সকাল ৭:৫৩ | সোমবার | ১০ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

প্রাচীন কোরআনের স্মৃতিময় পাণ্ডুলিপি

আদিল মাহমুদ : সব প্রশংসা আল্লাহতায়ালার, যিনি পবিত্র কোরআন শরিফ নাজিল করেছেন এবং বলেছেন, ‘আমি উপদেশ গ্রন্থ নাজিল করেছি এবং আমি নিজেই এর সংরক্ষক’ [সূরাহিজর-৯]

img-add

কোরআনের প্রতিটি আয়াত নাজিলের সঙ্গে সঙ্গেই নবীজি (সা.)-এর সাহাবিরা তা মুখস্থ করে ফেলতেন। অনেকে বিচ্ছিন্নভাবে লিখেও রাখতেন। পরবর্তী সময়ে নবীজি (সা.)-এর মৃত্যুর পর খুলাফায়ে রাশেদিনদের সময়ে কোরআন শরিফ একত্রিত করা হয়।

ইসলামের প্রাথমিক যুগে লেখা কোরআন শরিফের কোনো পাণ্ডুলিপি কি এখনও টিকে আছে? থাকলে সেগুলো কোথায় আছে দেখতে কেমন?

হজরত উসমান (রা.)-এর সময় লিপিবদ্ধ কোরআন শরিফের পাণ্ডুলিপির সন্ধান পাওয়া না গেলেও বর্তমানে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের জাদুঘরে, গ্রন্থাগারে কোরআন শরিফের এমন কয়েকটি পাণ্ডুলিপি সংরক্ষিত আছে, যেগুলো রচিত হয়েছিল নবীজি (সা.)-এর মৃত্যুর পর প্রথম কিংবা দ্বিতীয় শতকেই।

চলুন জেনে নিই বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা কোরআন শরিফের প্রাচীনতম কয়েকটি পাণ্ডুলিপির ইতিবৃত্তান্ত-

১. বার্মিংহাম পাণ্ডুলিপি : ইংল্যান্ডের বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ে সংরক্ষিত কোরআন শরিফের দুটি পাতাকে কোরআনের প্রাচীনতম পাণ্ডুলিপি বলা হয়। রেডিওকার্বন ডেটিংয়ের মাধ্যমে প্রাপ্ত ফলাফলের ভিত্তিতে বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা ৯৫.৪ শতাংশ নিশ্চয়তা দিয়ে দাবি করেছেন, ‘এই পাণ্ডুলিপিটি লেখা হয়েছিল ৬৪৫ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে। কোরআন শরিফ নাজিল হয়েছিল ৬০৯ থেকে ৬৩২ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত। এ জন্য ধারণা করা হয়, এটি নবীজি (সা.)-এর জীবিত অবস্থায় কিংবা তার মৃত্যুর কয়েক বছরের মধ্যেই লিপিবদ্ধ করা হয়েছিল।

পাণ্ডুলিপিটির মাত্র দুটি পাতার সন্ধান পাওয়া গেছে। একটি পাতায় আছে সূরা আল-কাহফের ১৭-৩১ আয়াত, অন্য পাতায় আছে সূরা মারিয়ামের ৯১-৯৮ আয়াত এবং সূরা তাহার ১-৪০ আয়াত। বলা হয়, পাণ্ডুলিপিটি লেখা হয়েছিল গরুর বাছুর, ছাগল কিংবা ভেড়ার চামড়া থেকে প্রস্তুতকৃত কাগজের ওপর। পাণ্ডুলিপিটিতে হিজাজি লিপি অনুসরণ করা হয়েছে। এর পৃষ্ঠাগুলো দৈর্ঘ্যে ৩৪.৩ সেন্টিমিটার এবং প্রস্থে ২৫.৮ সেন্টিমিটার।

২. সানায় পাণ্ডুলিপি : ১৯৭২ সালে ইয়েমেনের গ্রেট মস্ক অফ সানার একটি দেয়াল ধসে পড়লে সেটি সংস্কার করার সময় মাটির নিচে গোপন একটি কুঠুরিতে প্রচুর প্রাচীন পাণ্ডুলিপি পাওয়া যায়। অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর এ পাণ্ডুলিপিগুলোর মধ্যে ৮১টি পাতাকে কোরআন শরিফের পাণ্ডুলিপি হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। কোরআন শরিফের অন্য সব প্রাচীন পাণ্ডুলিপির তুলনায় সানার পাণ্ডুলিপিটি একেবারেই ভিন্ন। চামড়া থেকে তৈরি পার্চমেন্টের ওপর এখানে একই সঙ্গে দুটি লেয়ারে ভিন্ন দুটি পাণ্ডুলিপির অস্তিত্বের প্রমাণ পাওয়া গেছে। অর্থাৎ একই কাগজের ওপর প্রথমে একবার কোরআন লিপিবদ্ধ করা হয়েছিল; কিন্তু পরবর্তী সময়ে কোনো কারণে সেই কালি মুছে ফেলা হয় এবং তার ওপর আবারও নতুন করে কোরআন শরিফ লিপিবদ্ধ করা হয়। পুরনো লিপির কালিতে লৌহচূর্ণের উপস্থিতি থাকায়, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তা ছায়ার মতো করে দৃশ্যমান হয়ে ওঠে।

রেডিওকার্বন ডেটিং থেকে প্রাপ্ত ফলাফলের ভিত্তিতে গবেষকরা দাবি করেছেন, ৬৮ শতাংশ সম্ভাবনা আছে পাণ্ডুলিপিটি রচনা করা হয়েছিল ৬১৪ থেকে ৬৫৬ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে। ৯৫ শতাংশ সম্ভাবনা আছে এটি রচিত হয়েছিল ৫৭৮ থেকে ৬৬৯ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে। অর্থাৎ পাণ্ডুলিপির প্রাচীন লিপিটি নবীজি (সা.)-এর জীবদ্দশায় কিংবা তার মৃত্যুর প্রথম কয়েক দশকের মধ্যেই লেখা হয়েছে।

৩. তুবিনজেন পাণ্ডুলিপি : তুবিনজেন ফ্র্যাগমেন্ট নামে পরিচিত কোরআন শরিফের এ পাণ্ডুলিপিটি বর্তমানে সংরক্ষিত আছে জার্মানির তুবিনজেন বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরিতে। ঊনবিংশ শতাব্দীর মাঝামাঝি সময় দামেস্কে নিযুক্ত প্রুশিয়ার কনসাল জোহান গটফ্রাইড ওয়েট্জস্টাইন এটি সংগ্রহ করেছিলেন; যা পরবর্তী সময়ে অন্যান্য আরবি পাণ্ডুলিপির সঙ্গে জার্মানিতে গিয়ে পৌঁছে।

২০১৪ সালের নভেম্বরে তুবিনজেন বিশ্ববিদ্যালয় এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানায়, তারা পাণ্ডুলিপির তিনটি পাতা নিয়ে গবেষণা করে নিশ্চিত হয়েছেন, এটি হিজরি প্রথম শতকে, নবীজি (সা.)-এর ইন্তেকালের ২০ থেকে ৪০ বছর সময়ের মধ্যেই লেখা হয়েছিল। কার্বন ডেটিংয়ের মাধ্যমে তুবিনজেন বিশ্ববিদ্যালয় ৯৫.৪ শতাংশ নিশ্চয়তা দিয়ে দাবি করেছে, এটি লেখা হয়েছিল ৬৪৯ থেকে ৬৭৫ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে। অর্থাৎ হজরত উসমান (রা.) কিংবা হজরত আলী (রা.)-এর খেলাফতকালে।

তুবিনজেন ফ্র্যাগমেন্টে ১৭ নম্বর সূরার (আল-ইসরা) ৩৬ নম্বর আয়াত থেকে ৩৬ নম্বর সূরার (ইয়াসিন) ৫৭ নম্বর আয়াত পর্যন্ত লিপিবদ্ধ আছে; যা সম্পূর্ণ কোরআনের প্রায় ২৬.২ শতাংশ। পশুর চামড়া থেকে প্রস্তুতকৃত পৃষ্ঠাগুলোর প্রতিটির আকার দৈর্ঘ্যে ১৯.৫ সেন্টিমিটার এবং প্রস্থে ১৫.৩ সেন্টিমিটার, এর প্রতিটি পৃষ্ঠায় গড়ে ১৮ থেকে ২১টি করে লাইন আছে। আগ্রহীরা এর প্রতিটি পৃষ্ঠা অনলাইনে এখান থেকে দেখতে পারবেন।

লেখক : আলেম ও কবি।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» ঝিনাইগাতীতে পানিতে ডুবে মৃগী রোগীর মৃত্যু

» শেরপুরে দায়িত্বের ২ বছর ॥ প্রত্যাশা ও প্রাপ্তির সমীকরণে জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব

» ঝিনাইগাতীতে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবসে সংবাদ সম্মেলন ও স্মারকলিপি প্রদান

» সাবমেরিন ক্যাবলে জটিলতায় ইন্টারনেটে ধীরগতি

» সুরকার ও সংগীত পরিচালক আলাউদ্দিন আলী আর নেই

» প্রকাশ্যে বয়স্ক বিধবাসহ বিভিন্ন ভাতার কার্ড বিতরণ, গ্রহীতারা দারুন খুশি

» বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা সংগ্রামের মহানায়ক হয়ে উঠেছেন তার সহধর্মিণীর অনুপ্রেরণায় : মতিয়া চৌধুরী

» ভিডিও কলিং অ্যাপ জুমে নতুন ফিচার

» একাদশে ভর্তি কার্যক্রম শুরু

» ৭ বছর পর ফের একসঙ্গে শাকিব-মাহি

» দীপিকায় ভরসা নিয়ে ফিরছেন শাহরুখ

» রাজনৈতিক পরিচয় অপরাধীর আত্মরক্ষার ঢাল হতে পারে না: কাদের

» দেশে করোনায় আরও ৩৪ মৃত্যু, শনাক্ত ২৪৮৭

» শেরপুর রোটারী ক্লাবের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করলেন হুইপ আতিক

» নালিতাবাড়ীতে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস পালিত

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  সকাল ৭:৫৩ | সোমবার | ১০ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

প্রাচীন কোরআনের স্মৃতিময় পাণ্ডুলিপি

আদিল মাহমুদ : সব প্রশংসা আল্লাহতায়ালার, যিনি পবিত্র কোরআন শরিফ নাজিল করেছেন এবং বলেছেন, ‘আমি উপদেশ গ্রন্থ নাজিল করেছি এবং আমি নিজেই এর সংরক্ষক’ [সূরাহিজর-৯]

img-add

কোরআনের প্রতিটি আয়াত নাজিলের সঙ্গে সঙ্গেই নবীজি (সা.)-এর সাহাবিরা তা মুখস্থ করে ফেলতেন। অনেকে বিচ্ছিন্নভাবে লিখেও রাখতেন। পরবর্তী সময়ে নবীজি (সা.)-এর মৃত্যুর পর খুলাফায়ে রাশেদিনদের সময়ে কোরআন শরিফ একত্রিত করা হয়।

ইসলামের প্রাথমিক যুগে লেখা কোরআন শরিফের কোনো পাণ্ডুলিপি কি এখনও টিকে আছে? থাকলে সেগুলো কোথায় আছে দেখতে কেমন?

হজরত উসমান (রা.)-এর সময় লিপিবদ্ধ কোরআন শরিফের পাণ্ডুলিপির সন্ধান পাওয়া না গেলেও বর্তমানে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের জাদুঘরে, গ্রন্থাগারে কোরআন শরিফের এমন কয়েকটি পাণ্ডুলিপি সংরক্ষিত আছে, যেগুলো রচিত হয়েছিল নবীজি (সা.)-এর মৃত্যুর পর প্রথম কিংবা দ্বিতীয় শতকেই।

চলুন জেনে নিই বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা কোরআন শরিফের প্রাচীনতম কয়েকটি পাণ্ডুলিপির ইতিবৃত্তান্ত-

১. বার্মিংহাম পাণ্ডুলিপি : ইংল্যান্ডের বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ে সংরক্ষিত কোরআন শরিফের দুটি পাতাকে কোরআনের প্রাচীনতম পাণ্ডুলিপি বলা হয়। রেডিওকার্বন ডেটিংয়ের মাধ্যমে প্রাপ্ত ফলাফলের ভিত্তিতে বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা ৯৫.৪ শতাংশ নিশ্চয়তা দিয়ে দাবি করেছেন, ‘এই পাণ্ডুলিপিটি লেখা হয়েছিল ৬৪৫ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে। কোরআন শরিফ নাজিল হয়েছিল ৬০৯ থেকে ৬৩২ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত। এ জন্য ধারণা করা হয়, এটি নবীজি (সা.)-এর জীবিত অবস্থায় কিংবা তার মৃত্যুর কয়েক বছরের মধ্যেই লিপিবদ্ধ করা হয়েছিল।

পাণ্ডুলিপিটির মাত্র দুটি পাতার সন্ধান পাওয়া গেছে। একটি পাতায় আছে সূরা আল-কাহফের ১৭-৩১ আয়াত, অন্য পাতায় আছে সূরা মারিয়ামের ৯১-৯৮ আয়াত এবং সূরা তাহার ১-৪০ আয়াত। বলা হয়, পাণ্ডুলিপিটি লেখা হয়েছিল গরুর বাছুর, ছাগল কিংবা ভেড়ার চামড়া থেকে প্রস্তুতকৃত কাগজের ওপর। পাণ্ডুলিপিটিতে হিজাজি লিপি অনুসরণ করা হয়েছে। এর পৃষ্ঠাগুলো দৈর্ঘ্যে ৩৪.৩ সেন্টিমিটার এবং প্রস্থে ২৫.৮ সেন্টিমিটার।

২. সানায় পাণ্ডুলিপি : ১৯৭২ সালে ইয়েমেনের গ্রেট মস্ক অফ সানার একটি দেয়াল ধসে পড়লে সেটি সংস্কার করার সময় মাটির নিচে গোপন একটি কুঠুরিতে প্রচুর প্রাচীন পাণ্ডুলিপি পাওয়া যায়। অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর এ পাণ্ডুলিপিগুলোর মধ্যে ৮১টি পাতাকে কোরআন শরিফের পাণ্ডুলিপি হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। কোরআন শরিফের অন্য সব প্রাচীন পাণ্ডুলিপির তুলনায় সানার পাণ্ডুলিপিটি একেবারেই ভিন্ন। চামড়া থেকে তৈরি পার্চমেন্টের ওপর এখানে একই সঙ্গে দুটি লেয়ারে ভিন্ন দুটি পাণ্ডুলিপির অস্তিত্বের প্রমাণ পাওয়া গেছে। অর্থাৎ একই কাগজের ওপর প্রথমে একবার কোরআন লিপিবদ্ধ করা হয়েছিল; কিন্তু পরবর্তী সময়ে কোনো কারণে সেই কালি মুছে ফেলা হয় এবং তার ওপর আবারও নতুন করে কোরআন শরিফ লিপিবদ্ধ করা হয়। পুরনো লিপির কালিতে লৌহচূর্ণের উপস্থিতি থাকায়, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তা ছায়ার মতো করে দৃশ্যমান হয়ে ওঠে।

রেডিওকার্বন ডেটিং থেকে প্রাপ্ত ফলাফলের ভিত্তিতে গবেষকরা দাবি করেছেন, ৬৮ শতাংশ সম্ভাবনা আছে পাণ্ডুলিপিটি রচনা করা হয়েছিল ৬১৪ থেকে ৬৫৬ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে। ৯৫ শতাংশ সম্ভাবনা আছে এটি রচিত হয়েছিল ৫৭৮ থেকে ৬৬৯ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে। অর্থাৎ পাণ্ডুলিপির প্রাচীন লিপিটি নবীজি (সা.)-এর জীবদ্দশায় কিংবা তার মৃত্যুর প্রথম কয়েক দশকের মধ্যেই লেখা হয়েছে।

৩. তুবিনজেন পাণ্ডুলিপি : তুবিনজেন ফ্র্যাগমেন্ট নামে পরিচিত কোরআন শরিফের এ পাণ্ডুলিপিটি বর্তমানে সংরক্ষিত আছে জার্মানির তুবিনজেন বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরিতে। ঊনবিংশ শতাব্দীর মাঝামাঝি সময় দামেস্কে নিযুক্ত প্রুশিয়ার কনসাল জোহান গটফ্রাইড ওয়েট্জস্টাইন এটি সংগ্রহ করেছিলেন; যা পরবর্তী সময়ে অন্যান্য আরবি পাণ্ডুলিপির সঙ্গে জার্মানিতে গিয়ে পৌঁছে।

২০১৪ সালের নভেম্বরে তুবিনজেন বিশ্ববিদ্যালয় এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানায়, তারা পাণ্ডুলিপির তিনটি পাতা নিয়ে গবেষণা করে নিশ্চিত হয়েছেন, এটি হিজরি প্রথম শতকে, নবীজি (সা.)-এর ইন্তেকালের ২০ থেকে ৪০ বছর সময়ের মধ্যেই লেখা হয়েছিল। কার্বন ডেটিংয়ের মাধ্যমে তুবিনজেন বিশ্ববিদ্যালয় ৯৫.৪ শতাংশ নিশ্চয়তা দিয়ে দাবি করেছে, এটি লেখা হয়েছিল ৬৪৯ থেকে ৬৭৫ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে। অর্থাৎ হজরত উসমান (রা.) কিংবা হজরত আলী (রা.)-এর খেলাফতকালে।

তুবিনজেন ফ্র্যাগমেন্টে ১৭ নম্বর সূরার (আল-ইসরা) ৩৬ নম্বর আয়াত থেকে ৩৬ নম্বর সূরার (ইয়াসিন) ৫৭ নম্বর আয়াত পর্যন্ত লিপিবদ্ধ আছে; যা সম্পূর্ণ কোরআনের প্রায় ২৬.২ শতাংশ। পশুর চামড়া থেকে প্রস্তুতকৃত পৃষ্ঠাগুলোর প্রতিটির আকার দৈর্ঘ্যে ১৯.৫ সেন্টিমিটার এবং প্রস্থে ১৫.৩ সেন্টিমিটার, এর প্রতিটি পৃষ্ঠায় গড়ে ১৮ থেকে ২১টি করে লাইন আছে। আগ্রহীরা এর প্রতিটি পৃষ্ঠা অনলাইনে এখান থেকে দেখতে পারবেন।

লেখক : আলেম ও কবি।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!