রাত ৪:৩২ | রবিবার | ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং | ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ঝিনাইগাতীতে ৮০ বছরেও বয়স্কভাতার কার্ড মেলেনি বাউল আব্দুর রহমানের

খোরশেদ আলম, ঝিনাইগাতী (শেরপুর) ॥ শেরপুরের ঝিনাইগাতীর বিখ্যাত বাউল আব্দুর রহমানের ভাগ্যে ৮০ বছরেও মেলেনি বয়স্কভাতার কার্ড। তার দিনও কাটে এখন খেয়ে, না খেয়ে। আব্দুর রহমান উপজেলার গৌরীপুর ইউনিয়নের মনাকোষা গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে।
জানা যায়, ৩ ছেলেসহ ৫ সদস্যের পরিবার আব্দুর রহমানের। পাকিস্তান আমল থেকেই তিনি বাউল গান, জারী গান, বিচ্ছেদ গান গেয়ে চষে বেড়াতেন উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে-গঞ্জে। ১২ একর জমিও ছিলেন তার। তিনি জীবন-জীবিকার প্রতি মনোযোগী না হয়ে গানই ছিল তার জীবনের সবকিছু। এভাবেই ১২ একর জমি খুইয়েছেন তিনি। এখন আব্দুর রহমানের বয়স ৮০ ছুঁইছুঁই। জীবনের শেষ প্রান্তে এসে গানই এখন তার জীবিকার উৎস হয়ে দাঁড়িয়েছে। বয়সের ভারে নুইয়ে পড়েছেন, চোখেও কম দেখেন তিনি। এরপরেও লাঠিভর করে প্রতিদিন বের হতে হয় গান গাইতে। এখনও তার মধুর কণ্ঠের গানের তুলনা নেই। তার গান একবার শুনলে বারবার শুনতে ইচ্ছে করবে যে কারও। তিনি রাস্তার মোড়ে বিভিন্ন হাটে-বাজারে ও গ্রামে গান গেয়ে থাকেন। এলাকা ছাড়াও তিনি গান গাইতে যান দেশের দূর-দূরান্ত অঞ্চলে। গান গেয়ে যা পান তাই দিয়ে কোন রকমে চলে তার সংসার। অনেক সময় অনাহারে, অর্ধাহারে থাকতে হয় তাকে। বসতভিটার ৯ শতাংশ জমি ছাড়া সহায়-সম্বল বলতে এখন আর কিছুই নেই। থাকার ঘরটিও ভেঙ্গে বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ৩ ছেলে বিয়েশাদি করে আলাদা সংসার করছে। গান গেয়ে যা অর্থ পান তা দিয়ে সংসার চলে না তাদের।

img-add

আব্দুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ঘর তো দূরের কথা, একটি বয়স্ক ভাতার কার্ডের জন্য জনপ্রতিনিধিদের দ্বারে দ্বারে ঘুরেছেন অনেক। কিন্তু আজও তার ভাগ্যে জুটেনি বয়স্ক ভাতা’র কার্ড।
এ ব্যাপারে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান মন্টু জানান, বয়স্ক ভাতার কার্ড বরাদ্দ পাওয়া গেছে। শীঘ্রই তার নামে কার্ডের ব্যবস্থা করা হবে।

অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» বইপ্রেমী-লেখকদের পদভারে মুখরিত শেরপুরের ডিসি উদ্যান

» মুজিববর্ষে আসছে স্বর্ণ ও রৌপ্য মুদ্রা, সঙ্গে ২শ টাকার নোট

» শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ সমৃদ্ধ অর্থনীতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে : অর্থমন্ত্রী

» শেরপুর শহীদ স্মৃতিস্তম্ভের সুরক্ষার ব্যবস্থা করা হোক ॥ মানিক দত্ত

» ম্যাচের সেঞ্চুরি পূর্ণ করল বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে

» হাড় শক্তিশালী করে যেসব খাবার

» করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৩৬০

» নাঈমের ঘূর্ণিতে স্বস্তি ফিরল বাংলাদেশ শিবিরে

» ‘বাংলাকে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা করতে কাজ করছে সরকার’

» শেরপুরে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে আলোচনা সভা ও ভাষা সৈনিক পরিবারের সংবর্ধনা

» শেরপুরে ৯ দিনব্যাপী বই মেলার উদ্বোধন

» নকলায় মোটরসাইকেলের বেপরোয়া গতিতে প্রাণ গেল দুই কিশোরের

» শেরপুরে বিনম্র শ্রদ্ধায় ভাষা শহীদদের স্মরণ

» বসলো ২৫তম স্প্যান : পদ্মা সেতুর পৌনে ৪ কিলোমিটার দৃশ্যমান

» ঝিনাইগাতীতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

  রাত ৪:৩২ | রবিবার | ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং | ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ঝিনাইগাতীতে ৮০ বছরেও বয়স্কভাতার কার্ড মেলেনি বাউল আব্দুর রহমানের

খোরশেদ আলম, ঝিনাইগাতী (শেরপুর) ॥ শেরপুরের ঝিনাইগাতীর বিখ্যাত বাউল আব্দুর রহমানের ভাগ্যে ৮০ বছরেও মেলেনি বয়স্কভাতার কার্ড। তার দিনও কাটে এখন খেয়ে, না খেয়ে। আব্দুর রহমান উপজেলার গৌরীপুর ইউনিয়নের মনাকোষা গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে।
জানা যায়, ৩ ছেলেসহ ৫ সদস্যের পরিবার আব্দুর রহমানের। পাকিস্তান আমল থেকেই তিনি বাউল গান, জারী গান, বিচ্ছেদ গান গেয়ে চষে বেড়াতেন উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে-গঞ্জে। ১২ একর জমিও ছিলেন তার। তিনি জীবন-জীবিকার প্রতি মনোযোগী না হয়ে গানই ছিল তার জীবনের সবকিছু। এভাবেই ১২ একর জমি খুইয়েছেন তিনি। এখন আব্দুর রহমানের বয়স ৮০ ছুঁইছুঁই। জীবনের শেষ প্রান্তে এসে গানই এখন তার জীবিকার উৎস হয়ে দাঁড়িয়েছে। বয়সের ভারে নুইয়ে পড়েছেন, চোখেও কম দেখেন তিনি। এরপরেও লাঠিভর করে প্রতিদিন বের হতে হয় গান গাইতে। এখনও তার মধুর কণ্ঠের গানের তুলনা নেই। তার গান একবার শুনলে বারবার শুনতে ইচ্ছে করবে যে কারও। তিনি রাস্তার মোড়ে বিভিন্ন হাটে-বাজারে ও গ্রামে গান গেয়ে থাকেন। এলাকা ছাড়াও তিনি গান গাইতে যান দেশের দূর-দূরান্ত অঞ্চলে। গান গেয়ে যা পান তাই দিয়ে কোন রকমে চলে তার সংসার। অনেক সময় অনাহারে, অর্ধাহারে থাকতে হয় তাকে। বসতভিটার ৯ শতাংশ জমি ছাড়া সহায়-সম্বল বলতে এখন আর কিছুই নেই। থাকার ঘরটিও ভেঙ্গে বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ৩ ছেলে বিয়েশাদি করে আলাদা সংসার করছে। গান গেয়ে যা অর্থ পান তা দিয়ে সংসার চলে না তাদের।

img-add

আব্দুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ঘর তো দূরের কথা, একটি বয়স্ক ভাতার কার্ডের জন্য জনপ্রতিনিধিদের দ্বারে দ্বারে ঘুরেছেন অনেক। কিন্তু আজও তার ভাগ্যে জুটেনি বয়স্ক ভাতা’র কার্ড।
এ ব্যাপারে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান মন্টু জানান, বয়স্ক ভাতার কার্ড বরাদ্দ পাওয়া গেছে। শীঘ্রই তার নামে কার্ডের ব্যবস্থা করা হবে।

সর্বশেষ খবর



অন্যান্য খবর



সম্পাদক-প্রকাশক : রফিকুল ইসলাম আধার
উপদেষ্টা সম্পাদক : সোলায়মান খাঁন মজনু
নির্বাহী সম্পাদক : মোহাম্মদ জুবায়ের রহমান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১ : ফারহানা পারভীন মুন্নী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : আলমগীর কিবরিয়া কামরুল
বার্তা সম্পাদক-১ : রেজাউল করিম বকুল
বার্তা সম্পাদক-২ : মোঃ ফরিদুজ্জামান।
যোগাযোগ : সম্পাদক : ০১৭২০০৭৯৪০৯
নির্বাহী সম্পাদক : ০১৯১২০৪৯৯৪৬
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-১: ০১৭১৬৪৬২২৫৫
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক-২ : ০১৭১৪২৬১৩৫০
বার্তা সম্পাদক-১ : ০১৭১৩৫৬৪২২৫
বার্তা সম্পাদক -২ : ০১৯২১-৯৫৫৯০৬
বিজ্ঞাপন : ০১৭১২৮৫৩৩০৩
ইমেইল : shamolbangla2013@gmail.com.

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । ওয়েবসাইট তৈরি করেছে- BD iT Zone

error: Content is protected !!