সকাল ৮:২৯ | শনিবার | ১৪ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

নালিতাবাড়ীতে পাহাড়ি ঢলে ভোগাই নদীর বাঁধ ভেঙে ৭ গ্রাম প্লাবিত

নালিতাবাড়ী (শেরপুর) প্রতিনিধি ॥ শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে ও কয়েক দিনের অবিরাম বৃষ্টির পানিতে উপজেলার মরিচপুরান এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের দুটি স্থানে ভোগাই নদীর সাড়ে ৬শ ফুট বাঁধ ভেঙে ৭ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। জলাবদ্ধতায় সড়ক ডুবে থাকায় এবং বাড়ি ঘরে পানি থাকায় দু’দিন ধরে ৭ গ্রামের মানুষ নিদারুণ কষ্টের শিকার হচ্ছেন।
স্থানীয় এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কয়েক দিন ধরে অতি বৃষ্টি এবং উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে ভোগাই নদীর পানি বৃদ্ধি পায়। সোমবার মধ্যরাতে উত্তর কোন্নগনর রাজারখাল পাড় এলাকায় ভোগাই নদীর ২শ ফুট বাঁধ ও ফকিরপাড়া চেয়ারম্যানের বাড়ির পেছনে ভোগাই নদীর সাড়ে ৪শ ফুট বাঁধ ভেঙে যায়। ভাঙন অংশ দিয়ে ভোগাই নদীর ঢলের পানি প্রবেশ করে মরিচপুরান, বাঁশকান্দা, ফকিরপাড়া, খলাভাঙ্গা, ভোগাইরপাড়, মরিচপুরান পুর্বপাড়া ও উল্লারপাড় গ্রামের আশপাশে এলাকাগুলোতে বন্যা দেখা দিয়েছে। বন্যার পানি সড়কে থাকায় ফকিরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়, খলাভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের ক্লাশ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। মরিচপুরান থেকে ফকিরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সড়কে, মরিচপুরান চৌরাস্তা বাজার থেকে ছনটাল হয়ে রাবারড্যামের সড়কে ও মরিচপুরান পুর্বপাড়া থেকে খলাভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের সড়ক উপর দিয়ে দু’দিন ধরে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। পাহাড়ি ঢলের পানিতে প্রায় অর্ধ শতাধিক মাছ চাষিদের পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। যাতায়াতের সড়কে পানি থাকায় এলাকাবাসি চলাচল করতে পারছেন না। বন্যার পানি নিস্কাশনের জন্য ভেঙে যাওয়া বাঁধ দ্রুত সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।
মরিচপুরান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খন্দকার শফিক আহমেদ জানান, দুই অংশে সাড়ে ৬শ ফুট ভোগাই নদীর বাঁধ ভেঙে গেছে। ভাঙণ অংশ দিয়ে পানি প্রবেশ করায় সড়কসহ ৭টি গ্রামে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে।
উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোকছেদুর রহমান লেবু বলেন, দুটি ভাঙন অংশ দেখেছি। বাঁধটি সংস্কারের জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অবহিত করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী নবকুমার চৌধুরী জানান, নালিতাবাড়ী উপজেলার মরিচপুরান গ্রামের পানি উন্নয়ন বোর্ডের দুইটি এলাকার বাধ প্রবল স্রোতে ভেঙে যায়। পানি কমে যাওয়ার পর সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হবে। তিনি বলেন, ভারতের মেঘালয় রাজ্যে প্রবল বৃষ্টিপাত হচ্ছে। যার ফলে পাহাড়ি ঢলে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশংকা রয়েছে।
নালিতাবাড়ী উপজেলার ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা লুবনা শারমিন বলেন, পাহাড়ি ঢলে বৃদ্ধি পেয়ে ৭টি গ্রামের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। ইতোমধ্যেই বন্যাকবলিত মানুষের মাঝে ১০ মেট্রিক টন চাউল বিতরণ করা হয়েছে।

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» শেরপুরে জেলা পরিষদের অর্থায়নে টিউবওয়েল বিতরণ

» কেন ১৫৯ দিন চুপ ছিলেন, জানালেন মাশরাফি

» শেরপুরে ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝির বিদায় সংবর্ধনা

» নকলায় ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস পালিত

» ‘বিগ বসে’ কি থাকছেন না সালমান?

» হিমালয় কন্যা নেপালে

» পিএসজির আগুনে পুড়ল গ্যালাতাসারে

» খালেদা জিয়া রাজি হলে উন্নত চিকিৎসা : অ্যাটর্নি জেনারেল

» ঘুষ ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সজাগ থাকার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

» মিয়ানমারকে বিশ্বাস করা যায় না: গাম্বিয়া

» খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ

» ফেক নিউজ ঠেকাতে লড়াইয়ের ঘোষণা ফেসবুকের

» বালিশ কাণ্ডে গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলীসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলার অনুমোদন

» নাগরিকত্ব সংশোধন বিল: আসামে কারফিউ উপেক্ষা করে রাস্তায় জনতা

» নকলায় আমন ধান সংগ্রহ অভিযান উদ্বোধন

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  সকাল ৮:২৯ | শনিবার | ১৪ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

নালিতাবাড়ীতে পাহাড়ি ঢলে ভোগাই নদীর বাঁধ ভেঙে ৭ গ্রাম প্লাবিত

নালিতাবাড়ী (শেরপুর) প্রতিনিধি ॥ শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে ও কয়েক দিনের অবিরাম বৃষ্টির পানিতে উপজেলার মরিচপুরান এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের দুটি স্থানে ভোগাই নদীর সাড়ে ৬শ ফুট বাঁধ ভেঙে ৭ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। জলাবদ্ধতায় সড়ক ডুবে থাকায় এবং বাড়ি ঘরে পানি থাকায় দু’দিন ধরে ৭ গ্রামের মানুষ নিদারুণ কষ্টের শিকার হচ্ছেন।
স্থানীয় এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কয়েক দিন ধরে অতি বৃষ্টি এবং উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে ভোগাই নদীর পানি বৃদ্ধি পায়। সোমবার মধ্যরাতে উত্তর কোন্নগনর রাজারখাল পাড় এলাকায় ভোগাই নদীর ২শ ফুট বাঁধ ও ফকিরপাড়া চেয়ারম্যানের বাড়ির পেছনে ভোগাই নদীর সাড়ে ৪শ ফুট বাঁধ ভেঙে যায়। ভাঙন অংশ দিয়ে ভোগাই নদীর ঢলের পানি প্রবেশ করে মরিচপুরান, বাঁশকান্দা, ফকিরপাড়া, খলাভাঙ্গা, ভোগাইরপাড়, মরিচপুরান পুর্বপাড়া ও উল্লারপাড় গ্রামের আশপাশে এলাকাগুলোতে বন্যা দেখা দিয়েছে। বন্যার পানি সড়কে থাকায় ফকিরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়, খলাভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের ক্লাশ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। মরিচপুরান থেকে ফকিরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সড়কে, মরিচপুরান চৌরাস্তা বাজার থেকে ছনটাল হয়ে রাবারড্যামের সড়কে ও মরিচপুরান পুর্বপাড়া থেকে খলাভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের সড়ক উপর দিয়ে দু’দিন ধরে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। পাহাড়ি ঢলের পানিতে প্রায় অর্ধ শতাধিক মাছ চাষিদের পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। যাতায়াতের সড়কে পানি থাকায় এলাকাবাসি চলাচল করতে পারছেন না। বন্যার পানি নিস্কাশনের জন্য ভেঙে যাওয়া বাঁধ দ্রুত সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।
মরিচপুরান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খন্দকার শফিক আহমেদ জানান, দুই অংশে সাড়ে ৬শ ফুট ভোগাই নদীর বাঁধ ভেঙে গেছে। ভাঙণ অংশ দিয়ে পানি প্রবেশ করায় সড়কসহ ৭টি গ্রামে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে।
উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোকছেদুর রহমান লেবু বলেন, দুটি ভাঙন অংশ দেখেছি। বাঁধটি সংস্কারের জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অবহিত করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী নবকুমার চৌধুরী জানান, নালিতাবাড়ী উপজেলার মরিচপুরান গ্রামের পানি উন্নয়ন বোর্ডের দুইটি এলাকার বাধ প্রবল স্রোতে ভেঙে যায়। পানি কমে যাওয়ার পর সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হবে। তিনি বলেন, ভারতের মেঘালয় রাজ্যে প্রবল বৃষ্টিপাত হচ্ছে। যার ফলে পাহাড়ি ঢলে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশংকা রয়েছে।
নালিতাবাড়ী উপজেলার ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা লুবনা শারমিন বলেন, পাহাড়ি ঢলে বৃদ্ধি পেয়ে ৭টি গ্রামের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। ইতোমধ্যেই বন্যাকবলিত মানুষের মাঝে ১০ মেট্রিক টন চাউল বিতরণ করা হয়েছে।

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!