্রুতলেখকের সহযোগিতায় পরীক্ষা দিচ্ছে মৌত্তাছিম। সে সদর উপজেলার ধাতিয়াপাড়া উচ্চবিদ্যালয় থেকে পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে।
জানা যায়, শেরপুর সদর উপজেলার চরমোচারিয়া ইউনিয়নের মুকসুদপুর গ্রামের আলাল উদ্দিন ও মমতাজ বেগম দম্পতির ছেলে তুহিন। তার দুটি হাতই বাঁকা ও শক্তিহীন। ঘাড়ও খানিকটা বাঁকা। দুই পা সোজা করে দাঁড়াতে পারে না। হাত অচল। কিন্তু পড়ালেখার প্রতি প্রবল আগ্রহ তুহিনের। শ্রুতলেখকের সাহায্য নিয়ে এত দূর এসেছে সে। হাল ছাড়েননি তার মা-বাবাও। ৬ বছর বয়সে ছেলেকে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি করিয়ে দেন মাঝপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। ২০১৪ সালে জিপিএ-৩.০৮ পেয়ে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় পাস করে সে। এরপর ভর্তি হয় ধাতিয়াপাড়া উচ্চবিদ্যালয়ে। ২০১৭ সালে জিপিএ-৪.২৯ পেয়ে জেএসসি পরীক্ষায় পাস করে। একই বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে তুহিন। তার বাবা আলাল উদ্দিন একজন কৃষিজীবী। আর মা মমতাজ ধাতিয়াপাড়া উচ্চবিদ্যালয়ের আয়া। মায়ের হাত ধরেই বিদ্যালয়ে যাওয়া-আসা করেছে সে।

img-add

আলাল উদ্দিন বলেন, তার ৫ ছেলেমেয়ের মধ্যে তুহিন সবার ছোট। জন্ম থেকেই সে শারীরিক প্রতিবন্ধী। তার কথাও অস্পষ্ট। অনেক চিকিৎসা করিয়েও লাভ হয়নি। তার অন্য ছেলেমেয়েরা পড়ালেখা করেছে। তাই তুহিনকে অন্ধকারে রাখতে চাননি তিনি। শারীরিক প্রতিবন্ধী বলে সে যেন সমাজের বোঝা না হয়, সে জন্য তাকে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে পড়ালেখা করাচ্ছেন।
সম্প্রতি পরীক্ষাকেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, শ্রুতলেখন পদ্ধতিতে এসএসসি পরীক্ষা দিতে তুহিনকে সহযোগিতা করছে তারই বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী খাইরুল ইসলাম। তুহিন প্রশ্নের উত্তর বলার পর তার সহযোগী খাইরুল খাতায় উত্তর লিখে দিচ্ছে। এ জন্য ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ড থেকে অনুমতি নিতে হয়েছে। প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থী হিসেবে নির্ধারিত সময় ৩ ঘণ্টার চেয়ে ২০ মিনিট বেশি পায় সে।
বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষা শেষে কথা হয় তুহিনের সাথে। পরীক্ষার ফল কেমন হবে, বড় হয়ে কী হতে চায়-এসব প্রশ্নে সে জানায়, ভালো ফলের আশা তার। পড়ালেখা শিখে স্বনির্ভর জীবন-যাপন করতে ও সরকারি কর্মকর্তা হতে চায় সে।
ধাতিয়াপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফা বলেন, শারীরিক প্রতিবন্ধী তুহিন মেধাবী। তার পড়ালেখার ব্যাপারে বিদ্যালয় থেকে সহযোগিতা করা হয়েছে। সরকারি পর্যায়ে তাকে সহযোগিতা দেওয়া হলে সে পরবর্তী সময়ে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করে নিজেকে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারবে।

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!