দুপুর ২:১৮ | মঙ্গলবার | ৪ঠা আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর ভুটান

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : ভারত ও চীনের মধ্যবর্তী এক স্থানে ভুটানের অবস্থান। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর এ দেশটিকে এশিয়ার সবচেয়ে সুখী রাষ্ট্র বলা হয়। বিশ্বের অন্যতম সুখী রাষ্ট্রের তালিকায় আছে ভুটানের নাম। মনোরম প্রাকৃতিক দৃশ্য, চমৎকার পর্বতমালা, প্রাচীন সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্যবাহী জীবনধারা দেখতে গোটা বিশ্ব থেকে এখানে প্রতিবছর পর্যটকরা আসেন। ভুটানের কয়েকটি দর্শনীয় স্থান-

img-add

হা ভ্যালি

হা ভ্যালি : পারোর দক্ষিণ -পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত হা ভ্যালি ভূটানের ক্ষুদ্রতম ও প্রত্যন্ততম একটি জেলা। এখানে আছে প্রাচীন আল্পাইন বন, পাহাড়। এ উপত্যকায় ওই দেশের রানীর দাদির পৈতৃক বাড়ির অবস্থান ছিল। যারা পাহাড়ে ঘুরে বেড়াতে পছন্দ করেন তাদের জন্য এ স্থানটি খুবই আকর্ষনীয়।

পারো
পারো : চু এবং ওয়াং চু নদীর মিলনস্থানের কাছে বিস্তৃত উপত্যকা অঞ্চলের নাম পারো। উপত্যকার নিচ দিয়ে প্রবাহিত নদী পর্যটকদের মন জুড়িয়ে দেয়। ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক কারণেও এটি পর্যটকদের কাছে দর্শনীয় স্থান হিসেবে পরিচিত। এখানে দেশটির একমাত্র আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর অবস্থিত।

পুনাখা

পুনাখা : ১৬৩৭ থেকে ১৯০৭ সাল পর্যন্ত পুনাখা ভুটানের রাজধানী ছিল। ঐতিহাসিভাবে এ স্থানের যথেষ্ট গুরুত্ব রয়েছে। ভুটানের দুটি প্রধান নদী ফু চু এবং মো চু এ উপত্যকায় এসে মিশেছে। পুনাখা প্রশাসনিক কেন্দ্র পুনাখ ভূ-পৃষ্ঠ থেকে ১২ হাজার মিটার উচ্চতায় স্থাপিত।

থিম্পু

থিম্পু : দেশের পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত থিম্পু ভুটানের রাজধানী। বিশ্বের অন্য যেকোনো দেশের রাজধানী থেকে থিম্পু আলাদা কারণ এখানে কোনো বিমানবন্দর নেই। এর জন্য প্রায় ৫৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত পারোর ওপরই এ রাজধানী নির্ভরশীল। থিম্পু বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ রাজধানী শহর। এখানে অনেক রেস্তোরাঁ, নাইটক্লাব এবং শপিং সেন্টার রয়েছে। আধুনিকতার ছোঁয়া থাকলেও এ শহরটি এখনও তাদের প্রাচীন ঐতিহ্য ধরে রেখেছে। থিম্পুর আকর্ষণীয় স্থানগুলোর মধ্যে চাঙ্গাংখা লখাং, জাতীয় লোকসাতিহ্য জাদুঘর এবং সিমটোখা জজং উল্লেখযোগ্য।

ফুন্টসোলিং

ফুন্টসোলিং : ভুটানের সবচেয়ে বেশি নগরায়ণ হয়েছে ফুন্টসোলিং শহরে। এ অঞ্চলটি দেশের আর্থিক, শিল্প ও বাণিজ্যের প্রধান অঞ্চল হিসেবে পরিচিত। ফুন্টসোলিং সীমান্ত ভুটানকে ভারত থেকে পৃথক করেছে। এ পথ দিয়ে যেতে যেতে এখানকার সংস্কৃতি, জীবনযাত্রা এবং প্রাকৃতিক দৃশ্য সহজেই মন কাড়ে পর্যটকদের। এ শহরটি ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যের জন্য ভুটানের প্রবেশদ্বার হিসেবেও পরিচিত। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» শেরপুরে অনলাইন নিউজপোর্টাল কালেরডাক২৪ডটকম’র উদ্বোধন করলেন হুইপ আতিক

» শেরপুরে সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করলেন জেলা প্রশাসক

» নালিতাবাড়ীতে শ্বশুরবাড়ি থেকে জামাইয়ের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

» নালিতাবাড়ীতে বজ্রপাতে কলেজছাত্রের মৃত্যু

» কোভিড-১৯ মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছেন : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

» দোকান-শপিংমল রাত ৮টার মধ্যে বন্ধের নির্দেশ, ই-কমার্স সাইট ব্যবহারের আহ্বান

» দেশে করোনায় আরও ৩০ মৃত্যু, শনাক্ত ১৩৫৬

» করোনাকালে রেমিট্যান্স ও রিজার্ভে রেকর্ড

» ঝিনাইগাতীতে পুকুরের পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

» শেরপুরে করোনা আক্রান্ত সহকর্মীর খোঁজ নিলেন পুলিশ সুপার আজীম

» নালিতাবাড়ীতে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী কিশোর নিহত : আহত ২

» ঝিনাইগাতী উপজেলা চেয়ারম্যান নাইমের পিতার ইন্তেকাল

» সাবেক সেনা কর্মকর্তা নিহতের ঘটনায় ২০ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

» মানুষ যেন উন্নত জীবন পায়, সেটাই সরকারের লক্ষ্য : প্রধানমন্ত্রী

» স্মৃতির পাতায় আজও বহমান তুমি ॥ মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  দুপুর ২:১৮ | মঙ্গলবার | ৪ঠা আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর ভুটান

শ্যামলবাংলা ডেস্ক : ভারত ও চীনের মধ্যবর্তী এক স্থানে ভুটানের অবস্থান। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর এ দেশটিকে এশিয়ার সবচেয়ে সুখী রাষ্ট্র বলা হয়। বিশ্বের অন্যতম সুখী রাষ্ট্রের তালিকায় আছে ভুটানের নাম। মনোরম প্রাকৃতিক দৃশ্য, চমৎকার পর্বতমালা, প্রাচীন সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্যবাহী জীবনধারা দেখতে গোটা বিশ্ব থেকে এখানে প্রতিবছর পর্যটকরা আসেন। ভুটানের কয়েকটি দর্শনীয় স্থান-

img-add

হা ভ্যালি

হা ভ্যালি : পারোর দক্ষিণ -পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত হা ভ্যালি ভূটানের ক্ষুদ্রতম ও প্রত্যন্ততম একটি জেলা। এখানে আছে প্রাচীন আল্পাইন বন, পাহাড়। এ উপত্যকায় ওই দেশের রানীর দাদির পৈতৃক বাড়ির অবস্থান ছিল। যারা পাহাড়ে ঘুরে বেড়াতে পছন্দ করেন তাদের জন্য এ স্থানটি খুবই আকর্ষনীয়।

পারো
পারো : চু এবং ওয়াং চু নদীর মিলনস্থানের কাছে বিস্তৃত উপত্যকা অঞ্চলের নাম পারো। উপত্যকার নিচ দিয়ে প্রবাহিত নদী পর্যটকদের মন জুড়িয়ে দেয়। ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক কারণেও এটি পর্যটকদের কাছে দর্শনীয় স্থান হিসেবে পরিচিত। এখানে দেশটির একমাত্র আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর অবস্থিত।

পুনাখা

পুনাখা : ১৬৩৭ থেকে ১৯০৭ সাল পর্যন্ত পুনাখা ভুটানের রাজধানী ছিল। ঐতিহাসিভাবে এ স্থানের যথেষ্ট গুরুত্ব রয়েছে। ভুটানের দুটি প্রধান নদী ফু চু এবং মো চু এ উপত্যকায় এসে মিশেছে। পুনাখা প্রশাসনিক কেন্দ্র পুনাখ ভূ-পৃষ্ঠ থেকে ১২ হাজার মিটার উচ্চতায় স্থাপিত।

থিম্পু

থিম্পু : দেশের পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত থিম্পু ভুটানের রাজধানী। বিশ্বের অন্য যেকোনো দেশের রাজধানী থেকে থিম্পু আলাদা কারণ এখানে কোনো বিমানবন্দর নেই। এর জন্য প্রায় ৫৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত পারোর ওপরই এ রাজধানী নির্ভরশীল। থিম্পু বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ রাজধানী শহর। এখানে অনেক রেস্তোরাঁ, নাইটক্লাব এবং শপিং সেন্টার রয়েছে। আধুনিকতার ছোঁয়া থাকলেও এ শহরটি এখনও তাদের প্রাচীন ঐতিহ্য ধরে রেখেছে। থিম্পুর আকর্ষণীয় স্থানগুলোর মধ্যে চাঙ্গাংখা লখাং, জাতীয় লোকসাতিহ্য জাদুঘর এবং সিমটোখা জজং উল্লেখযোগ্য।

ফুন্টসোলিং

ফুন্টসোলিং : ভুটানের সবচেয়ে বেশি নগরায়ণ হয়েছে ফুন্টসোলিং শহরে। এ অঞ্চলটি দেশের আর্থিক, শিল্প ও বাণিজ্যের প্রধান অঞ্চল হিসেবে পরিচিত। ফুন্টসোলিং সীমান্ত ভুটানকে ভারত থেকে পৃথক করেছে। এ পথ দিয়ে যেতে যেতে এখানকার সংস্কৃতি, জীবনযাত্রা এবং প্রাকৃতিক দৃশ্য সহজেই মন কাড়ে পর্যটকদের। এ শহরটি ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যের জন্য ভুটানের প্রবেশদ্বার হিসেবেও পরিচিত। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!