নকলায় রাজলক্ষ্মী উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষ উৎসব ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি

উৎসবের আমেজ গণমাধ্যম কর্মীদের মাঝেও

বিশেষ প্রতিনিধি  ॥ শেরপুরের নকলা উপজেলায় চন্দ্রকোনা রাজলক্ষ্মী উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষ উৎসব ঘিরে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি। ৩০ মার্চ শনিবার উৎসবের উদ্বোধনের দিন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি প্রধান অতিথি এবং কৃষি মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, স্থানীয় সংসদ সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। এছাড়া প্রশাসনসহ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতায় বিভিন্ন উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। ফলে বিদ্যালয়টির শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের গুরুত্ব অনেকটাই বেড়ে গেছে। তাই বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকরা সংবাদ সংগ্রহে ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন।
সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নকলা উপজেলার একমাত্র শতবর্ষী ওই বিদ্যালয়ের উৎসবকে ঘিরে শিক্ষক-শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ এলাকাবাসীর পাশাপাশি স্থানীয় সাংবাদিকদের মাঝেও ছড়িয়ে পড়েছে উৎসবের আমেজ। স্থানীয় সাংবাদিক মোশারফ হোসেন, শাহজাদা স্বপন, মাহবুবুর রহমান, শফিউল আলম লাভলু, রফিক মিয়া, জিয়াউল হক জুয়েল ও সুখনসহ অনেকের সাথে কথা বলে পাওয়া যায় ওই চিত্র। তাদের মতে, চন্দ্রকোনা রাজলক্ষ্মী উচ্চ বিদ্যালয়টি উপজেলার একমাত্র শতবর্ষী বিদ্যালয় হওয়ায় এমনিতেই গুরুত্ব বহন করছে। তাছাড়া শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দীপু মনি উপস্থিত থাকার বিষয়টি সংবাদ সংগ্রহ করতে সকল সাংবাদিককে অনেকটা বাধ্য করে তুলেছে।
জানা যায়, তৎকালীন জামালপুর পৌরসভার জমিদার শ্রী গোপাল দাস চৌধুরী তাঁর বাবা গোবিন্দ কুমার (জি.কে) এর নামে শেরপুর শহরে ঐতিহ্যবাহী জি.কে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় এবং তাঁর মা রাজলক্ষ্মীর নামে নকলার চন্দ্রকোনায় রাজলক্ষ্মী উচ্চ বিদ্যালয় নামে ১৯১৯ সালে শিক্ষালয়টি প্রতিষ্ঠাতা করেন। এ বিদ্যালয়টি নকলা উপজেলা শহর থেকে প্রায় ৯ কিলোমিটার দক্ষিণে চন্দ্রকোনা বাজারের পশ্চিম পাশে অবস্থিত। ২০১৯ সালে বিদ্যালয়টি শতবর্ষী হওয়ায় শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন বিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। আগামী ৩০ ও ৩১ মার্চ শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান হতে যাচ্ছে। যদিও এর আগে ২৭ ও ২৮ মার্চে অনুষ্ঠিত হওয়ার তারিখ নির্ধারণ করে চিঠি বিলি করা হয়েছিল। কিন্তু ওই তারিখে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি দেশের বাইরে অবস্থান করবেন বলে ওই তারিখ পরিবর্তন করে পুনরায় ৩০ ও ৩১ মার্চ নির্ধারণ করা হয়েছে।
শতবর্ষ উদযাপন পরিষদের অন্যতম সদস্য সফিকুল ইসলাম সুখন জানান, শতবর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠান সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী জনতা ব্যাংকের সাবেক জেনারেল ম্যানেজার মো. আক্রাম হোসাইনকে সভাপতি করে শতবর্ষ উদযাপন কমিটি গঠন করা হয়েছে। তাছাড়া অনুষ্ঠান সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে গঠন করা হয়েছে বেশ কয়েকটি উপ-কমিটি। চন্দ্রকোনা রাজলক্ষ্মী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম জানান, দেশ বিদেশে এই বিদ্যালয়ের সুনাম ছড়িয়ে আছে। তিনি বলেন, ১৯১৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পরে শিক্ষকরা বছরে দুইবার সরকারি অনুদানের টাকা পেতেন। তবে ১৯৮৪ সাল থেকে শিক্ষকরা নিয়মিত সরকারি অনুদানের (এমপিও) টাকা পেয়ে আসছেন।
বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি, ইউপি চেয়ারম্যান সাজু সাঈদ সিদ্দিকী জানান, এই বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা অত্যন্ত অভিজ্ঞ ও শিক্ষার্থী বান্ধব। তারা দক্ষতার সাথে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করে আসছেন বলেই ফলাফলে সেরা প্রতিষ্ঠানের স্থান দখল করে আছে এ প্রতিষ্ঠানটি।

আপনার মতামত দিন

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

error: Content is protected !!