সকাল ১০:৪৩ | বৃহস্পতিবার | ২৯শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ধর্ষণ-হত্যায় দ্রুত বিচারে উচ্চ আদালতের রায়ের বাস্তবায়ন হোক

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্ষণ বা ধর্ষণ-পরবর্তী হত্যা মামলার বিচার কাজ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নির্ধারিত ১৮০ দিনের মধ্যে শেষ করতে নির্দেশনা দিয়েছেন হাইকোর্ট। ১৮ জুলাই হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ ৩টি চাঞ্চল্যকর ধর্ষণ মামলার জামিন শুনানীতে ৭ দফা নির্দেশনা দেন। হাইকোর্ট ওই নির্দেশনা বাস্তবায়নে সরকার দ্রুত আইনও প্রণয়ন করবে বলে আশা প্রকাশ করে বলেছেন, টাঙ্গাইলের মধুপুরে চলন্ত বাসে বহুজাতিক কোম্পানির কর্মী রূপা খাতুনকে ধর্ষণ ও হত্যা মামলার বিচার মাত্র ১৪ কর্মদিবসে সম্পন্ন করা একটি বিরল ঘটনা হিসেবে আমাদের স্মৃতিতে আছে। ওই মামলার রায়টি মাইলফলক হয়ে রয়েছে এ কারণে যে, ৫ আসামির মধ্যে ৪ জনেরই ফাঁসি হওয়ার পাশাপাশি অপরাধ সংঘটনে ব্যবহৃত বাসটির মালিকানা রূপার পরিবারকে দেওয়ার নির্দেশনা দেন আদালত। আমাদের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালগুলো সাধারণত ওই এখতিয়ার অনুসরণ করেন না।
ধর্ষণ ও ধর্ষণ পরবর্তী হত্যা মামলার দ্রুত বিচার নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে উচ্চ আদালতের ওই নির্দেশনাটি নিঃসন্দেহে সময়োপযোগী ও যুগান্তকারী। কারণ সাম্প্রতিককালে ধর্ষণ-হত্যাসহ নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতার ঘটনায় আমাদের সমাজের শুভবুদ্ধিসম্পন্ন কেউই উদ্বিগ্ন না হয়ে পারেন না। অঘটনগুলো অনেক ক্ষেত্রে শুধু ধর্ষণেই সীমাবদ্ধ থাকছে না, ধর্ষিতাকে হত্যাও করা হচ্ছে। ওই বাস্তবতায় হাইকোর্টের ৭ দফা নির্দেশনা স্বস্তির- এ কথাও নিদ্বিধায় বলা যায়। আর উচ্চ আদালতের ওই উপলব্ধিও এ ক্ষেত্রে তাৎপর্যপূর্ণ যে, ‘সর্বোচ্চ শাস্তি সাধারণত দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হিসেবেই গণ্য হয়; কিন্তু সেই শাস্তি দিলেই কোনো অপরাধ নির্মূল করা সম্ভব নয়।’ নারী-শিশু ধর্ষণের যেসব ভয়াবহ চিত্র পরিলক্ষিত হচ্ছে তাতে স্পষ্ট, অপরাধের খবর যত ব্যাপকতায় প্রচারিত হয়, বিচারকার্য তত দ্রুত সম্পন্ন হয় না। আমরা মনে করি, ধর্ষণ কেবল নারী ও শিশু নির্যাতনই নয়, তা বৃহত্তর সামাজিক অন্যায়-অপরাধের প্রকাশও। তাই আমরা মনে করি, ধর্ষণের ঘটনাগুলোকে অধিকতর গুরুত্ব দেওয়া এবং এর প্রতিকার রাষ্ট্রের জন্য অত্যন্ত জরুরি। কিন্তু এ ক্ষেত্রে নানাবিধ প্রশাসনিক ও আইনি জটিলতা এখনও বিদ্যমান। বহুল আলোচিত সোহাগী জাহান তনু হত্যার বিচার প্রক্রিয়ায় দীর্ঘসূত্রতা দুঃখজনক। নারী নির্যাতন, ধর্ষণ ইত্যাদি প্রতিরোধে দ্রুত বিচার সম্পন্নের কঠিন আইন থাকলেও পরিতাপের বিষয় হচ্ছে, বিস্তৃত পরিসরে এর প্রয়োগ সীমিত ও সীমাবদ্ধ। ওই ধরনের অপরাধের রাশ টানতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে অধিকতর সজাগ ও তৎপর হতে হবে। মনে রাখা দরকার, শাস্তির কঠোরতার চেয়েও শাস্তির নিশ্চয়তা অপরাধীদের নিরস্ত করে বেশি। নানাবিধ অজুহাত দাঁড় করিয়ে ওইসব ক্ষেত্রে তদন্ত ও অভিযোগ গঠনেও বিলম্ব কাম্য নয়।
এ কথাও বলার অবকাশ নেই যে, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা না পেলে অপরাধীদের অপরাধ করে পার পাওয়ার সুযোগ থেকে যায়। ফলে সব ধরনের অপরাধপ্রবণতা বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই সুশাসন তথা আইনের শাসন মজবুত করার প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে। একই সঙ্গে সামাজিক শক্তিরও যথাযথ সহযোগিতা-সমর্থন প্রয়োজন। আর এজন্যই দেশে নারী-শিশুর নিরাপত্তা ও মর্যাদা রক্ষায় উচ্চ আদালতের সাম্প্রতিক ওই নির্দেশনা মাইলফলক হয়ে থাকুক, সেইসাথে ধর্ষণ-হত্যায় দ্রুত বিচারে ওই রায়ের বাস্তবায়ন হোক- এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» শেরপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মেরাজ উদ্দিনের ৫০তম জন্মদিন পালিত

» শ্রীবরদীতে চকলেট দেওয়ার প্রলোভনে শিশুকে ধর্ষণচেষ্টা

» নালিতাবাড়ীতে শিক্ষক ও কর্মচারী কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়নের ১১তম বার্ষিক সাধারণ সভা

» নালিতাবাড়ীতে ফাতেমা রাণীর তীর্থ উৎসব শুক্রবার

» শেরপুরে ৩ সপ্তাহেও উদঘাটন হয়নি সেনাসদস্যের স্ত্রী হত্যারহস্য

» আজারবাইজান-আর্মেনিয়া যুদ্ধ: সীমান্তে ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা জোরদার ইরানের

» ইরফান ও তার দেহরক্ষী ৩ দিনের রিমান্ডে

» মেসির বিপক্ষে মাঠে নামা হচ্ছে না রোনালদোর

» আমরা যুদ্ধ চাই না, তবে মোকাবেলার শক্তি অর্জন করতে চাই : প্রধানমন্ত্রী

» বিএনপি লোক দেখাতে নির্বাচনে অংশ নেয় : কাদের

» ফের বাড়ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি

» সেরা সুন্দরী হিসেবে দীপিকা পেলেন ৫৯.৯ স্কোর

» শিগগিরই ভারতে পর্যটন ভিসা চালু: হাইকমিশনার

» শ্রীবরদীতে ঘরে ঢুকে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

» বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহী হামিদুর রহমানের ৪৯তম শাহাদাত বার্ষিকী আজ

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  সকাল ১০:৪৩ | বৃহস্পতিবার | ২৯শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ধর্ষণ-হত্যায় দ্রুত বিচারে উচ্চ আদালতের রায়ের বাস্তবায়ন হোক

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্ষণ বা ধর্ষণ-পরবর্তী হত্যা মামলার বিচার কাজ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নির্ধারিত ১৮০ দিনের মধ্যে শেষ করতে নির্দেশনা দিয়েছেন হাইকোর্ট। ১৮ জুলাই হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ ৩টি চাঞ্চল্যকর ধর্ষণ মামলার জামিন শুনানীতে ৭ দফা নির্দেশনা দেন। হাইকোর্ট ওই নির্দেশনা বাস্তবায়নে সরকার দ্রুত আইনও প্রণয়ন করবে বলে আশা প্রকাশ করে বলেছেন, টাঙ্গাইলের মধুপুরে চলন্ত বাসে বহুজাতিক কোম্পানির কর্মী রূপা খাতুনকে ধর্ষণ ও হত্যা মামলার বিচার মাত্র ১৪ কর্মদিবসে সম্পন্ন করা একটি বিরল ঘটনা হিসেবে আমাদের স্মৃতিতে আছে। ওই মামলার রায়টি মাইলফলক হয়ে রয়েছে এ কারণে যে, ৫ আসামির মধ্যে ৪ জনেরই ফাঁসি হওয়ার পাশাপাশি অপরাধ সংঘটনে ব্যবহৃত বাসটির মালিকানা রূপার পরিবারকে দেওয়ার নির্দেশনা দেন আদালত। আমাদের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালগুলো সাধারণত ওই এখতিয়ার অনুসরণ করেন না।
ধর্ষণ ও ধর্ষণ পরবর্তী হত্যা মামলার দ্রুত বিচার নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে উচ্চ আদালতের ওই নির্দেশনাটি নিঃসন্দেহে সময়োপযোগী ও যুগান্তকারী। কারণ সাম্প্রতিককালে ধর্ষণ-হত্যাসহ নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতার ঘটনায় আমাদের সমাজের শুভবুদ্ধিসম্পন্ন কেউই উদ্বিগ্ন না হয়ে পারেন না। অঘটনগুলো অনেক ক্ষেত্রে শুধু ধর্ষণেই সীমাবদ্ধ থাকছে না, ধর্ষিতাকে হত্যাও করা হচ্ছে। ওই বাস্তবতায় হাইকোর্টের ৭ দফা নির্দেশনা স্বস্তির- এ কথাও নিদ্বিধায় বলা যায়। আর উচ্চ আদালতের ওই উপলব্ধিও এ ক্ষেত্রে তাৎপর্যপূর্ণ যে, ‘সর্বোচ্চ শাস্তি সাধারণত দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হিসেবেই গণ্য হয়; কিন্তু সেই শাস্তি দিলেই কোনো অপরাধ নির্মূল করা সম্ভব নয়।’ নারী-শিশু ধর্ষণের যেসব ভয়াবহ চিত্র পরিলক্ষিত হচ্ছে তাতে স্পষ্ট, অপরাধের খবর যত ব্যাপকতায় প্রচারিত হয়, বিচারকার্য তত দ্রুত সম্পন্ন হয় না। আমরা মনে করি, ধর্ষণ কেবল নারী ও শিশু নির্যাতনই নয়, তা বৃহত্তর সামাজিক অন্যায়-অপরাধের প্রকাশও। তাই আমরা মনে করি, ধর্ষণের ঘটনাগুলোকে অধিকতর গুরুত্ব দেওয়া এবং এর প্রতিকার রাষ্ট্রের জন্য অত্যন্ত জরুরি। কিন্তু এ ক্ষেত্রে নানাবিধ প্রশাসনিক ও আইনি জটিলতা এখনও বিদ্যমান। বহুল আলোচিত সোহাগী জাহান তনু হত্যার বিচার প্রক্রিয়ায় দীর্ঘসূত্রতা দুঃখজনক। নারী নির্যাতন, ধর্ষণ ইত্যাদি প্রতিরোধে দ্রুত বিচার সম্পন্নের কঠিন আইন থাকলেও পরিতাপের বিষয় হচ্ছে, বিস্তৃত পরিসরে এর প্রয়োগ সীমিত ও সীমাবদ্ধ। ওই ধরনের অপরাধের রাশ টানতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে অধিকতর সজাগ ও তৎপর হতে হবে। মনে রাখা দরকার, শাস্তির কঠোরতার চেয়েও শাস্তির নিশ্চয়তা অপরাধীদের নিরস্ত করে বেশি। নানাবিধ অজুহাত দাঁড় করিয়ে ওইসব ক্ষেত্রে তদন্ত ও অভিযোগ গঠনেও বিলম্ব কাম্য নয়।
এ কথাও বলার অবকাশ নেই যে, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা না পেলে অপরাধীদের অপরাধ করে পার পাওয়ার সুযোগ থেকে যায়। ফলে সব ধরনের অপরাধপ্রবণতা বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই সুশাসন তথা আইনের শাসন মজবুত করার প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে। একই সঙ্গে সামাজিক শক্তিরও যথাযথ সহযোগিতা-সমর্থন প্রয়োজন। আর এজন্যই দেশে নারী-শিশুর নিরাপত্তা ও মর্যাদা রক্ষায় উচ্চ আদালতের সাম্প্রতিক ওই নির্দেশনা মাইলফলক হয়ে থাকুক, সেইসাথে ধর্ষণ-হত্যায় দ্রুত বিচারে ওই রায়ের বাস্তবায়ন হোক- এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

Print Friendly, PDF & Email
এ সংক্রান্ত আরও খবর

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!