প্রকাশকাল: 15 জুন, 2019

নকলা উপজেলা নির্বাচন ॥ শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা, আ’লীগে আ’লীগে লড়াই

নকলা (শেরপুর) প্রতিনিধি ॥ পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের পঞ্চম ধাপে অনুষ্ঠেয় শেরপুরের নকলা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় রাত-দিন ব্যস্ত সময় পার করছেন চেয়ারম্যান ও ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। তারা বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগের পাশাপাশি প্রতিদিন প্রায় ৮/১০টি নির্বাচনী সভায় যোগ দিচ্ছেন। ভোটারদের কাছে প্রার্থীরা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন নানা উন্নয়নের। বিএনপি বা অন্য কোন দলের প্রার্থী না থাকায় এবার চেয়ারম্যান, ভাইস-চেয়ারম্যান ও সংরক্ষিত ভাইস-চেয়ারম্যান পদের সবগুলোতেই লড়াই হচ্ছে আওয়ামী লীগ আওয়ামী লীগে। ১৮ জুন মঙ্গলবার ওই উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ওই নির্বাচন অনুষ্ঠানে ইতোমধ্যে সার্বিক প্রস্তুতি প্রায় শেষ হয়েছে।
জানা যায়, এবারের নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নেওয়ায় আওয়ামী লীগেরই ২ প্রার্থী লড়ছেন চেয়ারম্যান পদে। তাদের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম জিন্নাহ নৌকা এবং দলের বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শাহ মোঃ বোরহান উদ্দিন লড়ছেন মোটর সাইকেল প্রতীক নিয়ে লড়ছেন। এছাড়া ভাইস-চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সারোয়ার আলম তালুকদার চশমা এবং অপর প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক রফিকুল ইসলাম সোহেল তালা প্রতীক নিয়ে লড়ছেন। আর মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা উম্মে কুলসুম রেনু প্রজাপতি, ফরিদা ইয়াসমিন কলসি ও লাকি আক্তার ফুটবল প্রতীক নিয়ে লড়ছেন।
মাঠ পর্যায়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এলাকায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শফিকুল ইসলাম জিন্নাহর রয়েছে ক্লিন ইমেজ। সাহসী, কর্মউদ্যোগী ও স্পষ্টভাষী নেতা হিসেবে তার রয়েছে পরিচিতি। চেয়ারম্যান পদে দলের ক্ষুদ্র একটি অংশ বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে অবস্থান নিলেও নৌকার পক্ষে একাট্টা হয়ে কাজ করছেন জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা। বিদায়ী উপজেলা চেয়ারম্যান নৌকার পক্ষে সরাসরি না নামলেও নীরবেই বসে আছেন। ফলে দিনক্ষণ যতই ঘনিয়ে আসছে, নৌকার অবস্থান ততই ভারি হচ্ছে। অন্যদিকে বিদ্রোহী প্রার্থী শাহ মোঃ বোরহান উদ্দিন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি প্রয়াত মোজাম্মেল হক মাস্টারের ছেলে হওয়ায় এলাকায় তারও রয়েছে পারিবারিক ঐতিহ্য। তার পক্ষে প্রথমদিকে দলের একটি অংশসহ মাঠ পর্যায়ের বিএনপি-জামায়াত ঘরানার নেতা-কর্মীরা উৎসাহ যোগান দেওয়ায় অবস্থান ভারি মনে হলেও শেষ সময়ে এসে তারা এখন পিছু হটছেন। এছাড়া বার বার বিদ্রোহী হওয়ার কারণেও রয়েছে কিছুটা নেতিবাচক প্রভাব। সব মিলিয়ে সেয়ানে সেয়ানে লড়াইয়ের মধ্য দিয়েও নৌকা বিজয়ী হলে আশ্চর্য হওয়ার কিছু থাকবে না।
এছাড়া ভাইস-চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সারোয়ার আলম তালুকদারের সাথে অপর প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক রফিকুল ইসলাম সোহেলের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে পারে। আর মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে ৩ প্রার্থীর মধ্যে সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা উম্মে কুলসুম রেনু ও ফরিদা ইয়াসমিনের মধ্যে দ্বিমুখী লড়াই হতে পারে।
উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম জানান, নকলা উপজেলায় একটি পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়নে মোট ভোটার রয়েছে ১ লাখ ৫১ হাজার ৫৩৫ জন। উপজেলায় ৬৭ টি কেন্দ্রের ৩৭৫টি বুথে ভোট গ্রহণ করা হবে। এজন্য ইতোমধ্যে ৬৭ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ৩৭৫ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ৭৫০ জন পোলিং অফিসারসহ নির্বাচনের দিন দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের সমস্যা মোকাবেলায় অতিরিক্ত শতকরা ৫ ভাগ অফিসারকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।
জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার শুকুর মাহমুদ মিঞা জানান, সুষ্ঠু পরিবেশে নির্বাচন সম্পন্ন করতে সব ধরণের প্রস্তুতি প্রায় শেষ করা হয়েছে। নির্বাচনে প্রতি কেন্দ্রে জুডিসিয়াল ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের পাশাপাশি পর্যাপ্ত পুলিশ, র‌্যাব, আনসারসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর স্ট্রাইকিং ফোর্স কাজ করবে।

আপনার মতামত দিন

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

error: Content is protected !!